চোখ নিয়ে কত কবি, কবি শিল্পী বিভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়েছেন। রবীন্দ্রনাথের লেখাতেও রয়েছে কালো হরিণ চোখের মহত্বের কথা। প্রথম কারও সঙ্গে পরিচয় হলেও সেই চোখই যেন মনের জানলার মতো কথা বলে। তাই শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষা চোখকে সাজিয়ে তোলা আবশ্যিক।

মন খারাপ হোক বা আবহাওয়া খারাপ, চোখে কালো তুলির টান থাকলে অন্য মেক আপের সেভাবে আর দরকার পড়ে না। কিন্তু চোখের মেক আপ মোটেই সহজ কথা নয়। বিশেষ করে গরমে চোখে কাজল ধরে রাখতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়। বাড়ি থেকে নিখুত ভাবে কাজল পরে বেরলেও দু’ঘণ্টা পরে তা চোখ থেকে নেমে সারা মুখে ছড়িয়ে পড়ে। অগত্যা কাজল পরার শখকে জলাজঞ্জলি দিতে হয়। ‌‌

কিন্তু ঠিক নিয়ম মেনে গরমে কাজল পরলে স্মাজ হওয়া এড়ানো যায়। তার জন্য কয়েকটি সহজ কায়দা রয়েছে। জানেন সে সব কী কী?

আরও পড়ুন: রাত করে খান? কোন কোন মারাত্মক অসুখ ডেকে আনছেন জানেন?

কাজল ব্যবহারের ঠিক নিয়ম জানলে তা স্মাজ হবে না কখনও।

  • একটি সুতির কাপড়ের রুমালে বরফ নিয়ে, তা দিয়ে চোখে ও তার চার পাশে হালকা করে মাসাজ করুন। এতে চোখের পাশের অতিরিক্ত তেল চলে যাবে। আই ব্যাগের সমস্যাও দূর হবে। এর পরে একটা শুকনো কাপড় দিয়ে চোখ মুছে নিন। চোখের মেক আপ করার আগে এই টোটকা ব্যবহার করুন। এতে চোখে কাজল বেশিক্ষণ থাকবে।
  • কাজল লাগানোর আগে চোখের চারপাশে বিবি ক্রিম বা সিসি ক্রিম দিয়ে হালকা হাতে মালিশ করুন। দেখবেন যাতে ক্রিম পুরোপুরি ত্বকের সঙ্গে মিশে যায়। এতে অতিরিক্ত তেল চলে যাবে এবং চোখের চার পাশ পরিষ্কার দেখাবে। ফলে কাজল লাগানোর পরে স্মাজ হবে না।
  • চোখের কোণে অতিরিক্ত তেল জমে যাতে না থাকে তার জন্য একটি ইয়ার বাড দিয়ে হালকা করে পরিষ্কার করে নিন।

আরও পড়ুন:  মাসমাইনে দিয়ে কিছুতেই খরচ সামলাতে পারছেন না? দেখে নিন সমাধান

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

  • চোখে উপরের ও নীচের ওয়াটার লাইনে কাজল লাগান। তবে  ভিতরে কোণে কাজল লাগাবেন না। ভিতরে কোণে চোখে অনেক সময়ে জল থাকায় কাজল স্মাজ হয়ে যায়। উপরের ওয়াটার লাইনে কাজল লাগালে চোখ সুন্দর দেখায়।
  • উপর ও নীচের ওয়াটার লাইনে কাজল লাগানোর পরে কোনও ওয়াটার প্রুফ আইলাইনার তার উপরে লাগিয়ে নিন। আইলাইনার কাজল ধরে রাখবে। আইলাইনার চোখের কোণেও লাগাতে পারেন।  এতে কাজল ছড়াবে না।
  • কাজল ও আই লাইনার পরার পরে একটু হালকা করে পাউডার চোখের চার পাশে লাগিয়ে নিন।