Advertisement
২০ মে ২০২৪

যাত্রী নেই, বিদেশি ছেড়ে দেশি পর্যটকে ঝুঁকছে মহারাজা এক্সপ্রেস

যাত্রী নেই। তাই কৌলীন্য কমিয়ে বিলাসবহুল মহারাজা এক্সপ্রেস আর শুধু বিদেশি পর্যটকের উপরে নির্ভর করতে চাইছে না। দেশি পর্যটকেরাও এ বার ওই ট্রেনে চাপতে পারবেন। তাই সরাসরি না-হলেও ঘুরপথে ভাড়া কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। পণ্য বিক্রির সাম্প্রতিক কৌশলের সঙ্গে তাল মিলিয়ে একটি কিনলে আর একটি প্রায় ফ্রি দেওয়ার রাস্তা নিয়েছে রেল।

আসুন: পথ চেয়ে মহারাজা এক্সপ্রেস।— ফাইল চিত্র।

আসুন: পথ চেয়ে মহারাজা এক্সপ্রেস।— ফাইল চিত্র।

অমিতাভ বন্দ্যোপাধ্যায়
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৬ মে ২০১৭ ০৯:৫০
Share: Save:

যাত্রী নেই। তাই কৌলীন্য কমিয়ে বিলাসবহুল মহারাজা এক্সপ্রেস আর শুধু বিদেশি পর্যটকের উপরে নির্ভর করতে চাইছে না। দেশি পর্যটকেরাও এ বার ওই ট্রেনে চাপতে পারবেন। তাই সরাসরি না-হলেও ঘুরপথে ভাড়া কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। পণ্য বিক্রির সাম্প্রতিক কৌশলের সঙ্গে তাল মিলিয়ে একটি কিনলে আর একটি প্রায় ফ্রি দেওয়ার রাস্তা নিয়েছে রেল। অর্থাৎ একটি টিকিট কিনলে আর একটি টিকিট পাওয়া যাবে বেশ কিছুটা কম দামে। এবং শীঘ্রই ওই ট্রেন যাবে উত্তরবঙ্গ আর অসমেও।

ইন্ডিয়ান রেলওয়ে কেটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম কর্পোরেশন বা আইআরসিটিসি-র সুসজ্জিত মহারাজা এক্সপ্রেস পাঁচ বছর ধরে বিশ্বের অন্যতম বিলাসবহুল ট্রেনের স্বীকৃতি পেয়ে আসছে। এ-হেন একটি ট্রেন চালানোর খরচ অনেক। তাতে প্যাকেজ ট্যুরে বিদেশি পর্যটকদের ভাড়াও গুনতে হয় বিস্তর। এত দিন তাতে মূলত বিদেশিদেরই ভ্রমণের ব্যবস্থা করা হতো। ভাড়াও নেওয়া হয় বিদেশি মুদ্রায়। কিন্তু পর্যটক কমে যাওয়ায় ‘গৌরবের ট্রেন’ মহারাজা এক্সপ্রেসের আয়েও টান পড়েছে। পর্যটক টানতে তাই ঘুরপথে ভাড়ায় কিছু ছাড়ের বন্দোবস্ত হচ্ছে।

ট্রেনটিকে এত দিন চালানো হতো রাজস্থান, মুম্বই ও বারাণসী রুটে। দেশের পর্যটকদের জন্য এ বার আরও দু’টি প্যাকেজ চালু করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আইআরসিটিসি সূত্রের খবর, প্রথম রুটে আছে গোয়া, হাম্পি, এর্নাকুলাম, তিরুঅনন্তপুরম, মহীশূর। অন্য রুটে আছে গোয়া, হাম্পি, মহাবলীপুরম, মহীশূর। নতুন এই প্যাকেজ ট্যুর দু’টি নিয়মিত চালু হবে সেপ্টেম্বরে। খুব শীঘ্রই পূর্বের দিকেও এই ট্রেনে প্যাকেজ ট্যুর ঘোষণা করার পরিকল্পনা করেছে আইআরসিটিসি। ওই সংস্থার এক কর্তা জানান, উত্তরবঙ্গ ও অসমের কথা মাথায় রেখে আরও একটি প্যাকেজ ট্যুরের বন্দোবস্ত হচ্ছে।

২৩ কামরার ওই বিলাসবহুল ট্রেনে যাত্রী ধরে ৮৮ জন। টিকিট বুক করা যাবে অনলাইনে। নতুন দু’টি প্যাকেজ ট্যুরে প্রতিদিন পর্যটক-পিছু ভাড়া ধরা হয়েছে ৫০০ মার্কিন ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় ৩২ হাজার ২৫০ টাকা।

দেশি পর্যটক টানতে মহারাজার ভাড়ায় কিছুটা সমঝোতার সিদ্ধান্ত হলেও এই ধরনের অন্য একটি ট্রেনে অবশ্য চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত সব টিকিট বিক্রি হয়ে গিয়েছে। ট্রেনটি হল ‘প্যালেস অন হুইলস’। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে, একটি মহার্ঘ ট্রেনে যখন ঠাঁই নেই ঠাঁই নেই অবস্থা, অন্যটি খাবি খাচ্ছে কেন? আইআরসিটিসি-র কর্তারা বলছেন, ‘প্যালেস অন হুইলস’ রাজস্থান সরকারের নিজস্ব ট্রেন। সেটি চালাতে দেওয়ার জন্য রেল শুধু ভাড়া পায়। তা ছাড়া ওই ট্রেনের বিলাসিতার মান তিনতারা গোত্রের। আর মহারাজা এক্সপ্রেস ভারতীয় রেলের এবং তার বিলাসিতার মান সাততারা গোত্রের। তাই মহারাজার সঙ্গে প্যালেস অন হুইলসের কোনও তুলনা চলে না।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Maharajas' Express Country Tourist
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE