• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

একটা ঘুসিতে তোমার কেরিয়ার শেষ করে দেব, স্টিভ ওয়-কে বলেন অ্যামব্রোজ

ambrose
সেই বিতর্কিত মুহূর্ত। ওয়-র দিকে তেড়ে যাচ্ছেন অ্যামব্রোজ। তাঁকে শান্ত করার চেষ্টায় রিচার্ডসন। ছবি— টুইটার।

বাউন্সার বা বিমার নয়, এক ঘুসিতে স্টিভ ওয়-র কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন ক্যারিবিয়ান পেসার কার্টলি অ্যামব্রোজ। ১৫ বছর আগে ত্রিনিদাদে অনুষ্ঠিত ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ম্যাচে অ্যামব্রোজের রুদ্রমূর্তি দেখেছিল ক্রিকেটবিশ্ব।

ওয়াকে লক্ষ্য করে একের পর এক বাউন্সার দিচ্ছিলেন অ্যামব্রোজ। এখানেই শেষ নয়। প্রাক্তন অজি অধিনায়কের দিকে তেড়ে আসতেও দেখা গিয়েছিল তাঁকে। সেই সময়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক রিচি রিচার্ডসন কোনওরকমে সামলান ক্রুদ্ধ অ্যামব্রোজকে।

শান্ত স্বভাব বলে ক্রিকেট মাঠে পরিচিত ক্যরিবিয়ান পেসার। সে দিন কেন মেজাজ হারিয়েছিলেন অ্যামব্রোজ? কেন তেড়ে গিয়েছিলেন ওয়-র দিকে? ইয়ান বিশপের সঙ্গে কথা বলার সময়ে সেই রহস্য ফাঁস করেন ‘লিটল বার্ড’ বলে পরিচিত ক্যারিবিয়ান পেসার। সেই টেস্টের ঘটনার কথা উল্লেখ করে অ্যামব্রোজ বলেন, ‘‘বহু বছর ধরে স্টিভ ওয় ও আমার মধ্যে লড়াই ছিল। প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে খুব কঠিন ও। স্টিভকে আমি শ্রদ্ধা করি। কিন্তু ওই ম্যাচটায় স্টিভ আমাকে উদ্দেশ করে কিছু বলেছিল, যা আমার ভাল লাগেনি।’’

আরও পড়ুন: করোনা-প্রভাব: যেন শূন্য থেকে শুরু, মনে হচ্ছে মেসির

প্রথমটায় অ্যামব্রোজ কিছু বলেননি। এড়িয়ে গিয়েছিলেন। পরে অ্যামব্রোজ অজি তারকাকে উদ্দেশ করে জিজ্ঞাসা করেন, ‘‘তুমি কি আমাকে কিছু বললে?’’ জবাবে ওয় হ্যাঁ বা না কিছুই বলেননি। অ্যামব্রোজ বলছেন, ‘‘ওয় আমাক বলে, আমার যা ইচ্ছা, তাই বলতে পারি। ওয়র কথা আমার ভাল লাগেনি। আমি ভেবেছিলাম, আমার আরও শ্রদ্ধা পাওয়া উচিত ছিল। ফলে আমিও বেছে বেছে কিছু বলি ওয়কে।’’

অ্যামব্রোজকে তেড়ে যেতেও দেখা যায়। ওয়কে তিনি বলেছিলেন, ‘‘আমার ক্রিকেট কেরিয়ার এই মুহূর্তেই শেষ হয়ে যেতে পারে। তাতে আমার কিছু যায় আসে না। তবে একটা ঘুসি মেরে তোমার কেরিয়ার আমি শেষ করে দিতে পারি। আর তুমি কোনওদিনও খেলতেই পারবে না।’’

মাঠের লড়াই মাঠেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। সেই ঘটনার পরেও ওয়র সঙ্গে অ্যামব্রোজের দেখা হয়েছিল কিন্তু সেই বিতর্কিত অধ্যায় নিয়ে কেউই কোনও কথা বলেননি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন