Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Priyanka Sarkar: পরের শটের প্রস্তুতি, আচমকা ধেয়ে এলেন বাইকআরোহী... ছিটকে পড়লেন প্রিয়াঙ্কা

আচমকাই প্রহরা ভেঙে নাকি সেখানে ঢুকে পড়েন এক মত্ত বাইকারোহী। সরাসরি ধাক্কা মারেন প্রিয়াঙ্কা-অর্জুনকে। দু’জনেই ছিটকে পড়েন রাস্তায়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ১৯:২২
আহত প্রিয়াঙ্কা সরকার

আহত প্রিয়াঙ্কা সরকার

হইচই প্ল্যাটফর্মের ‘মহাভারত মার্ডারস’ সিরিজের ঘাড়ে কি ‘অনিচ্ছাকৃত দুর্ঘটনা’র দায়?

অতিমারি দেশ ছেড়ে যায়নি। রাত কার্ফুও শিথিল নয় পশ্চিমবঙ্গে। খবর, তাকে অগ্রাহ্য করেই নাকি প্রিয়াঙ্কা সরকার, অর্জুন চক্রবর্তীর মতো মুখ্য অভিনেতাদের নিয়ে শুক্রবার শ্যুট চলছিল রাজারহাটের রাস্তায়। তখন রাত সাড়ে ১১টা। শ্যুট চলাকালীন ঘটে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। যার জেরে পায়ের হাড় ভেঙে গুরুতর আহত প্রিয়াঙ্কা। শনিবার তাঁর পায়ে অস্ত্রোপচার হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবে প্রশ্ন উঠেছে ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে, রাত কার্ফু না মেনে কী করে শ্যুট চলছিল? এই দুর্ঘটনার দায় নেবে কে, প্রশাসন না প্রযোজক সংস্থা?

তারও আগে প্রশ্ন, ঠিক কী ঘটেছিল শুক্রবার রাতে? টলিউডের খবর অনুযায়ী, একটি শট শেষ। পরের শটের প্রস্তুতি চলছিল। তারই অবসরে অভিনেতারা রাস্তাতেই দাঁড়িয়ে ছিলেন ছড়িয়ে ছিটিয়ে। শেষ রূপটান দিয়ে নিচ্ছিলেন। সংলাপও ঝালিয়ে নিচ্ছিলেন। আচমকাই প্রহরা ভেঙে নাকি সেখানে ঢুকে পড়েন এক মত্ত বাইকারোহী। সরাসরি ধাক্কা মারেন প্রিয়াঙ্কা-অর্জুনকে। দু’জনেই ছিটকে পড়েন রাস্তায়। স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক শুশ্রূষার পরে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় বাইপাসের প্রথম সারির একটি হাসপাতালে।

Advertisement

যা জানা গিয়েছে আদৌ কি তাই-ই ঘটেছে? কী বলছেন শ্যুটিংয়ে উপস্থিত ব্যক্তিরা?

দুর্ঘটনায় অস্পবিস্তর আহত অর্জুন। প্রাথমিক শুশ্রূষার পরে তিনি বাড়ি ফিরে এলেও আনন্দবাজার অনলাইনের ফোনে ধরেননি। সিরিজের পরিচালক সৌমিক হালদারের ফোন বন্ধ। পরিবর্তে মুখ খুলেছেন হইচই ওয়েব প্ল্যাটফর্মের কর্ণধার বিষ্ণু মোহতা। তাঁর কথায়, ‘‘অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। আমি শুনেছি তখন শ্যুটিং শেষ হয়ে গিয়েছিল। প্যাকআপ ঘোষণা হয়েছে। সবাই দ্রুত হাত চালিয়ে সব কিছু গুছিয়ে বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। তার মধ্যেই ঘটে যায় এত বড় অঘটন।’’ নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে কী করে এক মত্ত বাইক নিয়ে ঢুকে পড়তে পারেন, সেটা বিষ্ণুও বুঝতে পারছেন না!

এ দিকে হাসপাতাল সূত্রে খবর, পায়ের হাড় টুকরো টুকরো হয়ে গিয়েছে প্রিয়াঙ্কার। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে প্লেট বসিয়ে তা জোড়া হবে। সম্ভবত মাস চারেক তাঁকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে। শ্যুটিং তো এখন অসম্ভব আপাতত হাঁটাচলাও করতে পারবেন না তিনি। এই দুর্ঘটনা প্রিয়াঙ্কার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার ক্ষেত্রে বড় প্রশ্ন চিহ্ন তৈরি করে দিয়েছে। এর দায় কে নেবে?

বিষ্ণুর মতে, তাঁর প্রযোজনা সংস্থা কোনও দায়িত্বই এড়াবে না। তিনি ‘মহাভারত মার্ডারস’-এর দলের সঙ্গে কথা বলছেন। জানছেন, প্রকৃত ঘটনা কী? কী করেই বা এত বড় দুর্ঘটনা ঘটল? পাশাপাশি এও জানিয়েছেন, তিনি রবিবার কথা বলবেন প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে। ইতিমধ্যেই হাসপাতাল সূত্রে জেনেছেন, ভাল আছেন অভিনেত্রী। তাঁর সঙ্গে কথা বলার পরে হইচই প্ল্যাটফর্মের কর্ণধার ঠিক করবেন তাঁর আগামী পদক্ষেপ। বিষ্ণুর দাবি, ‘‘প্রিয়াঙ্কার বক্তব্য অবশ্যই শুনব। ওঁর চিকিৎসা-সহ প্রয়োজনীয় দায়িত্ব বহনের কথাও ভাবব কথাবার্তার পরে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement