Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Restaurants in North Kolkata

উত্তর কলকাতায় ঠাকুর দেখার পরিকল্পনা করেছেন? ভিড় এড়াতে আগে থেকে দেখে নিন কোথায়, কী খাবেন?

উৎসবের চার-পাঁচ দিন স্বাদ পাল্টে, বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন ধরনের খাবার চেখে দেখতেই পারেন। ভাবছেন, উত্তর কলকাতায় ঠাকুর দেখতে গেলে, কোথায় খাবেন? রইল তার সুলুকসন্ধান।

উৎসবের চার-পাঁচ দিন, স্বাদ পাল্টে, বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন ধরনের খাবার চেখে দেখতেই পারেন।

উৎসবের চার-পাঁচ দিন, স্বাদ পাল্টে, বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন ধরনের খাবার চেখে দেখতেই পারেন। ছবি- সংগৃহীত

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০২ অক্টোবর ২০২২ ১৪:৪৮
Share: Save:

বছরের অন্য দিনগুলি জিভে লাগাম পরিয়ে রাখলেও পুজোর সময় কেউই ডায়েট নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামান না। বাঙালি-মোগলাই-চিনা খাবারের পাশাপাশি এখন উপমহাদেশীয় খাবারের জনপ্রিয়তাও তুঙ্গে। কিন্তু খাবার নিয়ে বাছবিচার করতে গেলে আগে থেকে জেনে রাখতে হবে কলকাতার কোথায়, কী ধরনের খাবার পাওয়া যায়। উৎসবের চার-পাঁচ দিন, স্বাদ পাল্টে, বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন ধরনের খাবার চেখে দেখতেই পারেন। আজ রইল উত্তর কলকাতার রুট ম্যাপ। এমনিতে গোলবাড়ি, নিরঞ্জন আগারের মতো বহু পরিচিত খাবারের দোকান তো আছেই। এ ছাড়া আরও কিছু রেস্তরাঁর হদিস রইল এখানে।

Advertisement

উত্তর কলকাতায় ঠাকুর দেখতে গেলে, কোথায় কোথায় খেতে পারেন?

১) ভজহরি মান্না

দুপুরবেলা পাত পেড়ে, পঞ্চব্যঞ্জন সাজিয়ে ভূরিভোজ করতে চাইলে যেতে পারেন হাতিবাগান ভজহরি মান্নায়। মাছ-মাংস, পোলাও-কোর্মা সাজানো রাজকীয় থালির স্বাদ চেখে দেখতে চাইলে এক বার আসতেই হবে ভজহরি মান্নায়। উত্তর-দক্ষিণ মিলিয়ে ভজহরি মান্নার অবশ্য অনেক শাখা। ভিড় এড়াতে সকাল সকাল যে কোনও একটাতে চলে যেতেই পারেন।

Advertisement

ঠিকানা : ১৩, ভূপেন্দ্র বোস অ্যাভিনিউ, হাতিবাগান, কলকাতা- ৭০০০০৪।

২) কষে কষা

নাম ‘কষে কষা’ হলেও ঝোল-ঝাল-অম্বল সবই পাওয়া যায় এখানে। বাঙালি খাবারের অনেক রেস্তরাঁর মধ্যে ‘কষে কষা’ অন্যতম। সাধারণ বাঙালি খাবারের পাশাপাশি, পুজোর সময়ে মেনুতে বিশেষ বিশেষ পদ রাখা হয়। আর যা-ই খান, পোলাওয়ের সঙ্গে কষা মাংস আর খাওয়ার শেষে ডাব আইসক্রিম রাখতে ভুলবেন না।

ঠিকানা: ১৫২,১, বিধান সরণি রোড, হাতিবাগান, কলকাতা- ৭০০০০৬।

৩) স্বাধীন ভারত হিন্দু হোটেল

ইতিহাসের স্মৃতি বিজড়িত এই রেস্তরাঁয় এক সময়ে পায়ের ধুলো পড়েছিল নেতাজি, চিত্তরঞ্জন দাশ, অরবিন্দ ঘোষের মতো দেশনায়কদের। মহম্মদ আলি পার্কের ঠাকুর দেখে দুপুরবেলা খেয়ে আসতে পারেন এই হোটেল থেকে। উত্তর কলকাতায়, ঘরোয়া বাঙালি খাবারের সেরা ঠিকানা স্বাধীন ভারত হিন্দু হোটেল। পুরনো দিনের মতো আজও কলাপাতায় খাবার দেন ওঁরা।

ঠিকানা : ৮/২, ভবানী দত্ত লেন, কলেজ স্কোয়্যার, কলকাতা- ৭০০০৭৩।

৪) আর্সালান

দুপুর হোক বা রাত, পুজোর সময়ে বিরিয়ানি খাবেন না তা কী হয়! এ ক্ষেত্রে নানা জনের নানা মত। কেউ আর্সালানের ঘি চপচপে বিরিয়ানি পছন্দ করেন না, আবার কেউ আর্সালান বলতে পাগল। তবে, হাঁটতে হাঁটতে পেটে ছুঁচো ডন মারলে, চোখ-কান বন্ধ করে চলে যান আর্সালান। বিরিয়ানি খেতে না চাইলেও রুটি, নান, চাঁপ, রেজ়ালা, কবাব সবই পাবেন।

ঠিকানা : ১৩৮, বিধান সরণি রোড, হাতিবাগান, কলকাতা- ৭০০০০৪।

৫) নুডল উডল

পুজোয় ঠাকুর দেখতে গিয়ে ভাত, বিরিয়ানি কিছুই খাবেন না। চিনে খাবার খেতে চাইছেন? দমদম পার্ক, তরুণ দল এব‌ং তরুণ সঙ্ঘের প্রতিমা দেখেই সোজা চলে যান, ডায়মন্ড প্লাজ়ার উল্টোদিকে ‘নুডল উডল’-এ। চিনা খাবার খেতে, ‘চিনা শহরে’ই যেতে হবে তার কোনও মানে নেই। ভাল মানের চাইনিজ় খেতে চলে আসতেই পারেন এই রেস্তরাঁয়।

ঠিকনা : ৯৬৫, যশোর রোড, বিবেকানন্দ আবাসন, দমদম, কলকাতা- ৭০০৭৫৫।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.