মনপসন্দ ম্যাঙ্গো আইসক্রিমেই জমে যাক শেষপাত, রইল রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন
মনপসন্দ ম্যাঙ্গো আইসক্রিমেই জমে যাক শেষপাত, রইল রেসিপি

শোনা যায় কুবলাই খানের লোকজন ঠেলাগাড়ি করে জমাট দুধের খাবার বিক্রি করত। ইতালীয় পর্যটক মার্কোপোলো সেই খাবার খেয়ে উচ্ছ্বসিত হন এবং সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেন সেই মহার্ঘ্য খাবার।

এই কিংবদন্তির সত্যতা যাচাই করার কোনও উপায় আমাদের কাছে নেই। তবে পাগল করা গরমের দুপুরে আইসক্রিমওয়ালার হাঁকে মন অস্থির হয় না, এমন বাঙালি কম রয়েছে।

অনেকে আবার আইসক্রিমের খোঁজে ভিড় জমাতে ভালবাসেন আইসক্রিম পার্লারে। তবে একঘেয়ে একই ব্র্যান্ডের আইসক্রিমে মন না বসলে , এই ছুটিতে নিজেই বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন আইসক্রিম। যে সহজ রেসিপিতেই চমকে দিতে পারেন প্রিয়জনকে, রইল তারই রেসিপির সুলুকসন্ধান।

আরও পড়ুন: ভ্যাপসা গরমে এসি রেস্তরাঁয় পান্তাভাত! আর কী কী সঙ্গে?

ম্যাঙ্গো আইসক্রিম

উপকরণ:

এক কাপ দুধ

তিন কাপ ক্রিম

এক কাপ ম্যাঙ্গো পিউরি

এক কাপ আম (টুকরো করা)

এক টেবিল চামচ কাস্টার্ড পাউডার

এক টেবিল চামচ ভ্যানিলা

এক কাপ চিনি

আরও পড়ুন: ‘হা’ বললে ‘হালিম’ বোঝেন! কেন কলকাতায় জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এই পদ জানেন?

বাড়িতে বানানো আমের আইসক্রিমেই মন জয় করুন অতিথির।

প্রণালী: অল্প দুধে কাস্টার্ড পাউডার গুলে আলাদা রেখে দিন। বাকি দুধটা চিনি মিশিয়ে ভাল করে ফোটান। ফুটন্ত দুধে কাস্টার্ড পাউডারের মিশ্রণ ঢেলে দিন। ভাল করে নেড়ে আঁচ থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করতে দিন। এবার তার মধ্যে ম্যাঙ্গো পিউরি, আমের টুকরো, ক্রিম আর ভ্যানিলা মিশিয়ে নিন। এয়ারটাইট পাত্রে পুরো মিশ্রণটা ঢেলে ফ্রিজে রেখে দিন।

কিছু ক্ষণ পর বার করে হ্যান্ড মিক্সার দিয়ে ঘেঁটে নিয়ে আবার ফ্রিজে রাখুন। খেয়াল রাখবেন, যাতে পাত্রের ঢাকনা খুব ভাল করে আটকানো থাকে। না হলে বরফকুচি জমতে পারে। কিছু ক্ষণ পর আরও একবার ফ্রিজ থেকে বার করে মিক্সারে ফেলুন। একই ভাবে মিক্সার দিয়ে ঘেঁটে নিয়ে আবার ফ্রিজে রাখুন। বার তিনেক এমন করুন। এটা যত করবেন, আইসক্রিম তত নরম হবে। পরিবেশন করার আগে উপর থেকে আমের কুচি আর ম্যাঙ্গো সিরাপ ছড়িয়ে নিন।