অফিস হোক বা বাড়ি, আধুনিক জীবনে প্রযুক্তির শরণ নেওয়া ছাড়া গতি নেই। সারা ক্ষণ হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার ও কম্পিউটারের সামনেই সময় কাটে আমাদের। যার জেরে বাড়ছে চোখের সমস্যা। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে চোখের পাওয়ার।

প্রযুক্তিনির্ভর এই সময়ে ইলেক্ট্রনিক গ্যাজেট বাদ দিয়ে দিনযাপনও সম্ভব নয়। তাই চোখর উপর চাপ পড়া খুব স্বাভাবিক বিষয়। ফলে অবসাদ, ক্লান্তি, মাথা যন্ত্রণা, ক্ষীণ দৃষ্টিশক্তি জীবনের অঙ্গ হয়েই দাঁড়িয়েছে।

‘‘কম্পিউটার, ট্যাব, ফোনের বৈদ্যুতিক রশ্মি রেটিনার উপর চাপ ফেলে, চোখের স্নায়ু এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়’’, জানালেন চক্ষু বিশেষজ্ঞ প্রাপ্তি সরকার। তাঁর মতে, বেশ কিছু সাধারণ ও সহজ নিয়ম মেনে চললে এই সমস্যাকে সহজেই কাটিয়ে ওঠা যায়। দেখে নিন সে সব নিয়ম।

আরও পড়ুন

মেক-আপ না তুলে ঘুমিয়ে পড়েন? জানেন কী ক্ষতি হচ্ছে?

নখ ভেঙে যায় সহজেই? সমাধান পেতে এ সব রাখুন খাদ্যতালিকায়

স্ক্রিন ফ্রেন্ডলি চশমা নিয়ন্ত্রণ করে চোখের সমস্যাকে।ছবি: শাটারস্টক।

কম্পিউটারের সামনে বসে দীর্ঘ ক্ষণ কাজ করতে হলে অবশ্যই স্ক্রিন ফ্রেন্ডলি চশমা ব্যবহার করুন। চোখে পাওয়ার না থাকলেও এই চশমা সহজেই বানিয়ে নেওয়া যায়। তবে এর জন্য অবশ্যই পরামর্শ নিন চক্ষু বিশেষজ্ঞের। এমনকি, খুব কড়া আলো থেকেও চোখকে বাঁচান। টিভি দেখলেও তার আলো চোখের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সেট করিয়ে নিন সংস্থা বা দোকানের প্রতিনিধিকে দিয়ে। টিভিকে রাখুন চোখের থেকে নিরাপদ দূরত্বে।

চিকিৎসকদের মতে, মাঝে মাঝেই কম্পিউটারের জায়গা বদলান। যথেষ্ট আলো আছে এমন জায়গায় রাখুন কম্পিউটার। ল্যাপটপ ব্যবহারের সময়ও আলোর ঘাটতি যেন না হয়। অনেকেই কম আলোয় বসে ল্যাপটপে সিনেমা দেখেন, তা চোখের জন্য ভাল নয়। প্রতি আধ ঘণ্টায় উঠে চোখে জল দিন। ঠান্ডা জলের ঝাপটায় চোখের স্নায়ুগুলি আরাম পায়। চোখ সুস্থ রাখতে বেশ কিছু চোখের ব্যায়াম করুন। চোখ বন্ধ রেখে চোখের পাতার উপর হাত রেখে ক্লক-ওয়াইজ এবং অ্যান্টি ক্লক ওয়াইজ ঘোরান৷ এতেও চোখ আরাম পাবে।

এমন কিছু সহজ নিয়ম মানলেই সারা ক্ষণ কম্পিউটার বা ল্যাপটপের সামনে বসে কাজের পরেও চোখ থেকে জল পড়া, মাথা যন্ত্রণা, অবসাদ ইত্যাদি সমস্যাগুলিকে এড়ানো যাবে।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ