Advertisement
২৭ জানুয়ারি ২০২৩
Wife Stealing Festival

পড়শির স্ত্রীকে ‘চুরি’ করে নিলেও দোষের কিছু নেই, এমনই বহুগামিতার চল আছে আফ্রিকার এক প্রান্তে

বিভিন্ন দেশে বিবাহের রীতি আলাদা। কোনও কোনও প্রথা এতই মৌলিক, যা শুনলে চোখ উঠতে পারে কপালে। আফ্রিকার একটি দেশে দেখা যায় এমন একটি প্রথা, যেখানে ‘চুরি’ করে নেওয়া যায় অন্যের স্ত্রী।

পশ্চিম আফ্রিকার নাইজারের এই উপজাতির মধ্যে দেখা যায় স্ত্রী ‘চুরির’ প্রথা।

পশ্চিম আফ্রিকার নাইজারের এই উপজাতির মধ্যে দেখা যায় স্ত্রী ‘চুরির’ প্রথা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৫ অক্টোবর ২০২২ ২১:৫৯
Share: Save:

বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি আলাদা। আর সংস্কৃতিভেদে বদলে যায় বিয়ের রীতিও। কোনও কোনও রীতি এতই মৌলিক যে, সেগুলির কথা শুনলে চোখ কপালে উঠতে পারে বহু মানুষেরই। তেমনই একটি রীতি রয়েছে আফ্রিকার ওদাবে নামের এক উপজাতির মধ্যে। পশ্চিম আফ্রিকার নাইজারের এই উপজাতির মধ্যে দেখা যায় স্ত্রী ‘চুরির’ প্রথা।

নাইজারের প্রান্তিক অঞ্চলে গেরেওয়াল নামের একটি উৎসব হয়। এই উৎসবে রয়েছে বিরল একটি রীতি। সেই প্রথা অনুযায়ী ওদাবে উপজাতির পুরুষেরা মুখে ও দেহে বিভিন্ন ধরনের রং মেখে ছদ্মবেশ ধারণ করেন। তার পর অন্যের স্ত্রীর কাছে গিয়ে তাঁকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করেন। উৎসব শুরুর ছ’ঘণ্টা আগে থেকে রূপটান শুরু করেন পুরুষেরা। মূলত রঙিন মাটি, পাখির পালক ও পুঁতি দিয়ে তৈরি হয় সাজ-পোশাক। সাজার পর নাচতে নাচতে হাজির হতে হয় পরস্ত্রীর সামনে। মহিলারা স্বাধীন ভাবে যে কোনও পুরুষকে বেছে নিতে পারেন। যদি কোনও পুরুষ ধরা না পড়ে কোনও রমণীর মন জয় করতে পারেন, তবে তাঁকে দ্বিতীয় স্বামী হিসাবে গ্রহণ করতে পারেন ওই মহিলা। এই উপজাতির মধ্যে বহুগামিতার প্রচলন রয়েছে। তাই সংশ্লিষ্ট রমণীর সম্মতি থাকলে তিনি সমাজ স্বীকৃত ভাবেই দ্বিতীয় পুরুষের সঙ্গে ঘর বাঁধতে পারেন। তবে ওই সম্প্রদায়ের সকলকেই যে এই পরবে অংশ নিতে হবে, এমন কোনও বাধ্যবাধকতা নেই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.