ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি সিরিজে এখনও পর্যন্ত একটা বলও হয়নি। কিন্তু তার মধ্যেই আলোচনায় উঠে এসেছে ঋষভ পন্থের নাম। যাবতীয় নজর এখন এই তরুণ ক্রিকেটারের উপরেই। 

আগের দিন বিরাট কোহালি কড়া বার্তা দিয়েছিলেন দলের তরুণ প্রজন্মকে। ভারত অধিনায়ক বলেছিলেন, পরের বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে নিজেদের প্রমাণ করতে হবে। এ বার ভারতীয় দল পরিচালন সমিতির পক্ষ থেকে আরও একটা বার্তা গেল দলের তরুণ ক্রিকেটারদের কাছে— ভয়ডরহীন ক্রিকেট এবং হাল্কা চালে ক্রিকেটের মধ্যে তফাতটা বুঝতে হবে। মনে করা হচ্ছে, যে বার্তার প্রধান লক্ষ্য পন্থই। 

আজ, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ মোহালিতে। বৃষ্টির কারণে ধর্মশালায় প্রথম ম্যাচ হয়নি। তবে মোহালিতে ম্যাচ হওয়ারই যথেষ্ট সম্ভাবনা। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, বৃষ্টির আশঙ্কা নেই। আর ক্রিকেটীয় পূর্বাভাস হল, মোহালির বাইশ গজে প্রচুর রান উঠবে। 

আর সে কারণেই সম্ভবত আরও বেশি করে বার্তাটা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে তরুণ ক্রিকেটারদের কাছে— ‘ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতেই পারো, কিন্তু তার মানে এই নয় যে উইকেট ছুড়ে দিয়ে আসবে।’ মঙ্গলবার মোহালিতে সাংবাদিক বৈঠকে এসে ভারতের নতুন ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠৌর বলে যান, ‘‘মাঝে মাঝে আমরা টেকনিক নিয়ে বড্ড বেশি মাথা ঘামাই। এই পর্যায়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল মানসিকতা। তরুণদের বুঝতে হবে ভয়ডরহীন ক্রিকেট মানেই যা ইচ্ছা তাই করা নয়।’’

পন্থকে যদিও ‘নতুন’দের তালিকায় আর ফেলা যায় না, কিন্তু তার উপরেই নজরটা থাকছে বেশি করে। একে তো মহেন্দ্র সিংহ ধোনির উত্তরসূরি হয়ে ওঠার চাপ। পাশাপাশি তাঁর বিরুদ্ধে উইকেট ছুড়ে দেওয়ার অভিযোগও উঠছে ক্রমাগত। এমনকি সম্প্রচারকারী চ্যানেলের সঙ্গে চ্যাট শোয়ে কোচ রবি শাস্ত্রী পরিষ্কার বুঝিয়ে দিয়েছেন, পন্থ উইকেট ছুড়ে দিয়ে এলে ২১ বছর বয়সি ক্রিকেটারের কপালে কড়া তিরস্কারই জুটবে। শাস্ত্রী তো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের একটি ম্যাচের কথা তুলে বলেই দিয়েছেন, ‘‘ত্রিনিদাদে যে ভাবে প্রথম বলে উইকেট ছুড়ে দিয়ে চলে এসেছিল পন্থ, সে রকম আবার করলে কড়া ভাষায় ওর ভুল শুধরে দিতে হবে।’’ তাঁর উপরে যে চাপ বাড়ছে, সেটা বুঝতে পেরেই সম্ভবত ধর্মশালা থেকে মোহালি পৌঁছেই অনুশীলনে নেমে পড়েছিলেন পন্থ। 

দলের তরুণ উইকেটকিপারকে নিয়ে মুখ খুলেছেন রাঠৌরও। তিনি বলেন, ‘‘আমরা চাই পন্থ ওর স্বাভাবিক খেলা খেলুক। সব রকম শট নিক। যেটা ওর বিশেষত্ব। কিন্তু পাশাপাশি এটাও মাথায় রাখতে হবে, হাল্কা মেজাজে ব্যাট করলে হবে না।’’ রাঠৌরের পরিষ্কার কথা, সবাইকে দলের গেমপ্ল্যানটা বুঝতে হবে। ‘‘দলের ছকটা কী, সেটা সম্পর্কে একটা পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে। এবং, সেই অনুযায়ী খেলতে হবে,’’ বলেছেন নতুন ব্যাটিং কোচ।

কোহালি আগের দিন মন্তব্য করেছিলেন, তরুণ ক্রিকেটারেরা যেন মনে রাখেন নিজেদের প্রমাণ করার জন্য আন্তর্জাতিক মঞ্চে পাঁচটির বেশি সুযোগ পাওয়া যাবে না। এ দিন এই নিয়ে রাঠৌরকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘ওরা পাঁচ ম্যাচের কথা বলেছে ঠিকই, কিন্তু ওই ভাবে কোনও বিশেষ সংখ্যা বেঁধে দেওয়া যায় না। কোহালি-শাস্ত্রী আসলে বোঝাতে চেয়েছিল, যা সুযোগ আসবে, সেটাই কাজে লাগাতে হবে। তবে এতে চাপের কিছু নেই। দল সব সময় তরুণ ক্রিকেটারদের পাশেই থাকবে।’’

ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি (সন্ধে ৭.০০, স্টার স্পোর্টস নেটওয়ার্কে)।