• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

২১ অক্টোবর পর্যন্ত আর একটিও গাছ কাটা যাবে না, অ্যারে নিয়ে স্থগিতাদেশ সুপ্রিম কোর্টের

Aarey
গাছ কাটার প্রতিবাদ। ছবি: পিটিআই

Advertisement

অ্যারে কলোনিতে গাছ কাটায় স্থগিতাদেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। আজ সোমবার এই নিয়ে শুনানি হয় সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ বেঞ্চে। বেঞ্চের নির্দেশ ২১ অক্টোবর পরবর্তী শুনানি পর্যন্ত আর একটিও গাছ কাটা যাবে না অ্যারে কলোনিতে। 

মুম্বইয়ের অ্যারে এলাকায় মিঠি নদীর ধারে বিশাল বনাঞ্চলে রয়েছে প্রায় ৫ লক্ষ গাছপালা। ১২৮০ হেক্টর আয়তনের এই এলাকা বাণিজ্যনগরীর ফুসফুস বলে পরিচিত। এই এলাকাতেই মেট্রো রেলের কারশেড তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। তার জন্য ২ হাজার ৬৪৬টি গাছ কাটার অনুমতি দিয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরসভা। তার প্রতিবাদেই লাগাতার প্রতিবাদ-বিক্ষোভে নেমেছেন সমাজকর্মী ও পড়ুয়াদের একটা বড় অংশ।

রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ বিক্ষোভের পাশাপাশি আইনি লড়াইয়েও নেমেছেন আন্দোলনকারীরা। গাছ কাটা বন্ধের আর্জি জানানোর সঙ্গেই অ্যারে কলোনির ওই এলাকাকে ‘সংরক্ষিত বনাঞ্চল’ ঘোষণার দাবি জানায় কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও সমাজকর্মীরা। কিন্তু শুক্রবার তাঁদের আর্জি খারিজ করে দেয় বম্বে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রদীপ নন্দরাজোগের ডিভিশন বেঞ্চ।

আরও পডু়ন: খাদ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট, ধৃত যুবক 

আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থও হন আন্দোলনকারীরা। জনৈক আইনের পড়ুয়া ঋষভ রঞ্জন শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতিকে একটি চিঠি দিয়ে গাছ কাটা বন্ধের আর্জি জানান। তাঁর আবেদন, ইতিমধ্যেই প্রায় ১৫০০ গাছ কাটা হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সব আইনি পদ্ধতি মেনে মামলা শুরুর আগেই সব গাছ কাটা হয়ে যাবে। তখন আর কিছু করার থাকবে না। চিঠিতে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আর্জি জানান ঋষভ। ওই চিঠির ভিত্তিতেই জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে। আজ সেই মামলায় প্রাথমিক শুনানির পর ২১ অক্টোবর পর্যন্ত গাছ কাটায় গিতাদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ বেঞ্চ। 

অন্য দিকে অশান্তি এড়াতে এবং সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চে শুনানির জেরে অ্যারে কলোনিতে সোমবার নতুন করে ১৪৪ ধারা জারি করে মুম্বই পুলিশ। তবে নতুন করে কোনও অশান্তির খবর মেলেনি। তার মধ্যেই মুম্বই মেট্রো রেল কর্পোরেশন লিমিটেড (এমএমআরসিএল)-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর অশ্বিনী ভিড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে দাবি করেছেন, ওই এলাকায় ২৪ হাজার গাছ রোপন করা হয়েছে। টুইটারে এই গাছ কাটাকে ‘অপরিহার্য ধ্বংস’ এবং গাছ লাগানোকে ‘নতুন সৃষ্টি’ বলে মন্তব্য করেছেন অশ্বিনী ভিড়ে। 

আরও পড়ুন: ছাতা-বর্ষাতি হাতে অষ্টমীর মাঠের দখল নিল জনতা

অ্যারে এলাকায় গাছ কাটার প্রতিবাদে শুক্রবার রাত থেকে ব্যাপক প্রতিবাদ-বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করেন সমাজকর্মী, পরিবেশপ্রেমী, ছাত্র-ছাত্রীরা। তার জেরে ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞা অগ্রাহ্য করেই বিক্ষোভ-আন্দোলনের জেরে গ্রেফতার হয়েছিলেন মোট ২৯ জন। রবিবার ছুটির দিনে বিশেষ আদালত তাঁদের সবার জামিন মঞ্জুর করেছে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন