Advertisement
২০ জুন ২০২৪
Piyali Basak

পিয়ালির হেলিকপ্টার উদ্ধার আটকে দিনভর

বৃহস্পতিবার সকালে ৭৮০০ মিটার উচ্চতায় পড়ে থাকা পিয়ালির সন্ধানে ক্যাম্প ৩ থেকে তিন জন শেরপা গিয়েছিলেন। বিকেলের দিকে তাঁকে কোনও ক্রমে ক্যাম্প ৩-এ নামিয়ে আনেন।

An image of Piyali Basak

চন্দননগরের পর্বতারোহী পিয়ালি বসাক। ছবি: সংগৃহীত।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ২০ মে ২০২৩ ০৮:০১
Share: Save:

পঞ্চম উচ্চতম মাকালুর (৮৪৮১ মিটার) শীর্ষ ছুঁয়ে নামার পথে রাতভর একা পড়ে থাকার পরে বৃহস্পতিবারই শেরপা দল উদ্ধার করেছিল চন্দননগরের পর্বতারোহী পিয়ালি বসাককে। শুক্রবার তাঁকে নিয়ে উদ্ধারকারী দল ক্যাম্প ২-এর নীচে নেমে এলেও হেলিকপ্টারে তুলে নিয়ে আসা সম্ভব হয়নি। আয়োজক সংস্থা জানিয়েছে, শনিবার আবহাওয়া ভাল থাকলে ফের পিয়ালির জন্য হেলিকপ্টার পাঠানো হবে।

বৃহস্পতিবার সকালে ৭৮০০ মিটার উচ্চতায় পড়ে থাকা পিয়ালির সন্ধানে ক্যাম্প ৩ থেকে তিন জন শেরপা গিয়েছিলেন। বিকেলের দিকে তাঁকে কোনও ক্রমে ক্যাম্প ৩-এ নামিয়ে আনেন। ভাবা হয়েছিল, শুক্রবার ক্যাম্প ২-এ নেমে এসে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে পিয়ালিকে উদ্ধার করা হবে। তবে এ দিন বিকেলে আয়োজক সংস্থা পাইয়োনিয়ার অ্যাডভেঞ্চারের তরফে নিবেশ কার্কি বলেন, ‘‘পিয়ালির জন্য দু’বার হেলিকপ্টার গেলেও আবহাওয়া খারাপ থাকার কারণে নামতে পারেনি। তবে শেরপারা ক্যাম্প ১-এরও নীচে, ক্র্যাম্পন পয়েন্টে (৫৯০০ মিটার প্রায়) পিয়ালিকে নামিয়ে এনেছেন। শুক্রবার সকালেই হেলিকপ্টারে উদ্ধারের চেষ্টা হবে।’’ নিবেশ আরও জানিয়েছেন, শারীরিক ভাবে পিয়ালি সুস্থ থাকলেও খুব সম্ভবত ফ্রস্টবাইটের শিকার হয়েছেন বঙ্গকন্যা। তবে তা কতটা গুরুতর এবং তা শরীরের কোথায়, সে তথ্য জানাতে পারেননি।

এ দিন পিয়ালির নীচে নামার খবরে স্বস্তিতে পরিবার। ছোট বোন তমালি বসাক বলেন, ‘‘এজেন্সি থেকে বলেছে, দিদি ভাল আছে, ভয়ের কোনও কারণ নেই।’’ তবে পর্বতারোহী দেবাশিস বিশ্বাস বলছেন, ‘‘ফ্রস্টবাইট থাকলে যত তাড়াতাড়ি নীচে নামা যাবে, ততই আঙুল বাঁচানোর সম্ভাবনা বাড়ে। আজই পিয়ালিকে হেলিকপ্টারে কাঠমান্ডু আনা গেলে আরও আগে চিকিৎসা শুরু হতে পারত। তবে ক্র্যাম্পন পয়েন্ট অনেকটাই নীচে, তাই সেখানে প্রয়োজনে গরম জলে হাত-পা ডুবিয়ে রাখতে পারবে।’’

অন্য দিকে, গত বুধবার এভারেস্টের পরে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ পড়শি শৃঙ্গ লোৎসের (৮৫১৬ মিটার) শিখরে পৌঁছলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর মেজর চিরাগ চট্টোপাধ্যায়। এভারেস্ট শীর্ষ ছোঁয়ার মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই লোৎসে সামিট করলেন তিনি। নৈহাটির বাসিন্দা চিরাগ এই প্রথম কোনও আট হাজারি শৃঙ্গে অভিযান করছেন। আয়োজক সংস্থা জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শেরপাকে সঙ্গে নিয়ে এভারেস্টের ক্যাম্প ৪ থেকে লোৎসের দিকে রওনা দিয়েছিলেন তিনি। শুক্রবারসামিট করে ক্যাম্প ২-এ পৌঁছে গিয়েছেন তিনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE