×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

উজ্জ্বল হোক উপস্থিতি

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০০:০১

সাজগোজ করার পরে ত্বক ও চুল উজ্জ্বল না দেখালে সাজই অসম্পূর্ণ। স্ট্রেস ও দূষণের দাপটে ত্বক-চুলের স্বাভাবিক জেল্লা প্রায় উধাও। তাই শাইন ধরে রাখতে মেকআপই শেষ ভরসা।

ত্বকের জেল্লা

Advertisement

• মেকআপ শুরুর আগে ত্বক হাইড্রেট করতে গ্লো-এনহ্যান্সিং ময়শ্চারাইজ়ার লাগান। এতে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে, উজ্জ্বলও দেখাবে। তবে ত্বক তার প্রয়োজনীয় ময়শ্চারাইজ়ার পাচ্ছে কি না, তার জন্য মিনিট দশেক অপেক্ষা করতে হবে। দেখুন, তখনও ত্বক শুষ্ক লাগছে কি না। শুষ্ক দেখালে আর একবার ময়শ্চারাইজ়ার বা লোশন লাগিয়ে নিন।

• ময়শ্চারইজ়ার বা ফাউন্ডেশনে গ্লো বুস্টিং ড্রপস ব্যবহার করা যায়।

• ফাউন্ডেশনের পর হাইলাইটারের পালা। মাল্টিপল হাইলাইটার ব্যবহার করতে পারেন। মুখের বিভিন্ন অংশে ভিন্ন হাইলাইটিং দরকার। তিন-চার ধরনের হাইলাইটার মুখে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। দু’তিন ধরনের হাইলাইটার মিশিয়েও মুখে লাগাতে পারেন। মুখের কোন কোন অংশে হাইলাইটার লাগাবেন, সেটাও জানা দরকার। বিশেষত মুখের বোন-জ়োন অর্থাৎ উঁচু অংশে হাইলাইটার লাগান। চিকবোনস, ব্রো-বোনস, নাকের ব্রিজে হাইলাইটার লাগাতে হবে। চোখের কোণের দিকেও হাইলাইটার লাগাতে পারেন। মুখের সাজ সম্পূর্ণ করতে কলারবোনেও থাকবে শাইনি গ্লস বা হাইলাইটার।

• শুধু মুখের ত্বক উজ্জ্বল আর হাত-পা খসখসে, তা তো ভাল দেখায় না। তাই হাতে লাগান শিমার। স্লিভলেস পরলে পুরো হাতে ময়শ্চারাই‌জ়ার লাগিয়ে শিমার লাগিয়ে নিন। পিঠখোলা পোশাক পরলে সেখানেও দরকার শিমার।

চুলের চেকনাই

রুক্ষ চুল রাতারাতি উজ্জ্বল করা যায় না। এটাই সবচেয়ে বড় সত্যি। তবে উজ্জ্বল দেখানোর অনেক ফন্দিফিকির আছে।

• আয়রন করতে পারেন। আয়রন করলে চুল যেহেতু সমান হয়ে যায়, তাই উজ্জ্বল দেখায়।

• গ্লো-এনহ্যান্সিং হেয়ার সেরামও ব্যবহার করা যায়। হাতে সেরাম নিয়ে পুরো চুলে লাগিয়ে ভাল করে আঁচড়ে নিন।

• আমন্ড অয়েলও এ ক্ষেত্রে খুব ভাল কাজে দেয়।

• চুলের রুক্ষ-শুষ্ক ভাব কাটাতে কুম্বিং খুব কার্যকর। তাই হাতের কাছে কিছু না থাকলে যত বার সম্ভব চুল আঁচড়ান। স্ক্যাল্পে চাপ দিয়ে চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান। এতে সেবাসিয়াস গ্রন্থি উদ্দীপিত হয়। ফলে সেবাম উৎপাদন হয়। সেবামই চুলের প্রয়োজনীয় তেলের জোগান দেয়। ফলে চুল উজ্জ্বল দেখায়।

• শাইন স্প্রে-ও এখন বাজারে পাওয়া যায়। তাই চুলের কেয়ারি করার পরে শাইন স্প্রে করে দিলে চুল হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত।

কৃত্রিম উপায়ে ত্বক ও চুল সাময়িক উজ্জ্বল হলেও তা স্থায়ী নয়। তাই ত্বক ও চুলকে নিয়মিত ময়শ্চারাইজ় করুন। তাতে ঔজ্জ্বল্য পিছু ছাড়বে না। বরং সঙ্গী হবে চিরদিনের মতো।

মডেল: ডিম্পল আচার্য

ছবি: দেবর্ষি সরকার

Advertisement