এক লাফে অনেকটা বেড়ে গেল এক্সপ্রেস ট্রেনের খাবারের দাম। আগে যে চায়ের দাম ছিল ১৫টাকা। তা বেড়ে হল ৩৫! খাবার ক্ষেত্রেও এই বৃদ্ধির অঙ্কটা বেশ আকাশ ছোঁয়া। ৫৫ টাকা খরচ করে যে খাবার খাওয়া যেত, এখন সেই খাবার খেতেই গুনতে হবে ৯০ টাকা। তাই এক্সপ্রেস ট্রেনে যদি আগামী দিনে যাত্রা করার সময় খাবার খান বা চা পান করেন তা হলে বেশি টাকা গোনার জন্য প্রস্তুত থাকুন। কারণ, ১৪ নভেম্বর ভারতীয় রেলের তরফে জারি করা হয়েছে একটি বিবৃতি। সেখানে দেখা যাচ্ছে, রাজধানী, শতাব্দী, দুরন্তর মতো এক্সপ্রেস ট্রেনে চা, ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ ও ডিনারের মাসুল বেড়েছে বেশ অনেকটাই। মাসুল বেড়েছে এক্সপ্রেস ও মেল ট্রেনেরও।

রেলের জারি করা সেই বিবৃতিতে দেখা যাচ্ছে, ওই তিনটি ট্রেনের এসি ফার্স্ট ক্লাসে সকালের চায়ের নতুন দাম হয়েছে ৩৫ টাকা। আগে তা ছিল ১৫ টাকা। একই ভাবে এসি টু টিয়র ও থ্রি টিয়রে সকালের চায়ের নতুন দাম ২০ টাকা ও স্লিপার ক্লাসে ১৫ টাকা। অন্য দিকে সান্ধ্যকালীন চায়ের নতুন দাম এসি ফার্স্ট ক্লাসে ৭৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১৪০ টাকা।

তবে শুধু চা নয়। মাসুল বাড়ানো হয়েছে ব্রেকফাস্ট ও লাঞ্চ-ডিনারেরও। রাজধানী, শতাব্দী, দুরন্তর এসি ফার্স্ট ক্লাসে ব্রেকফাস্টের নতুন দাম ১৪০ টাকা। যা আগে ছিল ৯০ টাকা। অন্যদিকে এসি এসি টু টিয়র ও থ্রি টিয়রে ব্রেকফাস্টের দাম ৭৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১০৫ টাকা। দুরন্তর স্লিপার ক্লাসে ৪০ টাকা থেকে বেড়ে ৬৫ টাকা।

দূরপাল্লার ট্রেনে ভ্রমণের সময় আইআরসিটিসির দেওয়া খাবারেই ভরসা রাখেন যাত্রীরা। সেই লাঞ্চ-ডিনারের মাসুলও বাড়ানো হয়েছে অনেকটাই। যেমন রাজধানী, শতাব্দী, দুরন্তর এসি ফার্স্ট ক্লাসে লাঞ্চ ও ডিনারের খরচা বেড়েছে ১০০ টাকা! আগে যা ছিল ১৪৫, এখন তা বেড়ে হল ২৪৫। সেই খরচা এসি এসি টু টিয়র ও থ্রি টিয়রে ১২৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১৮৫ টাকা। আর দুরন্তর স্লিপার ক্লাসে ৮০ টাকা থেকে বেড়ে ১২০ টাকা। 

আরও পড়ুন: পাঁচতারা হোটেলে তিনটি ডিমের দাম দিতে গিয়ে মাথায় হাত এই সঙ্গীত পরিচালকের!

আগের দাম ও বর্ধিত দাম। গ্রাফিক- তিয়াসা দাস।

তবে শুধু রাজধানী, দুরন্ত, শতাব্দী ছাড়া অন্যান্য এক্সপ্রেস ও মেল ট্রেনের খাবারের দামও বেড়েছে। ওই সব ট্রেনে ভেজ ব্রেকফাস্টের দাম ৩০ থেকে বেড়ে ৪০ টাকা হয়েছে। নন ভেজ ব্রেকফাস্টের দাম ৩৫ থেকে বেড়ে ৫০। মিলের ক্ষেত্রেও দাম বাড়ার অঙ্কটা আরও বড়। স্ট্যান্ডার্ড ভেজ মিলের দাম ৫০ থেকে ৩০ টাকা বেড়ে ৮০ হয়েছে। যেখানে স্ট্যান্ডার্ড নন ভেজ মিলের দাম ৩৫ টাকা বেড়ে হয়েছে ৯০ টাকা।

ট্রেনের সব খাবারের দাম বৃদ্ধি নিয়ে সাফাইও দিয়েছে রেল বোর্ড। তাঁদের বক্তব্য, ‘‘ভারতীয় রেলের কেটারিং সার্ভিসের মান বাড়াতে চাই আমরা। সে জন্যই দাম বৃদ্ধির এই সিদ্ধান্ত।’’ এর আগে ২০১৪ তে বেড়েছিল এক্সপ্রেস ট্রেনের খাবারের দাম। 

আরও পড়ুন: দেশের গ্রামাঞ্চলে খাবার-জামাকাপড়ের কেনাকাটা চার দশকে সর্বনিম্ন! বলছে রিপোর্ট