Advertisement
১৬ জুন ২০২৪
Ghee with Milk

৫ কারণ: দুধের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে খাবেন কেন?

দুধের মধ্যে রয়েছে ক্যালশিয়াম, প্রোটিন, আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়ামের মতো খনিজ। প্রায় একই রকম উপাদান রয়েছে ঘিয়ের মধ্যেও।

Symbolic Image.

দুধের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য যথেষ্ট উপকারী। ছবি: সংগৃহীত।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৮:১৭
Share: Save:

ছোট থেকেই শুনে এসেছেন দুগ্ধজাত খাবার একসঙ্গে খেলে পেটের সমস্যা বেড়ে যায়। কস্মিনকালেও দুধের সঙ্গে দই বা পনির খেতে দেখেননি কাউকে। কিংবা পাউরুটিতে একসঙ্গে ঘি আর মাখন দিয়েও খান না কেউ। তবে পুষ্টিবিদেরা বলছেন, দুধের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য যথেষ্ট উপকারী। দুধের মধ্যে রয়েছে ক্যালশিয়াম, প্রোটিন, আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়ামের মতো খনিজ। পাশাপাশি, ভিটামিন এ, ডি, বি-৬, ই, কে-র মতো উপাদান রয়েছে দুধে। অন্য দিকে, দুধ থেকেই তৈরি করা হয় ঘি। যার মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, ডি, ই এবং কে। স্বাস্থ্যকর ফ্যাটের অন্যতম একটি বিকল্প হল ঘি। এই দুই উপাদান একসঙ্গে মিশলে শরীরে কোন কোন উপকারে লাগতে পারে?

১) প্রতিরোধ শক্তি বাড়িয়ে তোলে

দুধের মধ্যে সামান্য ঘি মিশিয়ে খেলে অন্ত্রের মধ্যে থাকা টক্সিন দূর করা যায় সহজেই। অন্ত্রের মধ্যে থাকা ভাল ব্যাক্টেরিয়াগুলি পেটের স্বাস্থ্য এবং পরোক্ষ ভাবে হলেও প্রতিরোধ শক্তি বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

২) ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে

ঘিয়ের মধ্যে রয়েছে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট। যা বার বার খিদে পাওয়ার প্রবণতাকে আটকে দিতে পারে। শরীরচর্চা করেন যাঁরা, তাঁদের জন্যও এই পানীয় অত্যন্ত উপাদেয়। অতিরিক্ত ক্যালোরি না গিয়েও শরীরকে পর্যাপ্ত পুষ্টি পৌঁছে দিতে সাহায্য করে ঘি মেশানে দুধ।

৩) ত্বক এবং চুলের স্বাস্থ্য

দূষণ, অযত্ন, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন এবং মানসিক চাপের কারণে ত্বক এবং চুলের স্বাস্থ্য খারাপ হতে শুরু করেছে। তেল, শ্যাম্পু দিয়ে সাময়িক সমস্যা মিটলেও তার ফল সুদূরপ্রসারী নয়। মাথার ত্বক, মুখের চাম়ড়ার আর্দ্রতা ধরে রাখতে দারুণ ভাবে কাজ করে দুধ, ঘিয়ের টোটকা।

৪) হাড় মজবুত করতে

বয়স বাড়লে হাড়ের ক্ষয় হওয়া স্বাভাবিক। তা প্রতিরোধ করতে গেলে কম বয়স থেকেই নিয়মিত যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। হাড়ের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে ক্যালশিয়াম এবং ভিটামিন ডি— দুই পাওয়া যায় দুধ এবং ঘি মেশানো পানীয় থেকে। দেহের প্রতিটি অস্থিসন্ধিতে থাকা থকথকে জেলজাতীয় উপাদানের জোগান দেয় ঘি।

৫) হজমশক্তি বাড়িয়ে তুলতে

অনেকেই বলেন, ঘি খেলে অম্বলের সমস্যা বেড়ে যায়। তবে পুষ্টিবিদেরা বলছেন, ঘিয়ের মধ্যে থাকা ফ্যাটি অ্যাসিড পরিপাকতন্ত্রের ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে। পাশাপাশি, অন্ত্রের স্বাস্থ্য ভাল থাকলে পেটের অনেক সমস্যাই নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Ghee with Milk Ghee Health Benefits of Ghee milk
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE