Advertisement
২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Manish Sisodia

Manish Sisodia: দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী সিসৌদিয়ার বিরুদ্ধে লুক আউট সার্কুলার জারি করতে চলেছে সিবিআই

দিল্লির আবগারি নীতিতে অনিয়মের অভিযোগে তদন্তকারী সংস্থার এফআইআরে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসৌদিয়া-সহ ১৪ জনের নাম ছিল।

বিপাকে সিসৌদিয়া।

বিপাকে সিসৌদিয়া। ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২১ অগস্ট ২০২২ ০৯:০৮
Share: Save:

আরও বিপাকে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসৌদিয়া। কেজরীবাল সরকারের মন্ত্রীর বিরুদ্ধে রবিবার লুক আউট সার্কুলার জারি করতে চলেছে সিবিআই। দিল্লি আবগারি নীতিতে দুর্নীতির অভিযোগে সিসৌদিয়া ছাড়াও আরও ১৩ জনের বিরুদ্ধে এই সার্কুলার জারি করা হচ্ছে বলে সিবিআই সূত্রে খবর।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার এফআইআরে সিসৌদিয়া-সহ ওই ১৪ জনের নাম ছিল। সার্কুলার জারি হলে সিসৌদিয়া-সহ ১৪ জন দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। লুক আউট সার্কুলার জারি নিয়ে টুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিশানা করে সিসৌদিয়া লিখেছেন, ‘‘আপনার সমস্ত অভিযান ব্যর্থ হয়েছে। কিছুই পাননি...। এ বার আপনি লুক আউট সার্কুলার জারি করলেন যেন, মণীশ সিসৌদিয়াকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না! কী ধরনের চমক এটা মোদীজি? দিল্লিতে স্বাধীন ভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছি। আপনি কি আমায় দেখতে পাচ্ছেন না? দয়া করে বলুন, কোথায় যেতে হবে?’’

প্রসঙ্গত, রবিবার সকালে সংবাদ সংস্থা সূত্রে প্রথমে জানা যায় যে, সিসৌদিয়ার বিরুদ্ধে লুক আউট সার্কুলার জারি করেছে সিবিআই। কিন্তু পরে তদন্তকারী সংস্থার তরফে জানানো হয় যে, লুক আউট সার্কুলার জারির প্রক্রিয়া চলছে। তবে এখনও জারি করা হয়নি।

শুক্রবার, জন্মাষ্টমীর সকালে সিসৌদিয়ার বাড়ি-সহ আরও বেশ কয়েকটি এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালায় সিবিআই। প্রায় ১৪ ঘণ্টা ধরে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

তল্লাশির শেষে সিসৌদিয়া বলেছিলেন, ‘‘সকালে সিবিআই আমার বাড়িতে এসেছিল। ওরা তল্লাশি চালিয়েছে, আমার কম্পিউটার এবং ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে। এ ছাড়া কিছু ফাইল নিয়ে গিয়েছেন তদন্তকারী আধিকারিকেরা। আমি এবং আমার পরিবার তদন্তকারী আধিকারিকদের পূর্ণ সহযোগিতা করেছি। আগামী দিনেও তা করা হবে। আমি কোনও দুর্নীতি করিনি। তাই আমি ভয় পাই না।’’ একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার অপব্যবহার করা হচ্ছে বলে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন সিসৌদিয়া।

তাঁর ‘ডেপুটি’র বাড়িতে সিবিআই অভিযানের বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করে টুইট করেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির (আপ) প্রধান অরবিন্দ কেজরিবাল। টুইটের সঙ্গে আমেরিকার সংবাদপত্র ‘দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস’ (এনওয়াইটি)-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনও পোস্ট করেন তিনি। ওই প্রতিবেদনে দিল্লির শিক্ষাব্যবস্থায় ভূয়সী প্রশংসা করা হয়েছে। উপমুখ্যমন্ত্রী সিসৌদিয়ার হাতেই রয়েছে দিল্লি সরকারের শিক্ষা দফতরের ভার। টুইটারে কেজরীবাল লিখেছিলেন, ‘যে দিন দিল্লির শিক্ষা মডেলের প্রশংসা করা হয়েছে, আমেরিকার সবচেয়ে বড় সংবাদপত্র এনওয়াইটি-র প্রথম পাতায় মণীশ সিসৌদিয়ার ছবি ছাপা হয়েছে, সেই দিনই মণীশের বাড়িতে সিবিআই পাঠিয়ে দেওয়া হল। সিবিআইকে স্বাগত। সার্বিক সহযোগিতা করা হবে...।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE