Advertisement
১৮ জুলাই ২০২৪
Riddhi Sen

চিত্রনাট্য লেখার সময় বাবার কথা মাথায় রাখিনি: ঋদ্ধি সেন

শুধু কৌশিক সেনই নন, ‘কোল্ডফায়ার’-এ ঋদ্ধির সঙ্গে কাজ করেছেন তাঁর বান্ধবী সুরাঙ্গনা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বন্ধু ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়।

ঋদ্ধি সেন।

ঋদ্ধি সেন।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৪ জানুয়ারি ২০২১ ১৯:২৯
Share: Save:

অভিনেতা ঋদ্ধি সেনের আত্মপ্রকাশ ২০১০ সালে। ঠিক ১০ বছর পর পরিচালনাতেও হাতেখড়ি হচ্ছে তাঁর। ছবির নাম ‘কোল্ডফায়ার’। প্রথম ছবিতেই কাজ করেছেন বাবা কৌশিক সেনের সঙ্গে। রিয়েল এস্টেট জগতে জনপ্রিয় কে পি সরকারের ভূমিকায় দেখা যাবে তাঁকে। জিবি নামে এক সেলসম্যান তাঁর কাছে এমন এক যন্ত্র বিক্রি করতে আসে যা মানুষের শেষকৃত্যকে আরও সমৃদ্ধ করতে আবিষ্কৃত হয়েছে। জিবি-র ভূমিকায় দেখা যাবে আর জে সোমক ঘোষকে। নবারুণ ভট্টাচার্যের ছোট গল্প ‘কোল্ডফায়ার’ অবলম্বনে তৈরি এই ডিসটোপিয়ান ডার্ক কমেডি।

কিন্তু পরিচালনার জন্য একেবারে ভিন্ন স্বাদের গল্প কেন বেছে নিলেন ঋদ্ধি? প্রশ্ন ছুড়ে দিতেই উত্তর: “আমরা তো ভোগবাদী সমাজে বাস করি। সকলেই কিছু না কিছু বিক্রি করে চলেছি। কেউ বড় স্কেলে, কেউ ছোট স্কেলে। নবারুণবাবু প্রায় সব গল্পেই যে ভাবে শ্রেণি বিভাজনের কথা তুলে ধরেন তার মধ্যে একটা ডার্ক হিউমার থাকে। আমরা ছবিতে সেটা রাখার চেষ্টা করেছি।” ঋদ্ধির ছবির পটভূমি ২০২৯ সাল। তাই চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে গল্পে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।

প্রথম ছবিতেই বাবার সঙ্গে কাজ। নাহ, নার্ভাসনেস নয়। বরং সবটা অনেক সহজ হয়ে যায় ঋদ্ধির জন্য। তিনি বলেন, “অভিনয়ের দিকটা বাবা পুরোপুরি দেখায় আমি প্রোডাকশনের অন্য দিকগুলিতে মন দিতে পেরেছি। তবে আমার পরিচালনায় নাক গলায়নি বাবা। নিজের চরিত্রের ক্ষেত্রে কোনও কিছু মনে হলে সেটা করা যাবে কি না আমাকে জিজ্ঞাসা করতেন।” যদিও কৌশিকের কথা মাথায় রেখে চিত্রনাট্য লেখেননি তিনি। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তাঁর মনে হয়, কে পি সরকারের চরিত্রটি কৌশিকের চেয়ে ভাল আর কেউ ফোটাতে পারতেন না।

আরও পড়ুন: রাজস্থানে ছুটি কাটাচ্ছেন নুসরত, সঙ্গে কে?

শুধু কৌশিক সেনই নন, ‘কোল্ডফায়ার’-এ ঋদ্ধির সঙ্গে কাজ করেছেন তাঁর বান্ধবী সুরাঙ্গনা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বন্ধু ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়। ‘ওপেন টি বায়োস্কোপ’-এর মতো এ বার আর পর্দার সামনে নয়, বরং পিছনে জোট বেঁধেছেন তাঁরা। ছবির কস্টিউম ডিজাইনার হিসেবে থাকছেন সুরাঙ্গনা। সহ-পরিচালক ঋতব্রত। সব মিলিয়ে এক অন্য অভিজ্ঞতা তাঁদের। ভয় আর উচ্ছ্বাস যেন মিলেমিশে এক হয়ে গিয়েছে কাজ করতে গিয়ে। ঋদ্ধির কথায়, “এ রকম অভিজ্ঞতা এক বারই হয়। প্রথম বার একটা কাজ করতে গিয়ে ভয় থাকে, আবার আনন্দও হয়। পরে কাজ করলেও সেই অনুভূতি আর ফিরে পাওয়া যায় না।”

গোটা শ্যুটিংয়ের অভিজ্ঞতাই আসলে এক রকমের ‘লার্নিং প্রসেস’ ঋদ্ধির কাছে। ছবি দর্শকের ভাল লাগবে কি না, তা নিয়ে ভাবিত নন ঋদ্ধি। পরিচালক চান, ‘কোল্ডফায়ার’ মানুষের মধ্যে সিনেমা নিয়ে আলোচনার প্রবণতা বাড়িয়ে তুলবে। তিনি মনে করেন, সেটাই যে কোনও ছবি তৈরির মূল উদ্দেশ্য।

আগামী ১১ এবং ১৫ জানুয়ারি কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘কোল্ডফায়ার’ প্রদর্শিত হবে। ছবিটির প্রযোজনার দায়িত্বে ক্যালাইডোস্কোপ প্রোডাকশন।

আরও পড়ুন: ‘প্রেরণা’র খোঁজ পেলেন কসৌটির পুরনো ‘অনুরাগ’, বিয়ে করছেন একুশেই

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Koushik Sen Coldfire Cinema
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE