Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
COVID-19

Covid-19: বিমানযাত্রায় মাস্ক ফের বাধ্যতামূলক, অমান্য করলে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়ার নির্দেশ

সম্প্রতি দিল্লি হাই কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে, বিমানযাত্রীরা কোভিড বিধি মানতে অস্বীকার করলে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেন কর্তৃপক্ষ।

বিশেষ পরিস্থিতি ছাড়া মুখ থেকে নামানো যাবে না মাস্ক।

বিশেষ পরিস্থিতি ছাড়া মুখ থেকে নামানো যাবে না মাস্ক। ফাইল চিত্র ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৮ জুন ২০২২ ১৭:৪৯
Share: Save:

বিমানযাত্রীদের জন্য আবার বাধ্যতামূলক করা হল মাস্ক। যে সব যাত্রী বিমানে মাস্ক ছাড়া উঠবেন তাঁদের বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হতে পারে বলেও নির্দেশ দিল অসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (ডিজিসিএ)। শুধু বিমানের ভিতরে নয়, বিমানবন্দরে প্রবেশ করার সময়েও মুখে মাস্ক পরে প্রবেশ করতে হবে যাত্রীদের। ডিজিসিএ-এর তরফ থেকে এ-ও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যে সব যাত্রী মাস্ক পরে আসবেন না, তাঁদের বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে মাস্ক সরবরাহ করা হবে। এর পরও মাস্ক পরতে অস্বীকার করা হলে নেওয়া হবে কড়া ব্যবস্থা। শুধু মাত্র কোনও বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি হলে তবেই মাস্ক খুলতে পারবেন যাত্রীরা।

Advertisement

দেশ জুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আবারও উদ্বেগজনক ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর সেই আবহেই এই সিদ্ধান্ত নিল ডিজিসিএ।

ডিজিসিএ বুধবার জানিয়েছে, যে সব যাত্রী এই নির্দেশ মানবেন না তাঁদের বিমান ওড়ার আগেই বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হবে। বিমানবন্দরে সুরক্ষার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ বাহিনীর সদস্যরা লক্ষ রাখবেন কোনও যাত্রী মাস্ক ছাড়া বিমানবন্দরে প্রবেশ করছেন কি না ।

সম্প্রতি দিল্লি হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছে, যে সব বিমানযাত্রী কোভিড বিধি মেনে চলতে অস্বীকার করবেন তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেন কর্তৃপক্ষ। এর পরই এই নির্দেশ জারি করল ডিজিসিএ।

Advertisement

দিল্লি হাই কোর্ট জানিয়েছিল, কোভিড বিধি মানতে অস্বীকার করা ব্যক্তিদের বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি, তাঁকে ‘নো-ফ্লাই’ (অনির্দিষ্টকালের জন্য বিমানে যাতায়াত করার উপর নিষেধাজ্ঞা) তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করতে পারেন বা নিরাপত্তারক্ষীদের হাতেও তুলে দিতে পারেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, বুধবার ভারতে অনেকটাই বাড়ল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা। গত কয়েক দিনের মধ্যে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেল প্রায় ৪১ শতাংশ। দেশে এক দিনে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৫,২৩৩ জন। শেষ ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে মৃত্যু হয়েছে সাত জনের। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, দিন কয়েক আগেও দৈনিক করোনা সংক্রমণের হার ছিল ০.৯১ শতাংশ। বর্তমানে তা পৌঁছেছে ১.৬২ শতাংশে। যে কয়েকটি রাজ্যের দৈনিক পরিসংখ্যান ভয় ধরাচ্ছে তাদের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে মহারাষ্ট্র।

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তেফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.