বাবা-মায়ের কাছে চিরজীবন ছোটটি থেকে যান প্রত্যেকে। হোক না তাঁর বিশ্বজোড়া খ্যাতি। হোন না তিনি প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। বাবা মানেই আশ্রয়। পিগি চপস –এর ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম নেই। তাঁর হাতে আঁকা ট্যাটুতেও তো লেখা রয়েছে, ‘বাবার ছোট্ট মেয়ে’।

শনিবার বাবা অশোক চোপড়ার জন্মদিন উপলক্ষে তাঁর ছবি-সহ ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন প্রিয়ঙ্কা।ক্যাপশনে তিনি  লিখেছেন, ‘প্রত্যেক বছর এই দিন আমি আর সিদ্ধার্থ (প্রিয়ঙ্কার ভাই) তোমায় সারপ্রাইজ দেওয়ার নানা ধরনের উপায় খুঁজতাম। কিন্তু প্রতিবারই চূড়ান্ত ব্যর্থ হতাম। তুমি সবকিছু কেমন করে জেনে ফেলতে। যেখানেই থাকো জেনে রেখোপ্রতিটি মুহূর্ত আমাদের সঙ্গেই রয়েছ তুমি। যা কিছু ভাল আমার সঙ্গে ঘটেছে তা তোমার আশীর্বাদেই। শুভ জন্মদিন বাবা। তোমায় ভালবাসি।’

আরও পড়ুন- অন্য ভাবে বাঁচার গল্প শোনাবে ‘ফেলুনাথের মার্কশিট’

 

বাবার জন্মদিনে প্রিয়ঙ্কার ওই মিষ্টি বার্তায় আপ্লুত নেটিজেনরাও। কমেন্ট সেকশনও ভরে উঠেছে মধুর বার্তায়। শুধু নেটিজেনরাই বা কেন! ওই পোস্টে কমেন্ট করেছেন অনুষ্কা শর্মা থেকে শুরু করে ভিডিয়ো জকি অনুষাও।

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

Every year on this day Sid and I would look for ways to surprise you... but we never managed to do so! You always knew everything... So I hope wherever you are, You know that you are with us everyday. In everything I do, I think about your encouragement... In every choice I make, I ask for your affirmation... In everything that happens to me, I am grateful for your blessings. Happy Birthday Dad. I wish you were here everyday! We love you. @siddharthchopra89 @madhumalati P.S. - the background song was one of dad’s favourites... one he always used to sing for mom ❤

A post shared by Priyanka Chopra Jonas (@priyankachopra) on

বাবার সঙ্গে প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার মধুর সম্পর্কের কথা বি-টাউন ছাড়িয়ে নেটিজেনদের কাছেও বেশ পরিচিত। দীর্ঘ দিন ক্যান্সারে ভুগে ২০১৩-য় মারা যান অশোক চোপড়া।

আরও পড়ুন- নাইজেল প্রথম দিন আমাকে ‘হাই’ পর্যন্ত বলেনি: মানালি

কিছুদিন আগেও এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকারে প্রিয়ঙ্কা বলেছিলেন, “এখনও বাবার মৃত্যুকে মেনে নিতে পারিনি পুরোপুরি। শুধু মনে হয় কাজের শেষে যখনই বাড়ি পৌঁছব বাবাকে দেখতে পাব।”