বাড়বে রোগ প্রতিরোধ শক্তি, এই স্মুদি বানান কয়েক মিনিটে

সুমা বন্দ্যোপাধ্যায়
বাড়বে রোগ প্রতিরোধ শক্তি, এই স্মুদি বানান কয়েক মিনিটে

আধাচেনা শত্রু করোনার সঙ্গে লড়াইয়ের এক হাতিয়ার নানা খাবার। চিকিৎসকদের মত, পুষ্টিকর খাবার খেয়ে রোগ প্রতিরোধের শক্ত পাঁচিল খাড়া করুন। তাহলে কোভিড-১৯ ভাইরাস চট করে আক্রমণ করতে পারবে না। শ্রাবণের ঘনঘটায় ইলিশের সঙ্গী আম আর আনারস। এই ফলে ভিটামিন সি সহ অন্যান্য অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে নানান জীবাণুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে।

ডায়েটিশিয়ান ইন্দ্রাণী ঘোষের মত, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি_৬, সামান্য পরিমাণে ভিটামিন কে, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেশিয়াম, জিঙ্কে ভরপুর আনারস সপ্তাহে দুতিন দিন খাবারের তালিকায় রাখলে ইমিউন সিস্টেম জোরদার তো হবেই, তার সঙ্গে পেটের গোলমাল কমে হজম ক্ষমতা বাড়বে। একই সঙ্গে আনারস খেলে কো-মর্বিডিটি অর্থাৎ ওবেসিটি, ডায়াবিটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও হার্টের অসুখ নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে।

অনেকেরই আবার আনারস না পসন্দ। মুখ বদলানোর পাশাপাশি ইমিউনিটি বাড়াতে আনারসের জুড়ি নেই। ইন্দ্রাণী দেবীর পরামর্শ হবু মা আর আনারসে অ্যালার্জি আছে এমন মানুষ ছাড়া ছাড়া প্রত্যেকেরই এই ফলটি খাওয়া দরকার। আনারসের এই অন্যরকম রেসিপি শেখালেন মেঘ বন্দ্যোপাধ্যায়।

স্বচ্ছ কাঁচের গ্লাসে ঘন সোনালি রঙা আনারসের স্মুদি পুদিনা বা বেসিল দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করলে আনারসের টুকরো দেখে নাক কুঁচকে থাকা বাচ্চা থেকে বাড়ির প্রবীণ সদস্যও এক চুমুকে নিঃশেষ করে ফেলবেন।জিরে, আদা, বেসিল এবং গোলমরিচও আমাদের শরীরের জন্য ভাল। এই স্মুদিতে ব্যবহার হয়েছে এই উপকরণগুলিও।

আরও পড়ুন: বাজারে মিলছে দেদার, করোনা আবহে এই ফল খেতে ভুলবেন না

ঘন সোনালি রঙা আনারসের স্মুদি পান করলে মনও ভাল হবে, বাড়বে রোগ প্রতিরোধশক্তিও। ছবি: শাটারস্টক

উপকরণ

(মাঝারি দু গ্লাসের জন্য)

আনারসের টুকরো – ২ কাপ,

বাড়িতে পাতা টক দই – ১ কাপ,

জিরে – ১ চা চামচ,

গোলমরিচ – ১/২ চা চামচ,

আদা – ১ টুকরো

বিট নুন – ১/২ চামচ,

দরকার হলে সামান্য বরফের কুচি, মধু,

সাজানোর জন্যে – বেসিল ও আনারসের টুকরো

প্রণালী: আনারসের টুকরো, আদা, জিরে ও গোলমরিচ একসঙ্গে মিক্সির জুস মোডে দিয়ে মসৃণ করে পিষে নিন। এবারে দই দিয়ে আর একবার মিক্সি চালিয়ে নিন। গ্লাসে ঢেলে বরফের টুকরো (নাও দিতে পারেন) ও বেসিল সাজিয়ে পরিবেশন করুন। আনারস টক হলে অল্প মধু মিশিয়ে নিতে পারেন।