Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

‘অভিমান’-এর ছায়া, তিয়াশা-সুবানের সম্পর্কে ফাটল?

তিয়াশা এবং তাঁর স্বামী সুবান রায়ের মধ্যে সম্প্রতি সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সেই সমস্যা পারিবারিক গণ্ডি ছাড়িয়ে পৌঁছেছে পুলিশের কাছে

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৫:০৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
তিয়াশা এবং সুবান।

তিয়াশা এবং সুবান।

Popup Close

তিয়াশা রায়কে চেনেন তো? আপনি যদি জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘কৃষ্ণকলি’র দর্শক হন, তা হলে মুখ্য অভিনেত্রী শ্যামা ওরফে তিয়াশা আপনার ভীষণই পরিচিত। সিরিয়ালে এটাই তাঁর প্রথম কাজ। ইতিমধ্যেই ‘শ্যামা’ মন কেড়েছেন দর্শকদের। কেরিয়ার তো বটেই, ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও সুখী ছিলেন নায়িকা। হ্যাঁ, ছিলেন। কারণ, তিয়াশা এবং তাঁর স্বামী সুবান রায়ের মধ্যে সম্প্রতি সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সেই সমস্যা পারিবারিক গণ্ডি ছাড়িয়ে পৌঁছেছে পুলিশের কাছেও।

বিয়ের পর তিয়াশার প্রথম জন্মদিন সেলিব্রেট করেছিলেন শ্বশুরবাড়ির সকলে। গত অক্টোবরে ঘটা করে এক বছরের বিবাহবার্ষিকীও পালন করেছিলেন এই জুটি। কী এমন হল, তার দু’মাসের মধ্যে সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে যেতে চাইছেন তিয়াশা? শোনা যাচ্ছে, সুবানের সঙ্গে আর তিনি সংসারই করতে চাইছেন না। সরাসরি বিবাহবিচ্ছেদ চাইছেন।

ঘনিষ্ঠ মহলে তিয়াশার মা জানিয়েছেন, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁর মেয়ের উপর মানসিক নির্যাতন চালায়। তিয়াশার রোজগারের প্রায় বেশির ভাগ টাকাটাই দিয়ে দিতে হয় ওই পরিবারের হাতে। হাতখরচের জন্য দেওয়া হয় সামান্য কিছু টাকা। এমনকি, তিয়াশাকে তাঁর স্বামী বেশ শাসনেও রাখেন। তাঁর আরও অভিযোগ, মেয়েকে সুবানই তো অভিনয় জগতে নিয়ে এসেছেন। এখন তা নিয়ে সমস্যা করার মানে কী! ঘনিষ্ঠ মহলে তিনিও মেয়ের বিবাহবিচ্ছেদের ইঙ্গিত দিয়েছেন।

Advertisement

আরও পড়ুন, গৌতমদাকে আর হাসিমুখে শুটিংয়ে দেখব না, ভাবতেই পারছি না

পুলিশের কাছে একই অভিযোগ জানিয়েছেন তিয়াশা নিজে। তাঁর শ্বশুরবাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙায়। গত মঙ্গলবার তিয়াশা তাঁর মাকে নিয়ে পুলিশের কাছে যান। পুলিশ সূত্রে খবর, সেখানে তিনি শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন। যদিও কোনও মামলা তিনি দায়ের করতে চাননি। পুলিশকে বিষয়টি হস্তক্ষেপ করে মিটিয়ে দিতে সাহায্য করার অনুরোধও করেন অভিনেত্রী। এর পর সুবান এবং তাঁর বাবাকে পুলিশ আলোচনার জন্য ডেকে পাঠায়। সেখানে কোনও সুরাহা মেলেনি বলেই পুলিশ সূত্রে খবর।


একান্তে সুবান-তিয়াশা।— ফাইল চিত্র।



যদিও স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে সমস্যার কথা অস্বীকার করছেন তিয়াশা। ‘কৃষ্ণকলি’র শুটিং ফ্লোর থেকে তিনি বলেন, ‘‘আমার আর সুবানের মধ্যে কোনও সমস্যা নেই। কোনও ঝগড়াও হয়নি। যেটুকু সমস্যা তা সব পরিবারেই হতে পারে। আমরা একসঙ্গেই থাকব।’’ অন্য দিকে, সুবানের সঙ্গে একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। তিনি ফোন ধরেননি। জবাব দেননি এসএমএসেরও। সুবানের ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, তিয়াশার সঙ্গে সম্প্রতি তাঁর একটি বিষয় নিয়ে বড়সড় ঝামেলা হয়। কী বিষয়ে, সেটা জানা যায়নি। তার পরেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিয়াশা। ঘটনার পর থেকে সুবানের বাবা-মাকে আর বাড়ির বাইরে দেখা যায়নি। তাঁদের পরিবারের একটি সূত্র জানিয়েছে, রায় পরিবার চাইছে সুবান-তিয়াশার সম্পর্ক আবার আগের মতো স্বাভাবিক হয়ে যাক।

আরও পড়ুন, ছেলের প্রথম ছবি শেয়ার করলেন সুদীপা

তিয়াশার স্বামী সুবানও অভিনেতা হিসেবে পরিচিত মুখ। ‘আমার দুর্গা’, ‘মিলন তিথি’-র মতো ধারাবাহিকে কাজ করেছেন তিনি। রাইমা সেন অভিনীত ‘নটোবর নট আউট’ ছবিতেও অভিনয় করেছেন। অন্য দিকে, ‘কৃষ্ণকলি’তেই তিয়াশার প্রথম অভিনয়। কিন্তু, সুবানের তুলনায় তাঁর জনপ্রিয়তা অনেকটাই বেশি বলে মনে করেন ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশ। তা হলে কি তিয়াশার এই সাফল্য মেনে নিতে পারছেন না সুবান এবং তাঁর পরিবার? সে জন্যই কি বিবাদ? ইন্ডাস্ট্রির একটা অংশ মনে করে, অতীতে অনেক শিল্পীর জীবনে এমনটা হয়েছে। এই সমস্যায় ভুগে অনেকের সংসার তো বটেই কেরিয়ারও নষ্ট হয়ে গিয়েছে। তারাও মনে করছেন, সেই সমস্যাতেই হয়তো ভুগছেন সুবান-তিয়াশা।

তবে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইন্ডাস্ট্রির এক সূত্র জানাচ্ছে, ‘কৃষ্ণকলি’ মন দিয়েই নিজের কাজ করেন। শুটিং শেষ হলে বাড়ি চলে যান। পারিবারিক কোনও বিষয় নিয়ে কাজের জায়গায় আলোচনা করেন না। সুবানের মতো ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁকে নিয়েও কোনও গসিপ নেই। সকলেই চাইছেন, সমস্যা মিটিয়ে ফের হাসি মুখে কাজ ও সংসার করুন দু’জনে।

(টলিউডের প্রেম, টলিউডের বক্স অফিস, বাংলা সিরিয়ালের মা-বউমার তরজা -বিনোদনের সব খবর আমাদের বিনোদন বিভাগে।)

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement