উত্তরপ্রদেশের পিলিভিট। সেখানকার জনজাতির মধ্যে অদ্ভুত এক প্রথা রয়েছে। অসুস্থ, মৃত্যুশয্যায় থাকা বয়স্করা স্বেচ্ছায় জঙ্গলে যান। বাঘের আক্রমণে অবধারিত মৃত্যু হয় তাঁদের। আর তার পর সেই মৃত্যুর ক্ষতিপূরণ বাবদ সরকার থেকে মোটা টাকা পান তাঁদের পরিবারের সদস্যরা। বয়স্করা ভাবেন, সারা জীবনে ছেলেমেয়েদের জন্য যা করতে পারিনি, তা এ ভাবে করি…।

২০১৬ নাগাদ এমন একটি খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। তা পড়েন পরিচালক রিঙ্গো। তখন থেকেই এ নিয়ে ছবি করার ভাবনা ছিল। অবশেষে সেই ছবি শুরু করতে চলেছেন তিনি। আন্তর্জাতিক দর্শকের কথা মাথায় রেখে এ ছবি তৈরি হবে হিন্দিতে। থাকবে ইংরেজি ভাষার ব্যবহারও। এর মাধ্যমেই হিন্দি ছবিতে ডেবিউ করতে চলেছেন রিঙ্গো।

‘‘আসলে খবরটা জানার পর থেকেই ছবি করব ভেবেছিলাম। কিন্তু সে সময় এ ধরনের ছবি তৈরি হত না। দর্শকও এই ধরনের ছবি দেখতে অভ্যস্ত ছিলেন না। নেটফ্লিক্স পাওয়ারফুল হয়ে যাওয়ার পর অনেক কিছু বদলেছে। যতটা ডিটেলে পারি, রিসার্চ করে দেখেছি যা খবর বেরিয়েছিল তার প্রায় ৯০ শতাংশ ঠিক। সেটাই যতটা সম্ভব তুলে আনাল চেষ্টা করব দু’ঘন্টার এই ছবিতে’’ শেয়ার করলেন রিঙ্গো।

দেখুন, বিনোদনের নানা কুইজ

যে সাংবাদিক এই খবর প্রথম ব্রেক করেছিলেন, তাঁর ভূমিকায় অভিনয় করবেন শাইনি আহুজা। সরপঞ্চ, অর্থাত্ গ্রামের সকলে যাঁর নেতৃত্বে থাকেন— সেই সরপঞ্চের ভূমিকায় দেখা যাবে আশিস বিদ্যার্থীকে। এ ছাড়া সুব্রত দত্ত রয়েছেন এক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। ‘‘শাইনি পুরনো বন্ধু। ওর সঙ্গে অনেকদিন ধরেই কাজের কথা হচ্ছিল। স্ক্রিপ্ট ওর ভাল লাগল। কাজটা করছি আমরা। এখনও অডিশন চলছে। বেশ কিছু চরিত্রে এখনও বাছাই হয়নি’’ বললেন পরিচালক। ২০১৫-এ মুক্তি পেয়েছিল শাইনি অভিনীত ‘ওয়েলকাম ব্যাক’। তার পর থেকে তাঁকে আর অনস্ক্রিন দেখা যায়নি। সেই অর্থে এই ছবি দিয়েই তাঁর কামব্যাক হতে পারে বলে মনে করছেন সিনে মহলের একটা বড় অংশ।

আরও পড়ুন, সিভিতে প্রথম বাংলা ছবি... কে এই অভিনেত্রী?

আগামী মে মাসের শেষ থেকে তিনটে ধাপে শুরু হবে শুটিং। জঙ্গলের বেশিরভাগ শুটিংই হবে বক্সা এলাকায়। সব কিছু ঠিক থাকলে চলতি বছরের ডিসেম্বর বা আগামী বছরের শুরুতে মুক্তি পাবে এই ছবি।  

(সিনেমার প্রথম ঝলক থেকে টাটকা ফিল্ম সমালোচনা - রুপোলি পর্দার বাছাই করা বাংলা খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদনের সব খবর বিভাগ।)