• পায়েল বাঁকা, পুষ্টিবিদ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

খাদ্যের পুষ্টিগুণ শোষণের অক্ষমতা কী ভাবে আপনার সন্তানের শরীরকে প্রভাবিত করে?

kid
প্রত্যেক মায়েদের একটাই অভিযোগ যে তার সন্তান ভাল ভাবে খাচ্ছে না এবং ওজন বাড়ছে না। ছবি: ফার্স্ট মমস্ ক্লাব।

কখনও আপনার মনে হয় না যে, আপনার সন্তানের যত্নে কোনও না কোনওভাবে একটুখানি ত্রুটি রয়েই যাচ্ছে! যেমন ধরুন, আপনার সন্তানের ওজন অন্য বাচ্চাদের তুলনায় কম কিংবা তার ঠিকমতো বিকাশ হচ্ছে না। একজন মা হিসেবে বাচ্চার বেড়ে ওটার সময়ে এই বিষয়গুলি অন্যতম চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যদি বহুদিন ধরে আপনার বাচ্চার সামগ্রিক বিকাশ সঠিকভাবে হচ্ছে না বলে মনে হয়, সেক্ষেত্রে আপনাকে দেখতে হবে, আপনার বাচ্চা খাদ্য থেকে সঠিক পুষ্টিগুণ শোষণ বা গ্রহণ করতে পারছে তো!

খাদ্য থেকে পুষ্টিগুণ শোষণের অক্ষমতার ফলে শরীরের পাচন অঙ্গগুলি যখন ঠিকমতো খাদ্যকে ভাঙ্গতে পারে না এবং সেই খাদ্যগুলি শরীরের বিভিন্ন অংশে পৌঁছতে পারে না তখন বিভিন্ন সমস্যা দেখা যায়। গ্লুটেন এবং দুগ্ধজাতীয় খাদ্য বা ডেয়ারি প্রোডাক্ট খাওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা কিংবা আন্ত্রিক সমস্যার কারণে যখন আমাদের পাচনতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন এই ধরনের সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যাগুলির ফলে পাচনরস নির্গমন বন্ধ হয়ে যায় এবং হজম হয় না। শোষণ ক্ষমতার অভাবের ফলে শরীর একাধিক পুষ্টি পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রহণ করতে পারে না। বলা বাহুল্য, এই ক্ষেত্রে শরীর সর্বাধিক কম শোষণ করে লিপিড তথা ফ্যাট-কে। একই সঙ্গে প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেটস, ভিটামিন, মিনারেলস এবং ইলেক্ট্রোলাইটসের মতো প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুলিও অত্যন্ত কম মাত্রায় গ্রহণ করে শরীর।

খাদ্য থেকে পুষ্টিগুণ শোষণ ক্ষমতার অভাবের ফলাফল

আমাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজন পুষ্টি সমৃদ্ধ সুষম ডায়েটের। শুধুমাত্র সুস্থ ও সবল থাকার জন্যই পুষ্টির প্রয়োজন হয় না, বাচ্চার বেড়ে ওঠা এবং সামগ্রিক বিকাশের জন্যও প্রয়োজন হয় পুষ্টির। যদি কোনও শিশুর খাদ্য থেকে সঠিক পুষ্টিগুণ শোষণের ক্ষমতা কমে যায়, তবে তার শরীরে পুষ্টির ঘাটতি দেখা যায়। এমনকী পরবর্তী সময়ে গিয়ে ওই শিশুটি যে যে  সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। যেগুলি হল -

  • অত্যন্ত ধীরগতিতে শিশুর বিকাশ
  • ধীরগতিতে শিশুদের ওজন বৃদ্ধি, যা চোখে না পড়ার মতোই পুষ্টিজনিত অভাবের কারণে শিশুদের শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা কমে যায়। বেড়ে যায় সংক্রমণের সম্ভাবনা।
  • হাড় ভঙ্গুর হয়ে পড়ে এবং তা সেরে উঠতে সময় লাগে
  • বিভিন্ন পুষ্টির অভাবের কারণে যা যা ঘটতে পারে -
  1. আয়রণের ঘাটতিতে অ্যানিমিয়া
  2. নন-অ্যানিমিক আয়রণের অভাব
  3. ভিটামিন বি ১২ এর অভাব ভিটামিন কে - এর অভাবে রক্তপাত বন্ধ না হওয়া
  4. প্রোটিন ও ক্যালোরির অভাবে শরীর ফুলে ওঠা
  5. রিকেট, অস্টিওম্যালেসিয়া কিংবা অস্টিওপ্রোরোসিস-এর মতো রোগের সম্ভাবনা

পুষ্টিজনিত অভাবে কারণে শরীরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যার নেপথ্যে রয়েছে পুষ্টিগুণ শোষণ ক্ষমতা অভাব। কিন্তু বাচ্চার দেহে এই অভাব রুখতে আপনি বেশ কিছু পদক্ষেপ করতে পারেন।

  • নিউট্রিশনাল সাপ্লিমেন্টের সাহায্য নিন যাতে কোনও শিশু পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টি গ্রহণ করতে পারে। যে পুষ্টি সাধারণ খাদ্যের থেকে শরীর শোষণ করতে পারছে না, সেই পুষ্টিগুণও শরীরে প্রবেশ করবে এই সাপ্লিমেন্টগুলির সাহায্যে।
  • বাচ্চাকে পুষ্টি সমৃদ্ধ খাদ্য দিন, যাতে তার শরীরে পর্যাপ্ত পুষ্টি গ্রহণের জন্য প্রচুর পরিমানে খেতে না হয়।
  • প্রয়োজনে এমন খাদ্য প্রদান করুন যা তার সহজেই হজম হয়ে যায়।
  • এমন খাদ্যকে শিশুর খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিন যা গ্লুটেনের সমস্যাকে বাড়িয়ে তুলতে পারে।
  • ডাক্তার দ্বারা প্রদত্ত নির্দেশাবলি অনুসরণ করুন।

খাদ্য থেকে সঠিক পুষ্টিগুণ শোষণ ক্ষমতার অভাবের মতো সমস্যা এখন বেশ চোখে পড়ে। তবে চিন্তার কোনও কারণ নেই। কেন না বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই সমস্যার সমাধান সম্ভব। তবে আপনার সন্তানের বৃদ্ধির প্রাথমিক বছরগুলিতে একটু সাবধানে থাকুন এবং আগামীর যাত্রা উপভোগ করুন।

 

ডিসক্লেইমার

এই নিবন্ধে প্রকাশিত মতামত সম্পূর্ণভাবে লেখকের নিজস্ব মতামত এবং শিক্ষামূলক স্বার্থে প্রকাশিত। শরীর ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ে উপদেশের জন্য ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন