• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সেলুনে মাসাজ করাতে গিয়ে ঘাড় ফাটান? সাবধান, মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে

salon
এমন মাসাজেই ধেয়ে আসছে বিপদ। অলঙ্করণ: তিয়াসা দাস।

Advertisement

পাড়ার সেলুন হোক বা ঝাঁ চকচকে আধুনিক যন্ত্রপাতি ঠাসা ইউনিসেক্স স্যাঁলো, চুল কাটার পর বা দাড়ি-গোঁফ ছাঁটা শেষ হলে ঘাড়-মাথা মাসাজ না করিয়ে সিট ছাড়তে চান না প্রায় কেউই। সেলুনের ওটুকু আরাম যেন রোজের জীবনে লাখ টাকায় কেনা বিলাসিতা। তেমন শৌখিন না হলেও দিনান্তে এটুকু আরামের লোভ ছাড়তে পারেননি সুজন সোম (নাম পরিবর্তিত)। দক্ষিণ কলকাতার এক সেলুন থেকে বাড়ি ফিরেই হাড়ে হাড়ে টের পেলেন সেটুকু আরামের মূল্য। নামমাত্র খরচে চুল ছাঁটার পর নাপিতের অভ্যস্ত হাতের মাসাজই ডেকে এনেছে চূড়ান্ত বিপদ!

বাড়ি ফিরতে না ফিরতেই কথা আটকে যায়, মাথায় তীব্র যন্ত্রণা নিয়ে তড়িঘড়ি ছুটতে হয় হাসপাতালে। ধরা পড়ে, স্ট্রোকের শিকার হয়েছেন তিনি! সামান্য আরাম দেওয়ার মাসাজ থেকে প্রাণের ঝুঁকি! এও কি সম্ভব?

স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞ সমর চৌধুরী বলছেন, ‘‘সম্ভব। আসলে এই ধরনের মাসাজ যাঁরা সেলুনে করে থাকেন, তাঁরা অনেকেই খুব একটা অভিজ্ঞ নন। মানুষের শরীর, সেখানকার শিরা-ধমনী এগুলো সম্পর্কে তাঁদের ধারণাও খুব স্বাভাবিক ভাবেই কম। তাই এই ধরনের মাসাজে ঝুঁকি তো থাকেই। অনেক সময় অনভিজ্ঞ হাতে মস্তিষ্কের ভুল জায়গায় হঠাৎ চাপ পড়ায় মাথা এ দিক ও দিক করতে গিয়ে মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহকারী প্রধান ধমনীটি ছিঁড়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে। কখনও বা কিছু ক্ষণের জন্য বন্ধ হয়ে যেতে পারে রক্তসংবহন। স্নায়ুর রোগ তো হতেই পারে, আকছার হয়ও, এমনকি সমস্যা গড়াতে পারে স্ট্রোক পর্যন্ত। সাধারণত যে সব কারণে স্ট্রোক হয়, আজকাল সে সবের তালিকায় উঠে এসেছে এই ভুল মাসাজের দিকটিও।’’

আরও পড়ুন: হাড়ের অসুখ ঠেকাতে এখন থেকেই পাতে রাখুন এ সব খাবার

দাঁতের সমস্যায় জেরবার? এই সব অভ্যাসে রাশ টানলে সারবে অসুখ

বাড়িতে প্রশিক্ষিত কোনও ফিজিওথেরাপিস্ট বা ম্যাসিওরের (মাসাজ বিশেষজ্ঞ) কাছ থেকেই করান মাসাজ। ছবি: আইস্টক।

সমরবাবুর সঙ্গে সহমত পোষন করছেন বেঙ্গালুরু স্ট্রোক সাপোর্ট গ্রুপের অন্যতম সদস্য ও স্নায়ুবিশেষজ্ঞ বিক্রম হুডেড। তাঁর মতে, মধ্য বয়সে স্নায়ুর রোগ ডেকে এনেছেন বা স্ট্রোকের শিকার হয়েছেন এমন অনেকের জীবনযাপন খতিয়ে দেখা গিয়েছে, এঁদের বেশির ভাগেরই এমন মাসাজ নেওয়ার অভ্যাস ছিল। সেখান থেকেই বেখাপ্পা ভাবে কোনও একটা আঘাত ক্ষতি করেছে মস্তিষ্কের। কারও বা ঘাড়ের শিরা ছিঁড়ে মৃত্যুও হয়েছে। ডায়াবিটিস, হাইপারটেনশন ডেকে আনার মতো ভুলগুলির সঙ্গে এই স্বভাবকেও জীবনযাপনের অন্যতম একটি ‘দোষ’ হিসাবে চিহ্নিত করা উচিত। এমনিতে স্ট্রোক হওয়ার অনেক কারণ আছে। তার মধ্যে জীবনযাপনের এই স্বভাবও অন্যতম।’’

তা হলে কি সারা দিনের ধকলের শরীরে ওটুকু আরামও বাদ?

চিকিৎসকরা বলছেন, আলবাত বাদ। সেলুন বা স্যাঁলোতে নেওয়া এ সব মাসাজে দাঁড়ি টানতে হবে অবশ্যই। নিজে নিজেও করা য়াবে না এ সব। তবে আরামে পুরোপুরি দাঁড়ি পড়বে না এতে। বরং তাঁদের মতে, মাসাজ করাতে চাইলে বাড়িতে প্রশিক্ষিত কোনও ফিজিওথেরাপিস্ট বা ম্যাসিওরের (মাসাজ বিশেষজ্ঞ) কাছ থেকেই করান মাসাজ। স্ট্রোক সম্পর্কিত আধুনিক নানা গবেষণায় যোগ হয়েছে এই সেলুনে মাসাজের বিষয়টিও। তবে গবেষণায় যাই উঠে আসুক না কেন, আপাতত এটিকে বিপদ ডেকে আনার অন্যতম কারণ হিসেবেই চিহ্নিত করছেন চিকিৎসকরা।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন