×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৬ জুন ২০২১ ই-পেপার

সাত ভাই চম্পা-র রাঘবেন্দ্র ও পারুলের প্রেম প্রকাশ্যে!

মৌসুমী বিলকিস
কলকাতা ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৬:০৮
একান্তে:  প্রমিতা চক্রবর্তী ও রুদ্রজিৎ মুখোপাধ্যায়

একান্তে: প্রমিতা চক্রবর্তী ও রুদ্রজিৎ মুখোপাধ্যায়

‘সাত ভাই চম্পা’ ধারাবাহিক বন্ধ হয়েছে বছরখানেক আগে। কিন্তু নায়ক রাঘবেন্দ্র আর নায়িকা পারুলের যোগাযোগ থেকেই গিয়েছে। সাধারণ যোগাযোগ নয়। একেবারে পরস্পরের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন তাঁরা। হ্যাঁ, এ বছরই ছিল তাঁদের প্রথম ভ্যালেন্টাইন’স ডে উদযাপন। ‘লেভেল সেভেন’ রেস্তরাঁয়উদযাপন করলেনও বেশ জমিয়ে। তার কিছু ছবি পোস্টও করলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। রুদ্রজিৎ মুখোপাধ্যায় ও প্রমিতা চক্রবর্তী এতদিন গোপন রেখেছিলেন নিজেদের সম্পর্ক। কেন?

প্রমিতা সলজ্জ হেসে বললেন, “কাজটা চলার সময়েই আমাদের সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। কিন্তু আমরা একটু সময় নিচ্ছিলাম। নিজেদের মধ্যে টিউনিং হওয়াটা দরকার ছিল।রিলেশনটা একটা স্ট্রং জায়গায় পৌঁছনোর পর সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছি।”

দু’জনেই নতুন কাজের জন্য অপেক্ষা করছেন। ‘সাত ভাই চম্পা’-র নায়িকা হিসেবে কাজ করার পর কিছু কাজের অফার পেয়েছেন প্রমিতা। কিন্তু পছন্দ না হওয়ায় ফিরিয়ে দিয়েছেন। আর রুদ্রজিৎ এই ধারাবাহিকের পর ‘বিজয়িনী’ ধারাবাহিকের নায়ক হিসেবে কিছুদিন কাজ করেছেন। সে ধারাবাহিক বন্ধ হলেও তিনি স্টার জলসা চ্যানেলের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ। ফলে চ্যানেল থেকে পরবর্তী কাজ কী হতে পারে তারই দিন গুনছেন তিনি। দু’জনে একসঙ্গে আবার কাজ করবেন?

Advertisement



দু’জনে পরস্পরের দিকে তাকিয়ে হাসছেন। শীত শেষ হতে না হতেই হানা দিচ্ছে বসন্তের বাতাস

আরও পড়ুন-টুইঙ্কলের ‘কুকীর্তি’ ফাঁস, রেগে গেলেন অক্ষয়

প্রমিতা বললেন, “করতে পারলে খুব খুশি হতাম। কিন্তু সেটা একদমই আমাদের হাতে নেই।”

সম্পর্ক নিয়ে দু’জনেই আশাবাদী। সম্পর্কের সামাজিকীকরণও হয়ে গিয়েছে। ধরা পড়ল রুদ্রজিতের কথায়, “আমি ওর বাড়ি গিয়েছি। ওর ফ্যামিলির সঙ্গে টাইম স্পেন্ড করেছি। ও আমার বাড়ি গিয়েছে। আমার ফ্যামিলির সঙ্গে টাইম কাটিয়েছে।”

আরও পড়ুন-সলমনের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক বর্তমানে মধুর নয়: বনি কপূর

বাড়িতে যখন সবাই জানে তাহলে কি বিয়ের কথা ভাবছেন তাঁরা? দু’জনে পরস্পরের দিকে তাকিয়ে হাসছেন। শীত শেষ হতে না হতেই হানা দিচ্ছে বসন্তের বাতাস। প্রমিতার গাল রাঙা হচ্ছে। রুদ্রজিৎ মিষ্টি হেসে উত্তর দিলেন, “এখনই নয়। কয়েক বছর যাক আগে।”

Advertisement