• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চিত্র সংবাদ

গরমে পেটের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মেনে চলুন এই ঘরোয়া টোটকা

শেয়ার করুন
১০ yourt
ইওগার্ট: আমাশয়ের সঙ্গে দেহের খাদ্যনালীর সুরক্ষা করা উপকারী ব্যাকটেরিয়াও বেরিয়ে যায়। যার ফলে খাদ্যনালীতে উপকারী এবং অপকারী ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য নষ্ট হয়। ইওগার্ট-এ প্রচুর পরিমাণে উপকারী ব্যাকটেরিয়া রয়েছে। কলার সঙ্গে ইওগার্ট মিশিয়ে দিনে দু’বার খান।
১০ pappermint tea
পেপারমিন্ট চা: এক চা চামচ শুকনো পেপারমিন্ট পাতা এক কাপ গরম জলে মেশান। ১০ মিনিট এই ভাবে রেখে দিন। তারপর খেয়ে নিন।
১০ ginger
আদা: হজমে আদা খুবই উপকারী। এক কাপ গরম জলে দু’চামচ আদা বাটা মিশিয়ে নিন। প্রয়োজনে কয়েক ফোঁটা মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। তবে দিনে ৪ গ্রামের বেশি আদা খাবেন না। হিতে বিপরীত হতে পারে।
১০ cammomile tea
ক্যামোমাইল চা: বাজারে ক্যামোমাইল চা পাতা গরম জলে দিয়ে চা বানান। তিন থেকে চারবার সারা দিনে খান। আমাশয়ের জন্য দায়ী ক্ষতিকর ব্যকটেরিয়ার বৃদ্ধি হ্রাস করে আপনাকে সুস্থ রাখবে।
১০ honey
মধু: মধুর অনেক গুণের মধ্যে এটাও রয়েছে। গরম জলে ৪ চা চামচ মধু মিশিয়ে রাখুন। ঠান্ডা করে দিনে দু’বার করে খান।
১০ black tea
ব্ল্যাক টি: আমাশয়ের সমস্যা দেখা দিতে শুরু করলেই ব্ল্যাক টি খাওয়া শুরু করে দিন। চিকিৎসকদের মতে, চা পাতায় ট্যানিন থাকে। যা আমাশয় কমায়।
১০ active charcole
সক্রিয় চারকোল: শুনতে অবাক লাগলেও এর গুণ কিন্তু অনেক। দিনে তিনবার ভরপেট খেয়ে অল্প পরিমাণ চারকোল খেয়ে নিন। চারকোল সমস্ত ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া শুষে নেবে। রেহাই মিলবে আমাশয় থেকে।
১০ apple viniger
আপেল ভিনিগার: অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়া বৈশিষ্ট্য রয়েছে আপেল ভিনিগারে। খালি পেটে গরম জলে ১ টামচ ভিনিগার মিশিয়ে খান।
১০ white rice
সাদা ভাত: আমাশয়ের সময় চিকিৎসকেরাও সাদা ভাত খাওয়ার পরামর্শ দেন। জলের সঙ্গে অল্প পরিমাণে সাদা ভাত মিশিয়ে খান। অনেক সময় এতে আমাশয়ের প্রভাব বাড়তেও পারে। তেমন হলে খাওয়া বন্ধ করে দিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
১০১০ carrot
গাজর: গাজরে প্রচুর পরিমাণে পেকটিন রয়েছে। পেকটিন খাদ্যনালী থেকে রস শোষণ করে নিয়ে আমাশয় কমায়। গাজর কাঁচা অবস্থায় খাবেন না। এই সময় প্রতি আধ ঘণ্টা অন্তর এক কাপ করে সিদ্ধ গাজর খান।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন