×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৬ মে ২০২১ ই-পেপার

মোদীর আবেদন সত্ত্বেও কোভিড টিকা নিতে চান না হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী, কেন?

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০১ মার্চ ২০২১ ১২:২৫
হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ।

হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ।
—নিজস্ব চিত্র।

দেশ জুড়ে টিকাকরণের দ্বিতীয় পর্বে প্রতিষেধক নেওয়ার পর ষাঠোর্ধ্ব ও কো-মর্বিডদের টিকা নিতে আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে তাঁর নিজের দলেরই নেতা তথা হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ তা নিতে ইচ্ছুক নন। ভিজ জানিয়েছেন, তিনি করোনার টিকা নেবেন না। ডিসেম্বরেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ভিজ। তা সত্ত্বেও কেন এই সিদ্ধান্ত? টুইটারে তা খোলসা করেছেন ভিজ।

সোমবার সকালে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস (এমস)-এ গিয়ে করোনার টিকা নিয়েছেন মোদী। ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাক্সিন’-এর প্রথম ডোজ নেওয়ার পর টুইটারে তা জানান নিজেই। সেই সঙ্গে ওই টুইটেই চলতি পর্বে টিকার জন্য মনোনীতদের তা নিতে আর্জি জানান।

তবে মোদীর টুইটের পর পরই টুইট করেছেন ভিজ। হিন্দিতে লেখা ওই টুইটে তিনি বলেছেন, ‘আজ আবার করোনার টিকা দেওয়া শুরু হল। এ নিয়ে কারও কোনও দ্বিধা থাকা উচিত নয়। তবে আমি টিকা নিতে পারব না। কোভিডের সংক্রমণের পর আমার অ্যান্টিব়ডির ‘কাউন্ট’ ৩০০, যেটা অনেকটাই। হয়তো ট্রায়াল চলাকালীন যে টিকা নিয়েছিলাম, তার জন্যই এমনটা হয়েছে। এই মুহূর্তে আমার টিকার প্রয়োজন নেই’।

Advertisement

৫ ডিসেম্বর করোনা ধরা পড়েছিল ভিজের। গুরুগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীনও ছিলেন তিনি। তার পর ডিসেম্বরের শেষ দিকে করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরে আসেন। তার আগে নভেম্বরে কোভিড টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে অংশ নিয়েছিলেন। টিকার প্রথম ডোজ নেওয়া সত্ত্বেও ভিজের করোনা ধরা পড়ায়, তা নিয়ে বিতর্কও তৈরি হয়েছিল। সে সময় ভিজের দাবি ছিল, টিকার দ্বিতীয় ডোজ না নেওয়ার জন্যই হয়তো তিনি সংক্রমিত হয়েছেন। তবে এ বার তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, ‘‘টিকা নেব না।’’

Advertisement