Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

থমথমে বলিউড, তড়িঘড়ি মুম্বই ফিরলেন সারা, আসছেন দীপিকাও

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৫:৩৭
মুম্বই বিমানবন্দরে মায়ের সঙ্গে সারা।

মুম্বই বিমানবন্দরে মায়ের সঙ্গে সারা।

মুম্বই বিমানবন্দরে পা রাখলেন সারা আলি খান। সঙ্গে ছিলেন তাঁর মা অমৃতা সিংহ। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ মুম্বইয়ে পা রাখেন তিনি। অন্য দিকে আজই মুম্বই ফিরছেন দীপিকা পাড়ুকোনও। পরিচালক শকুন বাত্রার ছবির শুটিংয়ে গোয়া গিয়েছিলেন দীপিকা। সারাও গোয়ায় গিয়েছিলেন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে।

বুধবারই মাদক যোগে সারা এবং দীপিকাকে সমন পাঠিয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। তাই এই তড়িঘড়ি 'প্ল্যান চেঞ্জ' দীপিকা-সারার।

এনসিবি সূত্রে জানা যাচ্ছে, আগামিকাল, শুক্রবারই তাঁদের দফতরে দীপিকাকে ডেকে পাঠিয়েছেন এনসিবি। যদিও দীপিকা এনসিবি'র কাছ থেকে এক দিনের সময় চেয়ে নিয়েছে। শনিবার তিনি এনসিবি দফতরে হাজির হবে বলে জানিয়েছেন। তবে রাকুল প্রীত সিংহও শুক্রবার এনসিবি দফতরে হাজির হবেন বলে জানা যাচ্ছে। শ্রদ্ধা এবং সারাকে ডাকা হয়েছে শনিবার।

Advertisement

সব মিলিয়ে থমথমে বলিউড। তারকাদের ইনস্টা থেকে ফেসবুক, স্ন্যাপচ্যাট থেকে টিন্ডার কার্যত চুপ।

আজ সকাল ১০টা নাগাদ এনসিবি’র দফতরে ঢুকতে দেখা যায় নামজাদা ফ্যাশন ডিজাইনার সিমন খাম্বাট্টাকে। মাদক কাণ্ডে নাম জড়িয়ে গিয়েছে তাঁরও। এর খানিক পরেই সেখানে পৌঁছন সুশান্তের প্রাক্তন ট্যালেন্ট ম্যানেজার শ্রুতি মোদী। বলিউডের মাদক কাণ্ডে এই প্রথম বার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনসিবি দফতরে পৌঁছলেন সিমন, যদিও শ্রুতিকে এর আগে বেশ কয়েক বার জেরা করেছে ওই কেন্দ্রীয় সংস্থা।

শুধু বড় পর্দার অভিনেতারাই নন, বলিউডের মাদক যোগে চাপে ছোট পর্দার তারকারাও। করমজিৎ নামে যে মাদক পাচারকারীকে কিছু দিন আগে গ্রেফতার করেছিল এনসিবি, তাঁর বয়ানেই উঠে এসেছে মোট কুড়ি জন টেলিস্টারের নাম। এঁদের মধ্যে রয়েছেন সেলিব্রিটি কাপল আবিগালি পাণ্ডে এবং সনম জোহর। এনসিবি সূত্রে জানা যাচ্ছে, জেরা করা হচ্ছে তাঁদেরও। এ দিনও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁদের দফতরে ডেকেছে এনসিবি। তালিকায় রয়েছে আরও বেশ কিছু অভিনেতার নাম।

বলিউডের মাদক মামলায় ইতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছে রিয়া চক্রবর্তী। মঙ্গলবার সেই মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন করে আদালতে আবেদন জানিয়েছিল এনসিবি। আর তাতেই মাদক মামলা সংক্রান্ত বিশেষ আদালত এনডিপিএস (নার্কোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস) আগামী ৬ অক্টোবর পর্যন্ত রিয়ার জেল হেফাজতের মেয়াদ বাড়ায়। এর পরেই বম্বে হাইকোর্টে জামিনের আবেদন জানান রিয়া ও তাঁর ভাই শৌভিক। গতকাল মুম্বইয়ে ভারী বৃষ্টির জন্য রিয়া চক্রবর্তীর জামিনের আবেদনের শুনানি স্থগিত রাখা হয়। আজ সেই শুনানির পরিবর্তিত দিন ধার্য করেছিল বম্বে আদালত। যদিও আজও মুলতুবি হয়ে যায় শুনানি। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, পরবর্তী শুনানির দিন ২৯ সেপ্টেম্বর।

আরও পড়ুন- এক সঙ্গে থাকতে থাকতে গৌরব আমার ‘ভাই’ হয়ে গিয়েছে: দেবলীনা

এনসিবি সূত্রে খবর, রাকুল এবং সারার নাম প্রথম বার এনসিবি’র কাছে ‘ফাঁস’ করেন রিয়াই। সিমনের নামও প্রকাশ করেন তিনি। যদিও রিয়া তা স্বীকার করেননি। ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে খবর, এই রাকুল, সারা এবং রিয়াই কিন্তু একসময় খুব ভাল বন্ধু ছিলেন। বহু বার একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন ওঁরা। মাঝেমধ্যেই সুশান্তের লোনাভালার ফার্মহাউজে পার্টি থেকে শুরু করে একসঙ্গে ঘুরতে যাওয়া... চলত সব। বলিউডের একাংশ বলছে, ওই পার্টিই ছিল নাকি ‘ড্রাগের আখড়া’। মদ-গাঁজা তো ছিলই, একই সঙ্গে চলত নানা নিষিদ্ধ মাদক। সত্যিই কি তাই? খতিয়ে দেখছে এনসিবি।



দীপিকা পাড়ুকোন কে আগামিকাল এবং সারাকে শনিবার তলব করেছে এনসিবি।

শ্রদ্ধার নাম কিন্তু রিয়া নেননি। তাঁর প্রসঙ্গে টেনে আনেন সুশান্তের প্রাক্তন ট্যালেন্ট ম্যানেজার জয়া সাহা। সেই জয়া সাহা যিনি রিয়াকে লিখেছিলেন, “সুশান্তের চায়ে কয়েক ফোঁটা মিশিয়ে দাও, ফল পাবে।” জানা গিয়েছিল জয়া সিবিডি অয়েল মেশানোর কথা বলছিলেন রিয়াকে। সিবিডি অয়েল আদপে গাঁজা থেকে নিঃসৃত এক ধরনের তেল জাতীয় পদার্থ। জয়া জেরায় জানিয়েছেন, শুধু সুশান্ত বা রিয়াই নন, বলিউডের অনেক স্টারকে ওই ‘সিবিডি অয়েল’ কিনে দিয়েছিলেন তিনি। যাঁদের মধ্যে এক জন হলেন শ্রদ্ধা কপূর।

আরও পড়ুন- লন্ডনে এসে ডায়েটের ছুটি, রোজ ব্রাউনি খাচ্ছি: প্রিয়াঙ্কা

আর দীপিকা? সূত্রের খবর, সেখানেও পরোক্ষে জয়ারই ‘হাত’। দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা আবার জয়ার খুব ভাল বন্ধু। একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবি’র হাতে আসে গত সোমবার। চ্যাটটি পুরনো। ২০১৭ নাগাদ। সেই চ্যাটেই দেখা যায়, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিক বার কথা চালাচালি হয়েছে। কখনও ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজা আছে কিনা জিজ্ঞাসা করছেন। আবার কখনও বা ‘কে’ তাঁকে (ডি’কে) গাঁজার হদিশ দিচ্ছেন। বলিউডের একাংশের দাবি, এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা নিজেই। আর ‘কে’ হলেন করিশ্মা। এনসিবি-র নজরে রয়েছে বছর তিনেক আগে দীপিকা-সহ বলিউডের বেশ কয়েক জন নামজাদা অভিনেতার ক্লাব ‘কোকো’-তে একটি পার্টির ঘটনা। বলিউডের অন্দরের খবর, ওই পার্টির জন্যই ‘কে’-র কাছে গাঁজার খবর জানতে চাইছিলেন ‘ডি’।

করিশ্মা কাজ করেন ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’-তে। ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’র কর্ণধার মধু মন্টেনাকে বৃহস্পতিবার জেরা করেছে এনসিবি। এই এজেন্সির নামেই দিন দুয়েক আগে বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছিলেন কঙ্গনা রানাউত। কঙ্গনা টুইটারে লেখেন, এই সংস্থারই সেক্রেটারি অনির্বাণ এক উঠতি অভিনেত্রীকে ধর্ষণ করেছিলেন।

এত অভিযোগের মাঝে একেবারে চুপ বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতা শাহরুখ, সলমন, অমিতাভরা। মুখ খোলেননি রণবীর সিংহও। কী হতে চলেছে কেউ জানেন না। কাঁপছে বলিউড।

আরও পড়ুন

Advertisement