ভারতের তীব্র আপত্তি অগ্রাহ্য করেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরের (পিওকে) মধ্যে দিয়ে লাহৌর-কাশগর বাস পরিষেবা চালু করে দিল পাকিস্তান। সোমবার গভীর রাতে লাহৌরের গুলবার্গ থেকে চিনের জিনজিয়াংয়ের কাশগরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে প্রথম বাস। পিওকে-র গিলগিট, বাল্টিস্তান হয়ে গন্তব্যে পৌঁছতে সময় লাগবে সময় লাগবে ৩০ ঘণ্টা। বাস চালুর পর কোনও প্রতিক্রিয়া না জানালেও আগেই এ নিয়ে তীব্র আপত্তি করেছিল নয়াদিল্লি। অন্যদিকে ইসলামাদ ও বেজিংয়ের তরফে জানানো হয়েছে, চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের অঙ্গ হিসেবেই এই বাস পরিষেবা চালু করা হল।

চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর নিয়ে আপত্তি ছিলই। আন্তর্জাতিক স্তরে তার প্রতিবাদও হয়েছে। কিন্তু বেজিং বা ইসলামাবাদ কেউ সেসব কানেই তোলেনি। তারপর বাস চালুর খবর আসার পর তা নিয়েও নয়াদিল্লি কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তীব্র প্রতিবাদ করেছিল। পয়লা নভেম্বরও ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেন, ‘‘পিওকে-র মধ্যে দিয়ে যে কোনও বাস পরিষেবা চালুর অর্থ ভারতের অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করা। এটা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না।’’

কিন্তু নয়াদিল্লির এই সব প্রতিবাদ উপেক্ষা করেই বাস সার্ভিস চালু করে দিল দুই প্রতিবেশী দেশ। জানা গিয়েছে, পাকিস্তান ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট কর্পোরেশনের সঙ্গে একটি বেসরকারি পরিবহণ সংস্থার চুক্তি অনুযায়ী সপ্তাহে চার দিন এই বাস চলবে। এক দিকের ভাড়া ১৩০০০ পাকিস্তানি রুপি। রিটার্ন টিকিট একসঙ্গে কিনলে লাগবে ২৩০০০। সঙ্গে নিতে হবে পাসপোর্ট-ভিসা। ২০ কেজির বেশি লাগেজ নেওয়া যাবে না। ৩ নভেম্বর থেকে বাস চালুর কথা থাকলেও নিরাপত্তার কারণে তা দু’দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: খাল কেটে ড্রাগন! আন্দামান সাগরে দ্রুত পৌঁছতে নতুন পথের পরিকল্পনায় চিন

আরও পড়ুন: বরফ চাপা আপেল, মাথা চাপড়াচ্ছেন কাশ্মীরের চাষিরা

সারা বিশ্বের সেরা সব খবর বাংলায় পড়তে চোখ রাখতে পড়ুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।