ঠিক ছিল বেলা দেড়টা নাগাদ আল নুর মসজিদে যাবেন তাঁরা। কিন্তু, সাংবাদিক সম্মেলনটা শেষ করতে একটু দেরি হয়ে গিয়েছিল। তাই বেলা ১টা ৪০ নাগাদ সাংবাদিক সম্মেলন শেষেই মসজিদে যাওয়ার উদ্দেশে বাসে উঠেছিল গোটা বাংলাদেশের ক্রিকেট দল

বাস তখন মসজিদের সামনে পৌঁছেও গিয়েছিল। সবাই বাস থেকে নেমে মসজিদের দিকে যাচ্ছিলেন। সেখানেই সাপ্তাহিক নমাজে অংশ নেওয়ার কথা ছিল তাঁদের। ঠিক তখনই নজরে আসে ভয়ঙ্কর দৃশ্য। মধ্য বয়সের এক মহিলা রক্তাক্ত অবস্থায় মসজিদের ভিতর থেকে টলোমলো পায়ে বেরিয়ে এসে হুমড়ি খেয়ে পড়ে গেলেন। ক্রিকেটাররা তখনও বুঝতে পারেননি আসলে কী ঘটছে ভিতরে।

ঠিক তখনই এল সতর্কতা। এক জন চিৎকার করে বলে ওঠেন মসজিদের ভিতর গুলি চলছে। তিনি জানান, তাঁর গাড়িতেও লেগেছে গুলি। বেগতিক বুঝে বাসে উঠে পড়েন তাঁরা। ততক্ষণে পুলিশ গোটা রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে বেশ কিছুক্ষণ বাসেই বসে থাকতে হয় তামিম, মুশফিকুরদের। এ ভাবে বেশ কিছুক্ষণ থাকার পর নিরাপদে মাঠে ফিরে আসেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: সেনার পোশাকে নিউজিল্যান্ডের মসজিদে বন্দুকবাজের হামলা, হত ৯, রক্ষা বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের

 

 

শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা পৌনে দুটো। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকবাজের হামলা। হামলায় ভাগ্যক্রমে বাঁচলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। এই মুহূর্তে নিউজিল্যান্ড সফরে রয়েছেন তাঁরা। আগামিকাল থেকে টেস্ট শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, হামলার ঘটনার পর তড়িঘড়ি সফর বাতিলের কথা ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। শীঘ্রই নিরাপদে জাতীয় ক্রিকেটারদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: গুলিতে লুটিয়ে পড়ছে মানুষ, হামলার লাইভ স্ট্রিমিং করল বন্দুকবাজ!

দলের তরফে জানানো হয়েছে, এ দিন সকালে লিটন দাস ও নইম হাসান ছাড়া দলের সবাই ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলে ওভাল মাঠে অনুশীলনে করেন। সেখান থেকেই আল নুর মসজিদে যাচ্ছিলেন সাপ্তাহিক নমাজে যোগ দিতে। এ দিনের হামলার পরই টুইট করেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার তামিম ইকবাল। এই ঘটনাকে ‘ভয়ের অভিজ্ঞতা’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। তিনি আরও লেখেন, ‘‘পুরো দলই বন্দুকবাজের হামলা থেকে রক্ষা পেয়েছে। সবাই আমাদের জন্য প্রার্থনা করবেন।’’ সামনে থেকে এমন ঘটনা দেখে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি দলের অন্যতম সদস্য মুশফিকুর রহিম। মাঠে ফিরেও আতঙ্ক কাটছিল না তাঁর। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মুখপাত্র জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, “দলের বেশির ভাগ সদস্য মসজিদে যাওয়ার জন্য বাসে ছিলেন। মসজিদে ঢোকার মুহূর্তে হামলার ঘটনাটি ঘটে। ঈশ্বরের কৃপায় সবাই ভাল আছেন।”

 

 

আরও পড়ুন: মসজিদে হামলা! বাতিল হল বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফর

বাংলাদেশে একদিনের অধিনায়ক মাশরাফি মোর্তাজা বলেন, ‘‘খবরটি শোনার পর থেকে প্রচন্ড শকড। বোঝাতে পারবো না, টিমের সবার মনের অবস্থা এখন কেমন।’’ মাশরাফি আরও বলেন, আমি কল্পনা করতে পারছি না এমন নৃশংসতার ঘটনার কথা। তাঁর প্রত্যাশা, ‘‘সবাই মিলে এমন একটি পৃথিবী গড়ে তুলতে হবে-যেখানে প্রতিটি মানুষ থাকবেন নিরাপদে।’’

এ দিনের ঘটনা ২০০৯ সালে পাকিস্তানের লাহৌরে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের উপর হামলার কথাকে আরও একবার মনে করিয়ে দিল। সে দিন ক্রিকেটারদের টিম বাসে জঙ্গি হামলার ঘটনায় আহত হয়েছিলেন বেশ কয়েক জন শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারও। তার পর বহু দিন পাকিস্তানে বহু দেশ সফর বন্ধ হয়ে দিয়েছিল।

(আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, আন্তর্জাতিক চুক্তি, আন্তর্জাতিক বিরোধ, আন্তর্জাতিক সংঘর্ষ- সব গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক খবর জানতে চোখ রাখুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)