• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পঞ্জাবে ধর্ষণ: নির্মলার আক্রমণ, পাল্টা রাহুলের

Rahul gandhi
রাহুল গাঁধী

হাথরসের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে রাহুল গাঁধী ও প্রিয়ঙ্কা বঢরার দেখা করতে যাওয়াকে ‘পিকনিক’ বলে কটাক্ষ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। একই সঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, কংগ্রেস শাসিত পঞ্জাবে ছয় বছরের নির্যাতিতা বালিকার পরিবারের সঙ্গে কংগ্রেস নেতাদের দেখা করতে যাওয়ার জন্য পিকনিকের আয়োজন হচ্ছে না কেন! রাহুলের পাল্টা মন্তব্য, “উত্তরপ্রদেশের মতো রাজস্থান বা পঞ্জাব সরকার ধর্ষণকে অস্বীকার করলে, বিচারে বাধা হয়ে দাঁড়ালে বিচার চাইতে সেখানেও যেতাম!”

আজ বিজেপির মঞ্চ থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্মলা সরাসরি রাহুল-প্রিয়ঙ্কাকে নিশানা করেছেন। উত্তরপ্রদেশের হাথরসে দলিত তরুণীর গণধর্ষণ ও মৃত্যুর পরে যোগী সরকারের প্রবল বাধা সত্ত্বেও রাহুল-প্রিয়ঙ্কা ওই পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান। নির্মলা বলেন, “হাথরসের ধর্ষণের ঘটনায় মনে হচ্ছিল, সবাই পিকনিকে বেরিয়ে পড়েছেন। ভাই ও বোন গ্রামের দিকে দৌড়লেন। কিন্তু পঞ্জাবে হোশিয়ারপুর বা রাজস্থানে যাচ্ছেন না কেন ওঁরা? বেছে বেছে ক্ষোভ প্রকাশ এ বার খোলসা হয়ে গিয়েছে।”

পঞ্জাবের হোশিয়ারপুর গ্রামে বুধবার ছয় বছরের ধর্ষিতা বালিকার অর্ধদগ্ধ দেহ উদ্ধার হয়। শুক্রবার বালিকার দেহ দাহ করা হয়। গোটা গ্রামের মানুষ তাতে হাজির ছিলেন। অভিযুক্তদের ফাঁসি দাবি করেছে পরিবার। পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিংহ পুলিশের ডিজি-কে দ্রুত তদন্ত শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন। নির্মলা রাহুলকে কটাক্ষ করে বলেছেন, “এখন টুইটার-প্রিয় নেতা চুপ কেন? হাথরসের পরে তো কংগ্রেসের অন্তত ৩৫ জন সাংসদ বিবৃতি দিচ্ছিলেন। কোথায় এখন তাঁরা?”

আরও পড়ুন: বিহারে নেতাদের করোনা, চিন্তায় বিজেপি

আরও পড়ুন: ঘটপুজোর মেঘালয়ে অঞ্জলি অনলাইনে​

 

এর পরেই রাহুল টুইট করে পাল্টা জবাব দেন। নির্মলার নিশানার মুখে রাহুলের উত্তর, “উত্তরপ্রদেশের মতো পঞ্জাব ও রাজস্থানের সরকার ধর্ষণের কথা অস্বীকার করছে না। নির্যাতিতার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে না। বিচারের পথে বাধা হয়ে উঠছে না। যদি তারা তা করত, তা হলে আমি বিচারের জন্য লড়াই করতে সেখানে যেতাম।”

বিহারে বিজেপির ইস্তাহার প্রকাশ করতে গিয়ে বিনামূল্যে কোভিড প্রতিষেধকের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্মলা প্রশ্নের মুখে পড়েছিলেন। আজ তিনি যুক্তি দিয়েছেন, বিনামূল্যে কোভিড প্রতিষেধকের ঘোষণায় ভুল নেই। রাজ্য সরকার চাইলে নিখরচায় টিকা দিতেই পারে। পাল্টা আক্রমণে বিহারের আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবকে নিশানা করে নির্মলার প্রশ্ন, পঞ্জাবে নির্যাতিতা বালিকা এক জন পরিযায়ী শ্রমিকের মেয়ে। তিনি এ বিষয়ে কংগ্রেসের কাছে প্রশ্ন তুলছেন না কেন!মহিলা কংগ্রেসের সভানেত্রী সুস্মিতা দেবের মন্তব্য, নির্মলা সীতারামন তথা বিজেপি শুধুই রাজনীতি করছেন। তাঁদের আচমকা ঘুম ভাঙার একটাই কারণ, বিহারের ভোট। সে কারণেই তাঁরা হোশিয়ারপুরের ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করতে চাইছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন