Advertisement
২৯ মে ২০২৪
Viral Wedding

টাকা-পয়সা, সোনা-রুপো নয়, বরযাত্রীর হাতে হেলমেট তুলে দিলেন মেয়ের বাবা! কেন এমন উপহার?

ছত্তিশগড়ের কোবরা জেলার মুদাপারের বাসিন্দা সেদ যাদব তাঁর মেয়ের বিয়েতে অতিথিদের হাতে তুলে দিয়েছেন হেলমেট। ফুল নয়, সোনা-রুপো নয়, কেন হঠাৎ হেলমেট উপহার দিতে গেলেন সেদ?

Chhattisgarh man gifts helmets to guests as a return gift for daughter\\\'s wedding.

অতিথির হাতে হেলমেট ধরালেন মেয়ের বাবা। —প্রতীকী ছবি।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:৩২
Share: Save:

বিয়ের অনুষ্ঠানকে পথ নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনতা প্রচার মঞ্চ হিসাবে কাজে লাগিয়ে চমক দিলেন ছত্তিশগড়ের সেদ যাদব। ছত্তিশগড়ের কোবরা জেলার মুদাপারের বাসিন্দা সেদ তাঁর মেয়ের বিয়েতে অতিথিদের হাতে তুলে দিয়েছেন হেলমেট।

সেদ যাদবের মেয়ে নীলিমা এক জন ক্রীড়া শিক্ষক। সারানগর-বিলাইগড় জেলার লঙ্কাহুদা গ্রামের খামান যাদবের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন তিনি। মেয়ে নীলিমার বিয়েতে যে সব অতিথি মোটরবাইকে করে এসেছিলেন, তাঁদের প্রত্যেকের হাতে একটি করে হেলমেট তুলে দেন সেদ। কেবল কনেপক্ষ নয়, বরযাত্রীদের হাতেও তুলে দেওয়া হয়েছে হেলমেট। ফুল নয়, সোনা-রুপো নয়, কেন হঠাৎ হেলমেট উপহার দিতে গেলেন সেদ?

সাংবাদিকদের সেদ বলেন, ‘‘আমি মনে করেছি, পথ সুরক্ষা নিয়ে সচেতনতা তৈরি করার জন্য আমার মেয়ের বিয়ে একটি ভাল উপলক্ষ হতেই পারে। সব অতিথিকে আমি বলেছি আমাদের জীবন ভীষণ মূল্যবান। বেশির ভাগ বাইক দুর্ঘটনা মদ্যপান করে গাড়ি চালানোর জন্যই হয়, তাই সব অতিথিদের কাছে মদ্যপান করে বাইক না চালানোর জন্য অনুরোধ করেছি।’’

সেদের পরিবারের সদস্যেরাও তাঁর এই অভিনব ভাবনাকে সমর্থন করেছেন। সেদ বলেছেন, ‘‘আমার বাড়ির লোকেরাও আমাকে সাহায্য করেছে। ১০ থেকে ১২ জন বাড়ির সদস্যেরা বিয়েতে হেলমেট পরে নাচানাচি করেছে। আমি আমার মতো সচেতনতা তৈরি করার চেষ্টা করেছি, তাঁরা করেছে তাঁদের মতো। বিয়ের দিন আমি মোট ৬০টি হেলমেট দিয়েছি অতিথিদের। তবে কেবল হেলমেট নয়, সঙ্গে ছিল মিষ্টিও।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Wedding Viral Helmet Gift
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE