Advertisement
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
child

Baby Food: ৫ খাবার: শিশুদের মস্তিষ্কের বিকাশে যা অপরিহার্য

অনেকেই সন্তানের মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য বাজারি পুষ্টিবর্ধকও খাওয়ান। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশে সঠিক খাদ্যাভ্যাসই যথেষ্ট।

কোন খাবার সহায়ক হতে পারে সন্তানের বুদ্ধিমত্তার বিকাশে

কোন খাবার সহায়ক হতে পারে সন্তানের বুদ্ধিমত্তার বিকাশে ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ মার্চ ২০২২ ০৭:১৩
Share: Save:

সন্তানের বেড়ে ওঠা নিয়ে অভিভাবকদের চিন্তার শেষ নেই। বিশেষত সন্তানের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও বুদ্ধিমত্তার বিকাশের ব্যাপারে অধিকাংশ মা-বাবাই সদা সচেতন। অনেকেই আবার সন্তানের মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য হরেক রকমের বাজারি পুষ্টিবর্ধকও খাওয়ান। তবে বিশেষজ্ঞরা কিন্তু বলছেন, শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য সঠিক খাদ্যাভ্যাসই যথেষ্ট। দেখে নিন কোন কোন খাবার সাহায্য করতে পারে সন্তানের বুদ্ধিমত্তার বিকাশে।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি। ছবি: সংগৃহীত

১। ডিম: সুষম খাদ্য হিসাবে ডিমের জুড়ি মেলা ভার। বিশেষজ্ঞদের মতে, ডিমে থাকে প্রচুর পরিমাণ কোলিন। কোলিন মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে ও স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

২। ওট: ওটে থাকে ভিটামিন ই, ভিটামিন বি, পটাশিয়াম ও জিঙ্কের মতো উপাদান। এই উপদানগুলি মস্তিষ্কের বিকাশে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই রোজ সকালে ওট খাওয়া শিশুদের পক্ষে বেশ স্বাস্থ্যকর।

৩। রঙিন সব্জি: টমেটো, রাঙা আলু, কুমড়ো কিংবা গাজরের মতো সব্জিতে অন্যান্য জরুরি উপাদানের সঙ্গেই থাকে ক্যারোটিনয়েড জাতীয় উপাদান। এই উপাদানটি একাধিক স্নায়ু ভাল রাখতে সহায়তা করে। বিশেষত চোখের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে ক্যারোটিনয়েড অত্যন্ত উপযোগী। পাশাপাশি এই ধরনের সবজিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকে, যা মস্তিষ্কের কোষের বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য রক্ষায় সহায়তা করে। মস্তিষ্কের বিকাশে দেশীয় ব্রাহ্মী শাক তো কার্যত কিংবদন্তি।

৪। দুধ: দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যও শিশুদের মস্তিষ্কের কোষের গঠন ও কার্যকারিতা বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দুধে থাকে ভিটামিন ডি। এই ভিটামিন স্নায়ুতন্ত্রের স্বাস্থ্যরক্ষা করতে ও স্নায়ুকোষের আয়ু বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।

৫। স্যামন মাছ: আগে ভারতীয় বাজারে স্যামন মাছের অপ্রতুলতা থাকলেও বর্তমানে এই মাছ পাওয়া খুব একটা কঠিন নয়। স্যামন মাছে প্রচুর পরিমাণে ‘ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যসিড’ থাকে। পাশাপাশি এই মাছে থাকে ‘ডিএইচএ’ ও ‘ইপিএ’ নামক এমন দু'টি উপাদান, যা মস্তিষ্কের বৃদ্ধি ও কার্যকারিতা রক্ষার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ফলে শিশুদের এই মাছ খাওয়ানো গেলে, তা তাদের মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যরক্ষায় হয়ে উঠতে পারে ‘সুপারফুড’।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE