Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২
Bizarre

হিরে-জহরত আর নয়, পুরুষের বীর্য ও নারীর স্তন্য দিয়ে গয়না তৈরি করেন অলঙ্কারশিল্পী

কানাডার এক অলঙ্কারশিল্পী দাবি করলেন, তিনি গয়না বানাতে ব্যবহার করেন মানুষের বীর্য! শুধু তা-ই নয়, স্তন্য ব্যবহার করেও নাকি তিনি তৈরি করেন গয়না। জানালেন, কী ধরনের বিড়ম্বনা তৈরি হয় গয়না বানাতে গিয়ে।

নতুন ধরনের গয়না!

নতুন ধরনের গয়না! ছবি- সংগৃহীত

সংবাদ সংস্থা
মন্ট্রিয়ল শেষ আপডেট: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫:২৭
Share: Save:

সাজ-পোশাকে মৌলিকত্ব পছন্দ করেন অনেকেই। বিশেষ করে গয়নার ক্ষেত্রে বহু সময়েই দেখা যায় যে, গয়না যত মৌলিক তার কদর তত বেশি। এ বার কানাডার এক অলঙ্কারশিল্পী দাবি করলেন, তিনি গয়না বানাতে ব্যবহার করেন মানুষের বীর্য! শুধু তা-ই নয়, স্তন্য ব্যবহার করেও নাকি তিনি তৈরি করেন গয়না।

Advertisement

কানাডার ওই শিল্পীর নাম, আমান্ডা বুথ। আমান্ডা জানিয়েছেন, ২০২১ সালে টিকটকে এক নেটাগরিক তাঁকে জিজ্ঞাসা করেন, তিনি কখনও পুরুষদের বীর্য থেকে গয়না বানানোর কথা ভেবেছেন কি না। তার পরই তিনি ও তাঁর স্বামী এই গয়না তৈরি শুরু করেন তিনি। সংস্থার নাম রেখেছেন, ‘জে-জাই জুয়েলারি।’ শিল্পীর দাবি, প্রথমে মজার ছলে শুরু করলেও তাঁদের এমন গয়না বানানোর কথা প্রকাশ পেতেই শয়ে শয়ে বরাত আসতে শুরু করে। তার পর পেশাগত ভাবে এই গয়না তৈরির সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। পরে শুধু বীর্য নয়, মাতৃদুগ্ধ থেকে একই ধরনের গয়না বানান।

নিজের টিকটক অ্যাকাউন্ট থেকে আমান্ডা জানিয়েছেন, দেহ তরল থেকে তৈরি কানের দুল কিংবা নেকলেস যতই ভাল লাগুক, এমন গয়না তৈরির পদ্ধতি মোটেই সহজ নয়। বিশেষ করে বীর্য থেকে গয়না তৈরির জন্য যখন কোনও ব্যক্তি নমুনা পাঠান, তখন তা থেকে তীব্র গন্ধ পাওয়া যায় বলে দাবি বুথের। সেই নমুনা প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে শুকিয়ে গুঁড়ো করা হয়। তার পর সেই গুঁড়ো ব্যবহার করেই বানানো হয় হাতের বালা, কানের দুল ও গলার হার।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.