Advertisement
০৩ মার্চ ২০২৪
Skincare

ত্বকের বয়স ধরে রাখতে চান? খাওয়ার পাশাপাশি মুখেও মাখতে পারেন পাকা আম

গরমকাল আসছে ভেবেই ভয় পাচ্ছেন? গরমকালে মুখের নানা সমস্যা দূর করতে পারে ফলের রাজা।

Symbolic image of skincare

ত্বকের দাগ-ছোপ দূর করতে আমের কোনও বিকল্প নেই।    ছবি- শাটারস্টক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ মার্চ ২০২৩ ২১:০২
Share: Save:

গরম পড়তে না পড়তেই বাজার ভরে উঠবে পাকা আমে। এই ফল খেতে যেমন মধুর, এর গন্ধ তেমনই মিষ্টি। আম ভালবাসেন না এমন মানুষ কমই আছে। বিভিন্ন ভিটামিন এবং খনিজের গুণে ভরপুর আম শরীরে জন্য তো উপকারী বটেই। রূপ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট, বিটা-ক্যারোটিন ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্যও সমান গুরুত্বপূর্ণ। তাই গরমকালে আম খাওয়ার পাশাপাশি আমের ক্বাথ দিয়ে ত্বকের যত্ন নিতেই পারেন।

পাকা আম ত্বকের কোন কোন সমস্যা মেটাতে পারে?

১) ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে

আমে রয়েছে ভিটামিন এ এবং সি। স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য এই দু’টি যৌগ ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে যাঁদের ত্বক শুষ্ক, তাঁরা ত্বকের মসৃণতা বজায় রাখতে মুখে আমের ক্বাথ মাখতে পারেন।

২) ব্রণ কমায়

ত্বকে ব্রণ সৃষ্টিকারী ব্যাক্টেরিয়ার প্রকোপ কমাতে পারে পাকা আম। শুধু তা-ই নয়, ব্রণ থেকে হওয়া সংক্রমণও কমাতে পারে এই ফল।

Image of mango

অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টে ভরপুর আম ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখে। ছবি- শাটারস্টক

৩) ত্বকে জেল্লা ধরে রাখে

মুখের হারিয়ে যাওয়া জেল্লা ফেরাতে অনেক কিছুই ব্যবহার করেছেন, কিন্তু লাভ বিশেষ হয়নি। দোকান থেকে কেনা প্রসাধনী ছেড়ে ভরসা রাখুন আমে। ভিটামিন সি এবং এ-তে ভরপুর এই ফল ত্বকের জেল্লা ধরে রাখতে সাহায্য করে। ত্বকে দাগ-ছোপ দূর করে।

৪) তারুণ্য বজায় রাখে

সারা দিন ধরে ল্যাপটপ আর মোবাইলে মুখে গুঁজে থাকতে থাকতে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়েছে? অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টে ভরপুর আম ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখে। ফলে খুব সহজে মুখে বলিরেখা পড়তে পারে না।

৫) চোখের তলার ফোলা ভাব কমায়

ভিটামিন কে-তে ভরপুর আম চোখের তলার ফোলা ভাব, কালি দূর রতে পারে সহজেই। খুব ভাল হয় যদি আমের ক্বাথ ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করতে পারেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE