সকাল সকাল উঠে তৈরি হয়ে রোজ রোজ স্কুল যেতে কোন বাচ্চারই বা ভাল লাগে!কেউ কেউ মুখ বুজে মেনে নেয় এই ‘অত্যাচার’, কেউ ‘প্রতিবাদে’ সোচ্চার হয়েউঠে। তেমনই সোচ্চার হয়েছে এই গুজরাতি মেয়েটি। তবে এই বাচ্চা মেয়েটি যে ভাবে শিক্ষা ব্যবস্থার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিল আর মোদীকে হারানোর দাবি রাখল তা এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

অরুণ বোথরা নামে এক ব্যক্তির টুইটার হ্যান্ডলে বাচ্চা মেয়েটির ভিডিয়ো আপলোড হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, একটি বাচ্চা মেয়ে গুজরাতিতে তার এক রাশ ক্ষোভ উগরে দিচ্ছে। হতাশ হয়ে বলছে,‘আমার এই স্কুল থেকে এক মাসের জন্য মুক্তি চাই। রোজ সকাল ছ’টায় ওঠা, ব্রাশ করে জল খেয়ে তৈরি হওয়া, দুধ খেয়ে স্কুল বাসে বসে যেতে হয়। তারপর স্কুলে গিয়ে প্রার্থনার পর একের পর এক ক্লাস। প্রথমে ইংরেজি তারপর একের পর এক অঙ্ক, ইভিএস, গুজরাতি, সাধারণ জ্ঞান’। পরের পর এই ক্লাসে সে রীতিমতো বিরক্ত, ক্ষুব্ধ। তার চোখে মুখে প্রকাশ পাচ্ছিল সেই অভিব্যাক্তি।

যিনি ভিডিয়ো রেকর্ড করছিলেন, তিনি একের পর এক প্রশ্ন করে যাচ্ছিলেন। আর বাচ্চা মেয়েটি তার রাগ প্রকাশ করে যাচ্ছিল। এবার তাকে প্রশ্ন করা হয়, যিনি স্কুল তৈরি করেছেন, তাকে কাছে পেলে কী করবে? বাচ্চাটি বলে, ‘তাঁকে পেলে, জল ঢেলে ইস্ত্রি করে ছাড়বো।ভগবান সব কিছু ভাল তৈরি করেছে, তাহলে এই পড়াশোনা এমন খারাপ কেন? সেও তো একটু ভাল হলে আমাদেরও মজা লাগত পড়তে’।

আরও পড়ুন: রাস্তায় লাফিয়ে বেড়াচ্ছে শয়ে শয়ে মাছ, ব্যাগে পুরতে ব্যস্ত মানুষ!

ভিডিয়োটির শেষের দিকে তাকে জিজ্ঞেস করা হচ্ছে এই মোদীর কী করা উচিত? ‘রাজানৈতিক বিশেষজ্ঞের’ মতো হাবভাব নিয়ে মেয়েটি বলছে, ‘মোদীকে তো একবার হারাতেই হবে’। পিছনের শব্দ শুনে বোঝা যাচ্ছে তার ছোট মুখে এই বড়বড় কথা শুনে হেসে লুটিয়ে পড়ছেন আশেপাশের লোকেরা।

আরও পড়ুন: মোবাইলে এল বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে হবু স্ত্রীর ছবি, তদন্তে নেমে তাজ্জব পুলিশ

বুধবার পোস্ট হওয়া ভিডিয়োটি ইতিমধ্যেই দু’ লক্ষ ৬৪ হাজারের বেশি বার দেখা হয়েছে। সেই সঙ্গে সমানে চলছে লাইক ও কমেন্ট।

দেখুন সেই ভিডিয়ো: