×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

টিকা নিতে ইতিমধ্যেই নথিভুক্ত হয়েছেন ২৯ লক্ষ মানুষ, দাবি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০২ মার্চ ২০২১ ০৮:৫৭
টিকা নিচ্ছেন এক প্রবীণ নাগরিক।

টিকা নিচ্ছেন এক প্রবীণ নাগরিক।
ছবি—পিটিআই।

দেশের নাগরিকদের দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত টিকা সংগ্রহ করেছে সরকার। তাই করোনাভাইরাস মোকাবিলায় টিকাকরণ কর্মসূচিতে কোনও রকম ঘাটতি হবে না। সোমবার এ কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। তিনি আরও বলেছেন পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে বড় টিকাকরণ কর্মসূচি চালাচ্ছে ভারত। দিনে দিনে এই কর্মসূচি আরও ব্যাপক হচ্ছে।

টিকা তৈরিতে বিজ্ঞানীদের প্রচেষ্টাকে মুক্তকণ্ঠে প্রশংসা করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে যে দ্বিধা প্রাথমিক ভাবে তৈরি হয়েছিল তা কাটাতে বিজ্ঞানীদের প্রয়াসের বিষয়টিও বলেছেন তিনি। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদাহরণ টেনে এনেছেন তিনি। বলেছেন, কোভ্যাক্সিন নিয়ে প্রাথমিক ভাবে যে প্রশ্ন উঠেছিল তা দূর হয়ে গিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নিজে নিয়েছেন এই টিকা। তাই জনগণের উচিত দ্বিধাহীন ভাবে এই টিকা নেওয়া।

সোমবার একটি টুইট করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন মঙ্গলবার টিকা নিতে পারেন তিনি। পাশাপাশি ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি এবং কো-মর্বিডিটি থাকা ৪৫ বছরের বেশি ব্যক্তিদের শীঘ্র টিকা নেওয়ার আবেদন করেছেন তিনি। সঙ্গে সাধারণ মানুষকে আশ্বস্ত করতে বলেছেন, ‘‘টিকা নিয়ে কোনও রকম সন্দেহ নেই। এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। টিকা নেওয়ার জন্য মৃত্যুর কোনও ঘটনা এখনও সামনে আসেনি। টিকা নেওয়ার কিছু দিনের মধ্যে যাঁদের মৃত্যু হয়েছে, তাঁদের মৃত্যুর সঙ্গে টিকার কোনও সম্পর্ক নেই বলেও জানা গিয়েছে।’’

Advertisement

১৬ জানুয়ারি দেশ জুড়ে শুরু হয়েছিল করোনা টিকাকরণ কর্মসূ্চি। প্রথম পর্যায়ে মূলত স্বাস্থ্যকর্মী এবং প্রথম সারির করোনা যোদ্ধারা টিকা পেয়েছেন। সোমবার থেকে শুরু হয়েছে দ্বিতীয় দফার টিকাকরণ কর্মসূচি। এই দফার মূলত দেশের প্রবীণ নাগরিক এবং কো-মর্বিটিডি থাকা মধ্যবয়সিদের টিকা দেওয়া হবে। তা শুরু হওয়ার পর সোমবার রাত সাড়ে ৮টা অবধি আরোগ্য সেতু বা অনলাইনের মাধ্যমে ২৯ লক্ষেরও বেশি লোক টিকা নেওয়ার জন্য নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেছেন। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘‘আপনাজের সঙ্গে কথা বলার আগে আমি তথ্যটা দেখছিলাম। সাড়ে ৮টা অবধি ২৯ লক্ষেরও বেশি নাম নথিভুক্ত করেছেন। এবং আপনারা দেখেছেন এক জন নাম নথিভুক্ত করলে সঙ্গে পরিবারের চারজনকে যুক্ত করতে পারছেন। তাই একজন গড়ে দু’জনের নাম নথিভুক্ত করেছেন ধরলে প্রায় ৬০ লক্ষ ইতিমধ্যেই টিকা নিতে নাম লিখিয়েছেন।’’

Advertisement