‘চৌকিদার চোর হ্যায়’ বিতর্কে দুঃখপ্রকাশ করলেন, ‘প্রচারের উত্তেজনা’য় মন্তব্য, দাবি রাহুলের
মীনাক্ষীর মামলার প্রেক্ষিতেই রাহুলকে নোটিস পাঠায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। তাঁর কাছে লিখিত জবাব চেয়ে পাঠায় শীর্ষ আদালত।
Rahul Gandhi

সুপ্রিম কোর্টে ক্ষমা চাইলেন রাহুল গাঁধী। —ফাইল চিত্র

‘চৌকিদার চোর হ্যায়’—রাফাল চুক্তিতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রায় প্রতিটি জনসভায় এই ভাষাতেই মোদীকে আক্রমণ করছেন রাহুল গাঁধী। কিন্তু সেই স্লোগান নিয়েই এ বার বিপাকে কংগ্রেস সভাপতি। নিজের বক্তব্য সুপ্রিম কোর্টের রায়ের সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার অভিযোগে সোমবার শীর্ষ আদালতে দুঃখপ্রকাশ করতে হল তাঁকে। বিজেপির দায়ের করা আদালত অবমাননার জেরে লিখিত বিবৃতিতে রাহুল আদালতে জানিয়েছেন, ‘রাজনৈতিক প্রচারের উত্তেজনা’তেই এই ভুল করে ফেলেছেন।

রাহুলকে দুঃখপ্রকাশ করতে হল কেন? ঘটনার সূত্রপাত গত ১০ এপ্রিল। রাফাল চুক্তির আগের রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানায় বিরোধীরা। রাফাল চুক্তির ফাঁস হওয়া নথিপত্রও জমা দেওয়া হয়। আদালত সেই সব নথি খতিয়ে দেখে সেগুলি পুনর্বিবেচনার সিদ্ধান্ত নেয় প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ। রাহুল সে দিন অমেঠীতে ছিলেন। সেখানেই সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‘এ বার সুপ্রিম কোর্টও কার্যত মেনে নিল, চৌকিদার চুরি করেছেন।’’ এই নিয়েই বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষী লেখি সুপ্রিম কোর্টে একটি আদালত অবমাননার মামলা করেন। তাঁর অভিযোগ ছিল, আদালতের রায়কে বিকৃত করেছেন এবং নিজের স্বার্থে ব্যবহার করেছেন রাহুল।

মীনাক্ষীর মামলার প্রেক্ষিতেই রাহুলকে নোটিস পাঠায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। তাঁর কাছে লিখিত জবাব চেয়ে পাঠায় শীর্ষ আদালত। জবাবে রাহুল এ দিন লিখিত বক্তব্য জানান। তিনি লিখেছেন, ‘‘রাজনৈতিক প্রচারের উত্তেজনাতেই ওই মন্তব্য করেছিলাম আমি।’’

আরও পডু়ন: আপনার রিগিং রোখার চেষ্টা হতেই সমান্তরাল সরকার দেখতে পাচ্ছেন? মমতাকে তীব্র আক্রমণে অমিত শাহ

আরও পডু়ন: তৃতীয় দফা ভোটের আগের দিন রাজ্যে ৭ পুলিশকর্মীকে বদলি করল কমিশন

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত