×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

কেক-মিষ্টির যোগসাজশে

শ্রেয়সী পাল
১৪ নভেম্বর ২০২০ ০৩:০৯
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

শঙ্খে ভ্যানিলার আস্বাদ

ভ্যানিলা স্পঞ্জ কেক দিয়ে এটি তৈরি করা হয়েছে।

কেকের উপকরণ: ডিম ৫টি, চিনি ৯৫ গ্রাম, ময়দা ১৪০ গ্রাম। 

Advertisement

বাটার ক্রিমের উপকরণ: সল্টেড বাটার ১০০ গ্রাম, হোয়াইট বা আনসল্টেড বাটার ১০০ গ্রাম, ডিম ৩ টি, চিনি ৭৫ গ্রাম।

খোয়ার উপকরণ: খোয়া ক্ষীর ১ কিলোগ্রাম, চিনি ২৫০ গ্রাম, কর্নফ্লাওয়ার ২০০ গ্রাম।

পদ্ধতি: ডিম ও চিনি খুব ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে। ফুলে উঠলে ধীরে ধীরে ময়দা মেশাতে হবে। তার পর ২১০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ৭ মিনিট বেক করে নিন। আভেন থেকে বার করে কেকটা ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করতে হবে। এ দিকে তৈির করে নিন বাটারক্রিম। দু’রকম বাটার একসঙ্গে মিশিয়ে একটি পাত্রে রাখতে হবে। তার পর ডিম আর চিনি একসঙ্গে হ্যান্ড ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটা যখন ফুলে উঠবে, তখন ডিম ও চিনির মিশ্রণটি ধীরে ধীরে বাটারের সঙ্গে মেশাতে হবে। কেকটি ঠান্ডা হয়ে জমাট বাঁধলে ফ্রিজ থেকে বার করে পাশ থেকে মাঝ বরাবর অর্থাৎ ভিতর দিয়ে কেটে দু’ভাগ করে নিন। এ বার লেয়ারিংয়ের পালা। কেক মাঝখান থেকে অর্ধেক করার পর চিনির সিরাপ (কেনা সিরাপ ব্যবহার করতে পারেন) ব্রাশে করে কেকের উপরে বুলিয়ে দিন। তার পর বাটার ক্রিম ছুরিতে করে নিয়ে, চিনির সিরাপের উপরে সমান ভাবে লাগিয়ে দিতে হবে। এর উপরে কেকের বাকি অংশটুকু বসিয়ে আবার চিনির সিরাপ বুলিয়ে দিন, যাতে কেকটি খেতে শুকনো না লাগে। এ বার বাটার ক্রিম ছুরিতে করে নিয়ে পুরো কেকের গায়ে মাখিয়ে দিতে হবে। জমানোর জন্য কেকটিকে আধ ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। সেট হয়ে গেলে, কেকটি শঙ্খের আকারে কেটে নিন। বাইরেটা তৈরি করতে হবে খোয়া ক্ষীর দিয়ে।

কড়াইয়ে চিনি দিয়ে তার মধ্যে মাখন বা জল দিন। খোয়া ক্ষীর হাতে নিয়ে গুঁড়ো গুঁড়ো করে নিতে হবে। কড়াইয়ে চিনি গলে গেলে সাদা থাকতে থাকতে তাকে খোয়া ক্ষীরের সঙ্গে মিশিয়ে দিন। একটা পেস্টের মতো তৈরি হবে। এটিকে টাইট করার জন্য এর মধ্যে কর্নফ্লাওয়ার মেশান। তার পর ডো কেটে লুচির মতো বেলে নিন। ছাপ তোলার জন্য খোয়া ক্ষীরের এই মিশ্রণটিকে শঙ্খের ছাঁচের (বিভিন্ন আকারের ছাঁচ বাজারে কিনতে পাওয়া যায়) উপরে বসাতে হবে। কিছুক্ষণ রেখে তুলে নিন। যে শেপের কেক-মিষ্টি আপনি চান, সেই ছাঁচের উপরে বসালে তেমন আকার পাওয়া যাবে। তৈরি করা শঙ্খের ছাঁচটিকে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রাখুন, যাতে তা শক্ত হয়। এ বার শঙ্খের শেপে যে কেকটি আপনি কেটে রেখেছিলেন, তার উপরে এটি বসিয়ে দিন। আপনার কেক রেডি।

 

দইয়ের ভাঁড়ে কেকের ম্যাজিক 

এই কেকটির বেসও ভ্যানিলা স্পঞ্জ কেক। কী ভাবে কেকটি তৈরি করবেন, তা আগেই বলা হয়েছে। তবে দইয়ের ভাঁড়ের মতো দেখতে এই কেকটির উচ্চতা বেশি হওয়া প্রয়োজন। কারণ এখানে তিন থেকে অন্তত চারটি লেয়ারিং থাকবে। তাই এক পাউন্ডের দুটো স্পঞ্জ কেক তৈরি করে নিতে হবে। তার পর চিনির সিরাপ এবং বাটারক্রিম আগের কেকটির মতোই এ ক্ষেত্রেও কেকের উপরে মাখিয়ে নিতে হবে। বাটারক্রিম সেট হয়ে কেকটা যখন একটু শক্ত হয়ে যাবে, তখন দইয়ের ভাঁড়ের শেপে কেকটি কেটে নিন। দইয়ের ভাঁড় তৈরির জন্য খয়েরি ও সাদা রঙের ফনড্যান্ট কিনতে হবে। প্রথমে খয়েরি ফনড্যান্ট পাতলা করে বেলে নিন। তার পর 

ভাঁড়ের শেপে কেটে রাখা কেকের গায়ে জড়িয়ে দিন। ভাঁড় তৈরি হয়ে গেল। এ বার দইয়ের পালা। সাদা ফনড্যান্ট বেলে নিয়ে তাকে ভাঁড়ের মাথায় বসিয়ে দিন, দইয়ের মতো। গায়ে একটু গলানো বাটার ব্রাশ করে দিতে পারেন, কেকটি বেশ লোভনীয় দেখাবে।

 

মাছ-মিষ্টির সাক্ষাৎ

বাটারস্কচ কেক দিয়ে এটি ৈতরি করা হয়েছে।

কেকের উপকরণ: ডিম ৫টি, চিনি ৯৫ গ্রাম, ময়দা ১৪০ গ্রাম, বাটারস্কচ পরিমাণ মতো। 

পদ্ধতি: এ ক্ষেত্রেও প্রথমে ভ্যানিলা স্পঞ্জ কেক তৈরি করে নিতে হবে। তার পর মাঝখান থেকে কেটে দু’ভাগ করুন। সুগার সিরাপ ব্রাশ করে হোয়াইট বাটার ক্রিম মাখিয়ে এর উপরে ছড়িয়ে দিন বাটারস্কচ (এটি দোকান থেকে কিনে নিতে পারেন)। এর উপরে কেকের বাকি অর্ধেকটা রেখে, পুরো কেকের গায়ে বাটারক্রিম মাখিয়ে দিন। চাইলে কেকের উপরেও বাটারস্কচ ছড়িয়ে দেওয়া যায়। তার পর কেক ফ্রিজে রেখে জমাট বাঁধতে দিন। কিছুক্ষণ পর বার করে মাছের শেপে কেটে নিন। এর উপরে খোয়া ক্ষীর দিয়ে মাছ তৈরি করে বসিয়ে দিন (পূর্বলিখিত পদ্ধতি অনুসারে)। 

 

চকলেট প্রজাপতি  

এটি চকলেট স্পঞ্জ কেক দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। 

উপকরণ: ডিম ৫টি, চিনি ৯০ গ্রাম, ময়দা ৭৫ গ্রাম, কোকো পাউডার ৩৫ গ্রাম, ট্রাফল সস ১৫০ গ্রাম। সময় ও তাপমাত্রা এক থাকবে। 

পদ্ধতি: ডিম ও চিনি ভাল করে ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নিন। ফুলে উঠলে ধীরে ধীরে ময়দা ও কোকো পাউডার এর মধ্যে মেশাতে থাকুন। পুরোটা একবারে মিশিয়ে দেবেন না। আরও সুস্বাদু করতে চাইলে ভিতরে কিছু চকলেট চিপসও দিতে পারেন। আগের কেকগুলির মতোই এই কেকটিকে দু’ভাগ করে চিনির সিরাপ মাখিয়ে নিন। এ বার বাটার ক্রিমের সঙ্গে চকলেট ট্রাফল সস মিশিয়ে কেকের গায়ে ব্রাশ করে নেবেন। ফ্রিজে রেখে কেক শক্ত হয়ে গেলে বার করে প্রজাপতির শেপে কেটে নিতে হবে। তার পর খোয়া ক্ষীর দিয়ে প্রজাপতি বানিয়ে কেকের উপরে বসিয়ে দিন।   

 

লাড্ডুর কেরামতি

এটিও চকলেট স্পঞ্জ কেক দিয়ে তৈরি করতে হবে। উপকরণও আগের মতোই ব্যবহার করুন। এ ক্ষেত্রেও দইয়ের ভাঁড়ের মতো একটু লম্বা কেক তৈরি করতে হবে, যাতে চারটি লেয়ার পাওয়া যায়। বাটার ক্রিম ব্রাশ করে কেকটি ফ্রিজে সেট হতে রেখে দিন। আধ ঘণ্টা পরে বার করে ধারালো ছুরি দিয়ে মাঝখান থেকে গোল করে কেটে নিন। তলার দিকটা অবশ্যই গোল হবে না, বসে থাকবে। এ বার হলুদ ফনড্যান্ট একদম ছোট্ট ছোট্ট পিসে কেটে নিতে হবে (চাইলে হলুদ ফনড্যান্টের সঙ্গে কমলা রঙের ফুডকালার মিশিয়ে নিতে পারেন)। তার পর পিসগুলোকে আঙুল দিয়ে গোল করে দানার মতো শেপ দিয়ে কেকের গায়ে বসিয়ে দিন। শেষে গলানো মাখন লাড্ডুর গায়ে ব্রাশ করে দিলে তা দেখতে ও খেতে আরও ভাল লাগবে।

ছবি: দেবর্ষি সরকার

 

Advertisement