ফের অভিমুখ বদল ঘূর্ণিঝড় বায়ুর! আগামিকাল বা সোমবারই গুজরাতে আছড়ে পড়তে পারে এই ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। কেন্দ্রীয় ভূবিজ্ঞান মন্ত্রকের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, শনিবারই দিক পরিবর্তন করার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে বায়ুর। এর পর তা আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গুজরাতের কচ্ছ উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। তবে কেন্দ্রের এই সতর্কবার্তা পুরোপুরি মানতে নারাজ রাজ্য। গুজরাতে দাবি, বায়ু ফিরে এলেও তার শক্তিক্ষয় হবে। শুক্রবার গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপাণী ঘোষণা করেছিলেন, বায়ুর অভিমুখ বদল হয়েছে। বিপন্মুক্ত রাজ্য। মুখ্যমন্ত্রীর সেই ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিমুখ বদল করল বায়ু।

প্রাথমিক ভাবে দিল্লির আবহাওয়া অফিস জানিয়েছিল, বৃহস্পতিবার গুজরাত উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে বায়ু। তার গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার। তবে বুধবার মধ্যরাতে তা দিক পরিবর্তন করে। যার জেরে প্রভাবিত হয় গির, সোমনাথ, দিউ, জুনাগড় ও পোরবন্দরের মতো উপকূলবর্তী এলাকা। শনিবার ভূবিজ্ঞান মন্ত্রকের সচিব এম রাজীবন বলেন, “১৬ জুন অভিমুখ বদলে ১৭ বা ১৮ জুন কচ্ছে আছড়ে প়ড়তে পারে বায়ু।” তবে তিনি জানিয়েছেন, অভিমুখ বদলালেও এর শক্তিক্ষয় হবে। ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ের পরিবর্তে তা ঘূর্ণিঝড় বা গভীর নিম্নচাপের আকার নিতে পারে। এ বিষয়ে রাজ্য সরকারকেও সতর্ক করা হয়েছে।

তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের এই পূর্বাভাসের সঙ্গে সহমত নয় আমদাবাদ আবহাওয়া অফিস। সংস্থার অতিরিক্ত ডিরেক্টর মনোরমা মোহান্তির মতে, বায়ু যে কচ্ছ বা সৌরাষ্ট্রে আছড়ে পড়বেই, এমন পূর্বাভাস দেওয়াটা এখনই সম্ভব নয়। তাঁর কথায়, ‘‘রিপোর্টে বলা হচ্ছে, আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তা অভিমুখ বদল করতে পারে। তবে এটাও সম্ভব যে তা শক্তিক্ষয় করে সমুদ্রের দিকে চলে যাবে। সুতরাং এই মুহূর্তে এটা বলা সম্ভব নয় যে তা অভিমুখ বদল করে কচ্ছ উপকূলেই আছড়ে পড়বে।’’

আরও পড়ুন: সোমবার দেশ জুড়ে ধর্মঘটের ডাক দিলেন ডাক্তাররা

আরও পড়ুন: ‘কভি খুশি কভি গম’, কাকে খোঁচা নিতিনের

বায়ু নিয়ে পূর্বাভাস যা-ই হোক না কেন, পরিস্থিতির দিকে কড়া নজর রেখেছে গুজরাত সরকার। রাজ্যের মুখ্যসচিব জে এন সিংহ বলেন, ‘‘আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কচ্ছ বা সৌরাষ্ট্রে বায়ু ফিরে এলেও তা উল্লেখযোগ্য ভাবে শক্তি হারাবে। তবে তা-ও আমরা সতর্ক রয়েছি। রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকায় মোতায়েন থাকবে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী (এনডিআরএফ)। তাদের ফিরে যেতে বলা হয়নি।’’

আরও পড়ুন: নবান্নে যেতে নারাজ জুনিয়র ডাক্তাররা, জট কাটাতে এনআরএসে পৌঁছেছেন আইএমএ-র কর্তারা

আরও পড়ুন: পথে ফের ‘জয় শ্রীরাম’, সাড়া দিলেন না মমতা

এর আগে গাঁধীনগরে গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘‘বিপদের আর আশঙ্কা নেই। বায়ু পশ্চিমে আরব সাগরের দিকে চলে গিয়েছে। বায়ুর প্রভাব থেকে গুজরাত পুরোপুরি মুক্ত।’’ মুখ্যমন্ত্রীর সেই ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, ফের অভিমুখ বদল করেছে বায়ু।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদেরYouTube Channel - এ।