• মৌসুমী বিলকিস
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লকডাউনে টেলিভিশনের পর্দায় ফিরে আসছে পুরনো ধারবাহিকের নস্টালজিয়া

1
গ্রাফিক : তিয়াসা দাস

প্রত্যেকটি ধারাবাহিকের ব্যাঙ্কিং শেষ। লক ডাউনের মরশুমে শুটিং করার রাস্তাও বন্ধ। কিন্তু টেলিভিশনের সম্প্রচার থেমে গেলে চলবে না। ফলে প্রত্যেকটি চ্যানেল নিজের নিজের মতো করে বিষয়টি সমাধান করার চেষ্টা করেছে।

কেউ ফিরিয়ে আনল পুরনো ধারাবাহিক, কেউ চলতি ধারাবাহিকের স্পেশাল এপিসোড দেখানো শুরু করল, কেউ আবার চলতি ধারাবাহিকগুলির প্রথম এপিসোড থেকে সম্প্রচারের সিদ্ধান্ত নিল, কেউ প্রাধান্য দিল বাচ্চা দর্শককেও। আর ধারাবাহিকের চ্যানেলে ফিরে এলো সিনেমাও। সব ধারার দর্শক পেতে প্রায় সব চ্যানেল এই পন্থা গ্রহণ করল।

বাড়িতে বসে বোর না হয়ে চলুন প্ল্যান করা যাক কি কি শো দেখা যেতে পারে।

 

এক সময়ের জনপ্রিয় সিরিয়াল ছিল ‘জন্মভূমি’—ছবি সংগৃহীত

জি বাংলা

এক আকাশের নীচে

রবি ওঝার পরিচালনায় বাংলায় ল্যান্ড মার্ক হয়ে গেছে ধারাবাহিকটি। একটি বড় পরিবারের সুখ, দুঃখ, আনন্দ, বেদনার সঙ্গী হবেন দর্শক ধারাবাহিকটির হাত ধরে। ২০০২ সালে শুরু হওয়া ধারাবাহিকটিতে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, পার্থসারথি দেব, সুদীপা বসু, রুমনি সেনগুপ্ত, রজতাভ দত্ত, চৈতি ঘোষাল, মনামি ঘোষ, কনিনীকা প্রমুখ অভিনয় করেছিলেন। অভিনেতাদের নাম বলে শেষ করা যাবে না। বিশাল প্রেক্ষাপটের এই কাহিনিতে এখনকার অনেক বিখ্যাত অভিনেতাকেই দেখা গেছে। শাশ্বত’র মতোই যারা ছোট পর্দায় আর কাজ করেন না সেরকম অনেক অভিনেতাই এই ধারাবাহিকের সূত্রে লক ডাউনের বাজারে আবার ফিরছেন টেলিভিশনে। সপ্তাহে প্রতিদিন দুপুর ১২ টায় নস্টালজিক হওয়া যেতে পারে ধারাবাহিকটির হাত ধরে।

 

রবি ওঝার পরিচালনায় বাংলায় ল্যান্ড মার্ক হয়ে গেছে ধারাবাহিকটি—ছবি: সংগৃহীত

অগ্নিপরীক্ষা  

সোনালী চৌধুরী অভিনীত অপর্ণা চরিত্রটি বাংলা টেলিভিশনের জগতে না ভোলার মতো। এক কালো মেয়ের পরিবারে টিকে থাকার গল্প প্রবল জনপ্রিয় হয় দর্শকের কাছে। এছাড়া অভিনয় করেছিলেন ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়, রিমঝিম মিত্র, ব্রাত্য বসু, ফাল্গুনি চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ। ২০০৯ –এ শুরু হয়ে ধারাবাহিকটি শেষ হয়েছিল ২০১৪-তে। কালো মেয়ের সঙ্গী হতে প্রতিদিন দুপুর সাড়ে ১২ টায় বসা যেতে পারে টেলিভিশনের সামনে।  

আরও পড়ুন: পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রামায়ণ দেখছেন ‘রাম

গোয়েন্দা গিন্নি

এখনকার ‘শ্রীময়ী’ ইন্দ্রানী হালদারকে এই ধারাবাহিকে দেখা যেত গৃহবধূ হয়ে ঘর সামলাচ্ছেন আবার নানান রহস্য সমাধান করছেন। দারুণ জনপ্রিয় এই ধারাবাহিক টেকনিশিয়ানদের ওভার টাইমের টাকা না মেটানোর জটিলতায় বন্ধ হয়ে যায়। আজ থেকে আবার দেখার সুযোগ মিলবে সোম থেকে শনিবার, রাত রাত ৮টায়। ‘শ্রীময়ী’-র নতুন এপিসোড যারা মিস করছেন দেখতে পারেন গোয়েন্দা গিন্নির গোয়েন্দাগিরি।

 

বাচ্চাদের জন্য এই কমেডি ড্রামা আবার দেখার সুযোগ এল—ছবি: সংগৃহীত

ভুতু

ধারাবাহিকটি এত জনপ্রিয় হয়েছিল যে হিন্দিতেও তৈরি হয়েছিল এই ধারাবাহিক। ধারাবাহিকের প্রধান চরিত্র ভুতু মানে আর্শিয়া মুখোপাধ্যায় ডাক পেয়েছিলেন সেই সিরিয়ালে। কিন্তু ওভার টাইম পেমেন্টের জটিলতায় বাংলা সিরিয়ালটি বন্ধ হয়ে যায়। ভুতু এক ছোট্ট বন্ধু-ভুত। সে নানান মজার কান্ড করে। হাসিতে ফেটে পড়েন দর্শক। বাচ্চাদের জন্য এই কমেডি ড্রামা আবার দেখার সুযোগ এল। লক ডাউনে বিরক্ত বাচ্চারা আজ থেকে সময় কাটাতে পারবে ভুতুর সঙ্গে। দেখা যাবে প্রতিদিন বিকেল ৪টেয়।

আরও পড়ুন: ফিটনেসে আটকে পাখির চোখ

মিরাক্কেল

প্রবল জনপ্রিয় এই স্ট্যান্ড আপ কমেডি লক ডাউনের হাত ধরে আবার শুরু হল। উপস্থাপক মীর আফসার আলি মজার মুহূর্তগুলি নিয়ে উপস্থিত। পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, শ্রীলেখা মিত্র, রজতাভ দত্ত আবার বসছেন বিচারকের আসনে। প্রতিদিন রাত ১১টায় দেখা যাবে এই শো। এই শো শুরু হলে রাস্তা প্রায় শুনশান, লক ডাউনের মতোই আর প্রত্যেক বাড়িতে হো হো হাসির হুল্লোড়। লক ডাউনের সূত্রে রাস্তা তো শুনশান। বাড়িতে বন্দি হয়ে মুখ ভার করে বসে না থেকে সঙ্গী হওয়া যেতে পারে প্রবল কৌতুকের।     

এর সঙ্গে থাকছে ‘আমার দুর্গা’, প্রতিদিন দুপুর ১টা থেকে। ‘দীপ জ্বেলে যাই’, প্রতিদিন দুপুর ২টো থেকে।

স্টার জলসা

রাতের দিকে দেখানো হচ্ছে ফিল্ম। ‘এখানে আকাশ নীল’, ‘শ্রীময়ী’, ‘কে আপন কে পর’, ‘মোহর’, ‘কোড়াপাখি’ প্রভৃতি ধারাবাহিকের স্পেশাল এপিসোড সম্প্রচারিত হচ্ছে। সবগুলিই পুরনো এপিসোড। আর পুরনো ধারাবাহিক ফিরছে আবার।

মহাভারত

লক ডাউনের সূত্রে দূরদর্শন দেখাচ্ছে বি আর চোপড়ার ‘মহাভারত’। স্টার জলসাও ফিরিয়ে আনছে তাদের ‘মহাভারত’। তবে এই ‘মহাভারত’ ভগবান কৃষ্ণর দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা। অভিনয় করেছিলেন সৌরভ জৈন (কৃষ্ণ), পূজা শর্মা (দ্রৌপদী), সায়ন্তনী ঘোষ (সত্যবতী), শাহীর শেখ (অর্জুন) প্রমুখ। ৩০ মার্চ থেকে দেখা যাচ্ছে সপ্তাহে প্রতিদিন সোম থেকে শুক্র রাত ৯টায়। মাইথোলজির প্রতি আগ্রহ থাকলে বসে পড়া যায় এটি দেখার জন্য।  

বোঝে না সে বোঝে না

মধুমিতা সরকার, যশ অভিনীত র‍্যোমান্টিক কমেডি সেই সময় সবথেকে বেশি দেখা টেলিভিশন সিরিয়াল হিসেবে জনপ্রিয় হয়েছিল। পাখি আর অরণ্যর প্রেম কাহিনি দেখতে বিকেল সাড়ে পাঁচটা থেকে স্টার জলসা খুলে বসা যেতে পারে। 

এছাড়া দেখতে পারেন ‘সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে’, অভিনয়ে বিজয়লক্ষ্ণী চট্টোপাধ্যায়, সুখদেব। সন্ধ্যে ৬টা।  

আকাশ ৮

জননী

দূরদর্শনের ‘জননী'-র হাত ধরে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অভিনেতা, টেকনিশিয়ানরা স্হায়ী উপার্জনের পথ তৈরি করেছিল৷ অশোক সুরানা-র প্রযোজনায় আর বিষ্ণু পালচৌধুরীর পরিচালনায় বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে শুরু হয়েছিল মেগা সিরিয়াল কালচার। এর ১৭ বছর পর ঈশিতা সুরানার প্রযোজনায়, সুশান্ত বসুর পরিচালনায় আকাশ আট চ্যানেল পুনর্নির্মাণ করেছিল ধারাবাহিকটি। দুই ধারাবাহিকের শীর্ষ সঙ্গীতও এক, ‘জগতে যে সব সয়, সেই তো জননী'। সন্ধ্যে হলেই প্রত্যেকটি বাড়ি থেকে ভেসে আসতো সেই সুর। এমনকি কিছু কিছু বাংলা ফিল্মেও এই সান্ধ্য আবহ ব্যবহার করা হয়েছে। এই ধারাবাহিকটি আবার দেখার সুযোগ করে দিল করোনা ভাইরাস।  দুই ধারাবাহিকেই অভিনয় করেছিলেন শঙ্কর চক্রবর্তী। এছাড়া অনুরাধা রায়, কুশল চক্রবর্তী, কৌশিক সেন, রেশমি সেন, মৃণাল মুখোপাধ্যায় প্রমুখকে আবার দেখা যাবে সোম থেকে শনি রাত ৯.৩০ থেকে ১০.৩০।

সাহিত্যের সেরা সময়

বাংলা সেরা সাহিত্যের ওপর ভিত্তি করে আকাশ আট শুর করেছিল ধারাবাহিক। বাংলা সাহিত্যের সঙ্গী হতে আকাশ আটের সামনে বসা যেতে পারে সন্ধ্যে ৭ টায়।

আমার ঠিকানা তাই বৃদ্ধাশ্রম

‘ছ্য় মাসের মেগা’ থেকে ফিরছে এই সিরিজের দ্বিতীয় গল্প। বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের জীবন নির্ভর এই কাহিনিতে দর্শক খুঁজে পাবেন নস্টালজিয়া। লিলি চক্রবর্তী, মনোজ মিত্র, ছন্দা চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ অভিনীত এই কাহিনির শীর্ষ সঙ্গীতে ব্যবহার করা হয়েছিল নচিকেতা চক্রবর্তীর বিখ্যাত গানটি। সপ্তাহের সোম থেকে শনি রাত ৭.৩০ থেকে ৮.৩০ দেখা যেতে পারে এই ধারাবাহিক।

সন্ধ্যে ৬.৩০ থাকছে ‘ওঁম সাই রাম’। অভিনয়ে ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়।

 সান বাংলা

গত ২৭ মার্চ অব্দি চলতি ধারাবাহিকের নতুন এপিসোড সম্প্রচারিত হয়েছে। তারপর সব ধারাবাহিকের প্রথম এপিসোড থেকে শুরু হয়েছে সম্প্রচার। অপেক্ষাকৃত নতুন চ্যানেলটির হাতে সবই চলতি ধারাবাহিক। তাই এই সিদ্ধান্ত।

কনে বউ

গৌরব মণ্ডল ও নেহা আমনদীপ জুটির এই ধারাবাহিকে মেয়ে পাচার চক্রের গল্প আবার দেখা যেতে পারে প্রথম এপিসোড থেকে। রাত ৮.৩০ এ।

বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না

স্নেহা দাস, মোনালিসা পাল, শ্রীমা ভট্টাচার্য প্রমুখ অভিনীত সুপার হিট ফিল্মের টেলি ভার্শন এই ফ্যান্টাসি ধারাবাহিকটি দেখা যায় সন্ধ্যে ৭.৩০ থেকে।

এছাড়া আছে ‘জিয়নকাঠি’, ‘নন্দিনী’, ‘সিংহলগ্না’, ‘বালক গোপাল’, ‘সর্বমঙ্গলা’।  

কালারস বাংলা  

দুপুর ২টো ও রাত ৯টায় এবং রবিবার সারাদিন দেখা যাবে জনপ্রিয় কিছু ফিল্ম। সকাল ৯টা থেকে ১০টা ছোটদের জন্য আছে দুটো ধারাবাহিক ‘গাট্টু বাট্টু’ ও ‘মোটু পাতলু’। এছাড়া মাইথোলজিক্যাল ধারাবাহিক ফিরিয়ে আনছে চ্যানেলটি।   

মনসা

দেবী মনসার আত্ম প্রতিষ্ঠার কাহিনি। চন্দ্রানী সাহা অভিনীত এই লৌকিক দেবীর গল্প দেখতে বসা যেতে পারে টেলিভিশনের সামনে, আগামি পরশু (১ এপ্রিল) থেকে সোম থেকে শনি সকাল ১১টায়।  

মহাপ্রভু শ্রীচৈতন্য  

শ্রী চৈতন্যদেবের জীবনী ভিত্তিক ধারাবাহিকটি দেখার আগ্রহ বাঙালি দর্শকের হওয়াই স্বাভাবিক। পরিণত চৈতন্যদেবের ভূমিকায় শুভ রায় চৌধুরী অভিনীত এই ধারাবাহিকও থাকতে পারে তালিকায়। আগামি পরশু (১ এপ্রিল) থেকে, সপ্তাহের সোম থেকে শনি সকাল ১০টায় দেখা যাবে।

অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন