অবশেষে ক্ষমা চেয়ে নিল ইলেকট্রনিক্স জগতের অন্যতম বড় নাম স্যামসাং। স্যামসাংয়ের কারখানায় কাজ করতে গিয়ে যে শ্রমিকেরা ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন স্যামসাংয়ের সহ-সভাপতি কিম কি-নাম।   স্যামসাংয়ের কারখানায় কর্মরত অবস্থায় দুর্ঘটনায় মৃত শ্রমিকদের পরিবারের কাছেও ক্ষমা চেয়েছেন তিনি ।

মাস দুয়েক আগে দক্ষিন কোরিয়ার সুয়নে স্যামসাংয়ের কারখানায় কার্বন-ডাই-অক্সাইড গ্যাস নির্গত হয়ে মৃত্যু হয় দুই শ্রমিকের।  এরপরেই শুক্রবার স্যামসাংয়ের সহ-সভাপতি কিম কি-নাম দক্ষিন কোরিয়ার সিওলে স্বীকার করে নেন যে শ্রমিকদের জন্য যথার্থ সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে তাঁরা ব্যর্থ হয়েছেন। সংস্থার হয়ে কাজ করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পরা  শ্রমিক ও তাঁদের পরিবারের কাছে  ক্ষমা চেয়ে নেন তিনি।

 স্যামসাংয়ের সেমিকন্ডাক্টর তৈরির কারখানায় কাজ করতে গিয়ে ক্যানসারের মতন মারণ ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেক শ্রমিক। কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠনের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, স্যামসাংয়ের কারখানায় কাজ করতে গিয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ২৪০ জন কর্মী। এর মধ্যে ৮০ জন কর্মী মারণ ব্যাধিতে আক্রান্ত, যাদের মধ্যে বেশিরভাগই আবার কমবয়সী মহিলা।

আরও পড়ুন: গরুর শিং থাকবে কি? রবিবার গণভোট সুইৎজ়ারল্যান্ডে

স্যামসাংয়ের কারখানায় কর্মরত অবস্থায় শ্রমিকেরা প্রায় ১৬ ধরণের ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও মহিলারা গর্ভপাতের মতন সমস্যারও সম্মুখীন হচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: ঘর গোছাতে গিয়ে উদ্ধার পাঁচ মাস পুরনো লটারির টিকিট, নিমেষে কোটিপতি!

এর আগে ২০০৭ সালে স্যামসাংয়ের কারখানায় কর্মরত অবস্থায় এক শ্রমিকের মৃত্যু নিয়েও যথেষ্ট হইচই হয়েছিল। এখন স্যামসাং কর্তার ক্ষমা প্রার্থনার পর কর্মী সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কি পদক্ষেপ সংস্থার পক্ষ থেকে নেওয়া হয়, তাই নিয়ে উৎসুক সকলেই।