Advertisement
০১ অক্টোবর ২০২২
acidity

Acidity: ভাজাভুজি খাওয়া ছেড়ে দিলেন, তাও অ্যাসিডিটি পিছু ছাড়ল না? ধূমপান করছেন না তো

পিৎজা খাওয়া ছেড়ে দিলেন। তেল মশলাও খাচ্ছেন না। অথচ বুকজ্বালা কিছুতেই কমছে না? ওষুধ খাওয়ার আগে ধূমপান ছাড়ুন।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি। ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৬ অগস্ট ২০২১ ১০:২৮
Share: Save:

তেল-মশলা দেওয়া খাবার, জাঙ্ক ফুড সবই ছেড়ে দিয়েছেন। এমনকি, রোজ শরীরচর্চা করে সামান্য ওজনও ঝরিয়ে ফেলেছেন। তাহলে কেন অ্যাসিডিটির সমস্যা পিছু ছাড়ে না? মাঝেমাঝেই বুকজ্বালা করছে। অস্বস্তি বেড়েই যাচ্ছে। তা হলে কী করা যায়? দোকান থেকে লিক্যুইড অ্যান্টাসিড কিনতে যাবেন কি না ভাবছেন? তার আগে আরেকটি কাজ করতে পারেন। ধূমপান ছেড়ে দিন!

ধূমপান করলে যে আমাদের শরীরে অ্যাসিড রিফ্লাক্স বেড়ে যায়, তা চিকিৎসকেরা বহুদিন ধরেই বলছেন। অ্যাসিড রিফ্লাক্সের কারণে পেট থেকে অ্যাসিড আমাদের খাদ্যনালীর মধ্যে দিয়ে উপরে দিকে উঠে এসে ইসোফেগাসে পৌঁছে যায়। যার কারণে গলা, বুক জ্বালা করে আমাদের।

কেন ধূমপান করলে এমন হতে পারে

১। ধূমপান করলে আমাদের এসোফেগাস বা খাদ্যনালীর মাংসপেশিগুলি রিল্যাক্সড হয়ে যায়। নিকোটিন সাধারণত শরীরের সব পেশিই রিল্যাক্স করে। খাদ্যনালীর একটি বড় কাজ খাদ্যকে পেটে নিয়ে যাওয়া এবং পেটের অ্যাসিড ঠিক জায়গায় রাখা। কিন্তু নিকোটিন গেলে যদি খাদ্যনালীর পেশি রিল্যাক্সড হয়ে যায়, তখন পেটের অ্যাসিড সহজেই উপরের দিকে উঠে আসে।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

২। মুখের লালারস কমিয়ে দেয় নিকোটিন। আমাদের লালারসে বাইকার্বোনেট পাওয়া যায়, যা অ্যাসিড দূর করতে সাহায্য করে। অ্যাসিড রিফ্লাক্সের কারণে যে অ্যাসিড শরীরের উপর দিকে চলে আসে, ঢোক গেলার সময়ে তা অনেকটা কমিয়ে ফেলে আমাদের লালারস। কিন্তু যাঁরা নিয়মিত ধূমপান করেন, তাঁদের লালারস কম উৎপাদন হয়। তাই অ্যাসিডিটির সমস্যাও বেড়ে যায়।

৩। ধূমপান করলে আমাদের পেটে বেশি পরিমাণে অ্যাসিড তৈরি হয়। এবং সেটা অনেকটাই গাঢ় হয়। বেশি অ্যাসিড তৈরি হলে সহজেই খাদ্যনালী দিয়ে তা উপরের দিকে চলে আসতে পারে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.