সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে ২-১ ফলে পরাজিত হলেও, সিরিজের শেষ টেস্টে সেন্ট লুসিয়ায় বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড দল। কিন্তু সেন্ট লুসিয়া টেস্টে ইংল্যান্ডের জয়ের থেকেও বেশি আলোচনা হচ্ছে ক্যারিবিয়ান পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের সমকামী মন্তব্য নিয়ে। ইংল্যান্ড অধিনায়কের সঙ্গে কথা কাটাকাটি এবং সেই প্রেক্ষিতে ‘গে’ বলে অপমান করায় আইসিসির শাস্তির মুখে এখন গ্যাব্রিয়েল।

সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিনে গ্যাব্রিয়েলের সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েন ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান রুট ও জো ডেনলি। তখনই গ্যাব্রিয়েল রুটকে ‘সমকামী’ বলে মন্তব্য করেন। পরে শতরান করবার পরে গ্যাব্রিয়েলকে রুট বলেন যে সমকামী হওয়া দোষের কিছু নয়, তাই এই নিয়ে কাউকে কথা শোনানোর মানে হয় না। স্টাম্প মাইকে ধরা পড়ে এই কথা।

নিজেদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে আইসিসি জানিয়েছে, আইসিসি-র ধারার ২.১৩ আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছেন গ্যাব্রিয়েল। এই ধারা অনুযায়ী অপমানজনক ভাষা, অশ্লীল মন্তব্য অথবা আক্রমণাত্মক বিষয়গুলি আলোচিত হয়। এই ব্যাপারে রুট ও ইংল্যান্ড দলের তরফে কোনও অভিযোগ না করা হলেও ম্যাচের দুই আম্পায়ার রড টাকার ও কুমার ধর্মসেনা ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রোয়ের কাছে এই ব্যাপারে অভিযোগ করেন। দুই আম্পায়ারের অভিযোগের ভিত্তিতেই শাস্তির দাবি জোরালো হয় গ্যাব্রিয়েলের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন: স্ট্যাম্প মাইকের ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন তুলে সমালোচিত প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার

শাস্তি হিসাবে গ্যাব্রিয়েলের ম্যাচ ফি’র ৭৫ শতাংশ কেটে নেওয়া হয়েছে। তার সঙ্গেই ৩টি ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হয়েছে গ্যাব্রিয়েলের বিরুদ্ধে৷ এর ফলে গ্যাব্রিয়েলের মোট ডিমেরিট পয়েন্ট হয় আট। এর ফলে শাস্তি হিসেবে তাঁকে চারটি ওয়ান ডে অথবা একটি টেস্টে নির্বাসিত করতে পারত আইসিসি। ম্যাচের শেষে নিজের দোষ স্বীকার করে নিলেও, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজের প্রথম চারটি ম্যাচে তিনি মাঠে নামতে পারবেন না তিনি৷

আরও পড়ুন: হোল্ডারের লক্ষ্য বিশ্বসেরা হওয়া