• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মাদক নিয়ে কথা হয়েছিল রিয়ার সঙ্গে, জেরায় স্বীকার রাকুলের!

rakul
এনসিবি দফতরে রাকুল।

মাদক নিয়ে কথা হয়েছিল রিয়ার সঙ্গে, তবে তিনি নিজে কোনওদিনও মাদক ব্যবহার করেননি... জেরায় নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোকে এমনটাই জানিয়েছেন রাকুল প্রীত সিংহ, বেশ কয়েকটি সূত্র বলছে এমনটাই। একই সঙ্গে জানা যাচ্ছে, আজ জেরায় এনসিবির সামনে মাদক যোগে আরও চার বলিস্টারের নাম প্রকাশ্যে এনেছেন তিনি।  

 শুক্রবার বেলা সাড়ে দশটা নাগাদ মাদক যোগে জিজ্ঞাসবাদের জন্য কড়া নিরাপত্তার মধ্যে এনসিবি দফতরে প্রবেশ করেন রাকুল। প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর বেলা ৩ টে নাগাদ এনসিবি দফতর থেকে বের হন তিনি। 

এ দিন রাকুল পৌঁছনোর কিছুক্ষণ পরে এনসিবি দফতরে পৌঁছন দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা প্রকাশও। প্রায় আট ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর সন্ধে ছ'টা নাগাদ এনসিবি'র দফতর থেকে বের হতে দেখা যায় তাঁকে। রাকুল এবং করিশ্মার পাশপাশি এ দিন কর্ণ জোহরের প্রযোজনা সংস্থা  'ধর্ম'র এগজিকিউটিভ প্রোডিউসার ক্ষিতিজ রবিকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠায় এনসিবি। ডাকা হয় কর্ণর সহকারী পরিচালক অনুভব চোপড়াকে। এই মুহূর্তে এনসিবি'র দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তাঁদের। প্রসঙ্গত, ইন্ডাস্ট্রিতে ক্ষিতিজ রবি কর্ণর 'ডান হাত' হিসেবে পরিচিত। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে, মাদক কাণ্ডে  এ বার কি তবে ডাক পড়তে পারে কর্ণেরও? কর্ণ যদিও এই মুহূর্তে গোয়ায় পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাচ্ছেন। 

বুধবার বলিউডের মাদকযোগের তদন্তে দীপিকা পাড়ুকোন ছাড়া শ্রদ্ধা কপূর, সারা আলি খান এবং রাকুল প্রীত সিংহকে ডেকে পাঠায় এনসিবি। দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মাকে তলব করা হয়েছিল গত সোমবার। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে এনসিবি’র কাছে থেকে বেশ কিছু দিন সময় চেয়ে নেন করিশ্মা। বৃহস্পতিবারই দীপিকা এবং রণবীরের সঙ্গে চার্টার্ড বিমানে গোয়া থেকে মুম্বই ফেরেন করিশ্মা। মা এবং ভাইয়ের সঙ্গে মুম্বইয়ে ফেরেন সারাও। 

এনসিবি সূত্রে খবর, শ্রদ্ধা এবং সারাকে জেরা করা হবে শনিবার। দীপিকাকে আজ, শুক্রবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজিরা দিতে বলা এনসিবি’র কাছে এক দিন সময় চেয়েছেন তিনি।

পাশপাশি, জিজ্ঞাসাবাদের সময় স্ত্রী দীপিকার পাশে থাকতে চেয়ে এ দিন এনসিবি-কে একটি লিখিত আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন রণবীর। দীপিকার প্যানিক অ্যাটাক হয়, অ্যাংজাইটিতে ভোগেন তিনি...এই কারণ দেখিয়েই জেরা চলাকালীন স্ত্রীর পাশে থাকার আবেদন রণবীর। যদিও এনসিবি-র দাবি, রণবীরের কাছ থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও লিখিত আবেদন মেলেনি। 

প্রশ্ন হল, ঠিক কীভাবে মাদক কাণ্ডে জড়িয়ে গেল রাকুলের নাম? এনসিবি সূত্রে খবর, রাকুল এবং সারার নাম প্রথম বার এনসিবি’র কাছে ‘ফাঁস’ করেন রিয়াই। সিমনের নামও প্রকাশ করেন তিনি। যদিও রিয়া তা স্বীকার করেননি। ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে খবর, এই রাকুল, সারা এবং রিয়াই কিন্তু একসময় খুব ভাল বন্ধু ছিলেন। বহু বার একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন ওঁরা। মাঝেমধ্যেই সুশান্তের লোনাভালার ফার্মহাউজে পার্টি থেকে শুরু করে একসঙ্গে ঘুরতে যাওয়া... চলত সব। বলিউডের একাংশ বলছে, ওই পার্টিই নাকি ছিল ‘ড্রাগের আখড়া’। কয়েকটি সূত্র বলছে, ইতিমধ্যেই রিয়ার সঙ্গে রাকুলের মাদক সংক্রান্ত বেশ কিছু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবি’র হাতে এসেছে।

আরও পড়ুন- মধ্যরাতে রণবীরের সঙ্গে মুম্বই ফিরলেন দীপিকা, জেরা শনিবার

অন্যদিকে সোমবার রাতে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবি’র হাতে আসে। চ্যাটটি পুরনো, ২০১৭ নাগাদ। সেই চ্যাটেই দেখা যায়, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিক বার কথা চালাচালি হয়েছে। কখনও ‘কে’-কে গাঁজা আছে কিনা জিজ্ঞাসা করছেন‘ডি’। আবার কখনও বা ‘কে’ তাঁকে (ডি’কে) গাঁজার হদিস দিচ্ছেন। বলিউডের একাংশের দাবি, এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা নিজেই। আর ‘কে’ হলেন করিশ্মা।

একটি সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, শুধু দীপিকা-সারা-শ্রদ্ধা বা রাকুলই নন, আরও চার বলি অভিনেতাও নাকি এনসিবি’র আতসকাচের তলায়। তাঁরা কারা? বলিউড অবশ্য প্রকাশ্যে তা নিয়ে আলোচনা করছে না

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন