• রচনা মজুমদার
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিজেকে ভালবাসো তুমি এ বার

প্রত্যেক দিন কতক্ষণ রোদে থাকছেন, তার উপরে নির্ভর করবে আপনার মেকআপ কেমন হবে

Model

আমি হতে চেয়েছি/

মুক্ত বিহঙ্গ/

উড়ে বেড়াতে চেয়েছি/ এখানে ওখানে/ কিন্তু আমি পারিনি— কেন? কী বলবেন? ‘আমার শত চেষ্টা আজ ব্যর্থ হয়েছে’ মেকআপ ঠিকঠাক বসেনি বলে?

মেকআপ করলেনই না, সে কথা নাহয় আলাদা। কিন্তু করলে তো ঠিক করে করতে হয়। মেকআপ করার পরে যদি তা গলে উঠে যায় বা শুকিয়ে ত্বক খসখসে দেখায়, তা তো ভাল লাগবে না। আর যে ভাবে গরম নিঃশ্বাস ফেলছে কাঁধের উপরে, আর ক’দিন বাদেই ত্বকের দফারফা শুরু।

মোদ্দা কথা হল, গরম পড়ছে। সাজতে হবে নিখুঁত ভাবে। সঙ্গে দরকার ত্বকের যত্নও। কিন্তু কী ভাবে হবে সেই পরিচর্যা?

 

ত্বকের দেখভাল

‘দারুণ অগ্নিবাণে’ একদম ভুরু কোঁচকাবেন না। রোদে ত্বক পুড়বেই। তাই বলে কি রাস্তায় বেরোবেন না? ট্যান থেকে ত্বককে বাঁচাতে হবে। ত্বকের ধরন অনুযায়ী আলাদা আলাদা ফেসপ্যাক নিয়মিত ব্যবহার করুন সানট্যান বা বার্ন দূর করার জন্য। যাঁদের ত্বক খুবই শুষ্ক, তাঁরা দুধের সর, কাঁচা হলুদ, গাজরের রস একসঙ্গে মিশিয়ে লাগাতে পারেন। আপনার ব্যস্ত সময় থেকে মাত্র ১০ মিনিট বার করুন। সেই সময়টায় প্যাক লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। আর তৈলাক্ত ত্বকের জন্য মুসুর ডাল, শসার রস ও ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে মাখতে পারেন।  ট্যান কমাতে পাতিলেবুর রসের বিকল্প আর কিছুই নেই, সঙ্গে যদি থাকে মধু। ব্যস! স্ক্রাবারের কাজও খানিক মেটে। এ ছাড়া রোদ থেকে ফিরে এসে শসার রসও লাগাতে পারেন মুখে, গলায়, হাতে। ত্বকের পোড়া ভাব কমানোর জন্য টম্যাটো আর টক দইও বেশ উপকারী। ত্বক নরম রাখতে অ্যালো ভেরার জেলও বেশ কাজের।

 

চটজলদি

কলেজ হোক বা অফিস, বেরোনোর আগে সামান্য হলেও তো সাজগোজের সময় থাকে। সেই সময়ে প্রথমে কোনও ভাল মানের টোনার লাগিয়ে নিন। ব্যবহার করতে পারেন গোলাপজলও। এতে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে। খুব গরম পড়লে মেকআপের আগে কাপড়ে মুড়ে সামান্য বরফ লাগিয়ে নিন। তাতে মেকআপ গলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। আর সানস্ক্রিন লোশন অবশ্যই ব্যবহার করবেন। মুখে তো বটেই, চোখের নীচে, গলায়, হাতেও লাগান। তার পরে মেকআপের জন্য প্রথমে প্রাইমার, তার পরে অল্প ফাউন্ডেশন। আপনার ত্বকের সঙ্গে মানানসই ফেসপাউডার লাগান। কাজল, লাইনার সবই ওয়াটারপ্রুফ ব্যবহার করাই ভাল। রোদে ঘুরে যদি আপনাকে কাজ করতে হয়, তা হলেও কোনও অসুবিধে হবে না। লিপস্টিক ব্যবহার করুন নুড, ক্রিম বা হালকা গোলাপি শেডের। আর যাঁদের ঘুরে ঘুরে কাজ, তাঁরা কিন্তু মেকআপ ঘেঁটে গেলে ওয়েট টিসু দিয়ে সেটা ঠিক করার চেষ্টা করবেন না। এতে মেকআপ আরও ঘেঁটে যেতে পারে। বরং ব্লটিং পেপার ব্যবহার করতে পারেন।

 

সাজব যতনে

গরম বলে কি আর আনন্দ বাদ থাকবে? বিয়েবাড়ি থেকে কলিগের প্রোমোশনের সাকসেস পার্টি, কলেজ ফেস্ট থেকে গার্লস নাইট আউট— সবই থাকে। প্রাইমারের পরে গালে বা চোখের নীচে কনসিলার লাগিয়ে নিন। অতিরিক্ত হল শুধু ব্লাশ অন, আই শ্যাডো আর একটু গাঢ় অথচ মানানসই লিপস্টিক। ভ্রু এঁকে নিতে পারেন। ভ্রুয়ের নীচে আর গালে হাইলাইটার ব্যবহার করতে পারেন। মাসকারা লাগিয়ে নিন। তবে গরমে মেকআপ ধরে রাখতে সেটিং স্প্রে ব্যবহার করলে তার স্থায়িত্ব বাড়বে। চুল খোলা রাখতে পারেন। গরম লাগলে হাফ বানও করে নিতে পারেন। আর বডি স্প্রের সঙ্গে হেয়ার পারফিউম ব্যবহার করতে ভুলবেন না। কারণ, অতিরিক্ত তাপমাত্রায় স্ক্যাল্পেও ঘাম হয়। তবে বেশি গরমে মুখে শিমার ব্যবহার না করাই ভাল।

 

ধৈর্যও দরকার

সাজলেন যত্ন নিয়ে, অথচ ক্লান্তির জেরে মেকআপ তোলার আগেই ঘুমিয়ে পড়লেন, তা হলে খুব মুশকিল। ত্বকে মেকআপ থাকলে র‌্যাশ, ব্রণ, ব্ল্যাক হেডস হতে পারে। ভাল মেকআপ রিমুভার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। গরমে ঠান্ডা জল দিয়েই মুখ ধোবেন। গরম জল ত্বকের জন্য ভাল নয়। এতে ত্বক আর্দ্রতা হারায়, বলিরেখাও পড়তে শুরু করে দ্রুত। তবে যে দিন মেকআপ করবেন না, সে দিনও কিন্তু ত্বক পরিষ্কার করতে ভুলবেন না। আর গরমেও ব্যবহার করুন ময়শ্চারাইজ়ার। ত্বক অতিরিক্ত তৈলাক্ত হলে জেল ময়শ্চারাইজ়ার ব্যবহার করাই বাঞ্ছনীয়। এতে আপনার ত্বক আর্দ্র থাকবে। গোলাপজলও ব্যবহার করতে পারেন।

এ ছাড়াও মনে রাখা দরকার যে, জল আর মরসুমি আনাজপাতি ত্বক ভাল রাখে। এতে প্রবল গরমেও ত্বক ভাল থাকবে, শুষ্কতা কমবে। 

মডেল: নয়নিকা সরকার

মেকআপ, হেয়ার, স্টাইলিং: রজত-কৌশিক

পোশাক: সুমন নাথওয়ানি

ছবি: সন্দীপ দাস

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন