• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অনুষ্ঠানে এলেন না সিআর সেভেন

রোনাল্ডোকে টপকে দুরন্ত মেসির ষষ্ঠ ব্যালন ডি’ওর জয়

Messi
তৃপ্ত: ব্যালন ডি’ওর পুরস্কার নিয়ে মেসি। সোমবার প্যারিসে। —ছবি এএফপি।

Advertisement

আতলেতিকো দে মাদ্রিদ ০    •    বার্সেলোনা ১

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকে প্যারিসে জমকালো অনুষ্ঠানে না দেখেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল, লিয়োনেল মেসি তাঁকে টপকে যাবেন সেটা চোখের সামনে দেখতে পারবেন না বলেই কি সোমবারের ব্যালন ডি’ওর অনুষ্ঠান এড়িয়ে গেলেন পর্তুগাল তারকা। 

ফিফার বর্ষসেরা হওয়ার পরে এ বারের ব্যালন ডি’ওরেও অনেকেই এগিয়ে রেখেছিলেন মেসিকে। আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি প্রত্যাশা মতোই ষষ্ঠ বার এই সম্মান জিতলেন। দ্বিতীয় ভার্জিল ফান ডাইক, তৃতীয় রোনাল্ডো। মহিলাদের বিভাগে বর্ষসেরা হলেন বিশ্বকাপ জয়ী মার্কিন তারকা মেগান র‌্যাপিনো। তিনিও অনুষ্ঠানে ছিলেন না। তবে উচ্ছ্বসিত মার্কিন ফুটবলার বার্তা পাঠান, ‘‘মাঠে এবং মাঠের বাইরে আজ আমি যা হয়ে উঠতে পেরেছি তার জন্য আমার সতীর্থরা, কোচ ও আমার ফেডারেশনকে ধন্যবাদ দেব। এ বছর ওখানে থাকতে পারলাম না। আগামী বছর নিশ্চয়ই চেষ্টা করব যাওয়ার।’’ বর্ষসেরা গোলকিপার হন ব্রাজিল ও লিভারপুলের তারকা অ্যালিসন বেকার।

রবিবার রাতে লা লিগায় আতলেতিকো দে মাদ্রিদের বিরুদ্ধে ম্যাচ শেষ হওয়ার চার মিনিট আগে আবার মেসি গোল করে বার্সেলোনাকে শুধু জেতালেনই না, নিয়ে গেলেন লিগ টেবলের শীর্ষ স্থানেও। শনিবার রাতে আলাভেসকে হারিয়ে লা লিগা টেবলের এক নম্বরে উঠে এসেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। শীর্ষ স্থান পুনরুদ্ধারের জন্য আতলেতিকো দে মাদ্রিদের বিরুদ্ধে জিততেই হত বার্সেলোনাকে। কিন্তু প্রথমার্ধ শেষ হল গোলশূন্য ভাবে। দ্বিতীয়ার্ধেও এক ছবি। এই ম্যাচে জয়ের স্বপ্ন যে অধরাই থাকবে, ধরে নিয়েছিলেন বার্সেলোনা সমর্থকেরা। ম্যাচ শেষ হওয়ার মিনিট চারেক আগে নাটকীয় ভাবে ছবিটা বদলে দিলেন সেই মেসি। সতীর্থ লুইস সুয়ারেসের সঙ্গে পাস খেলতে খেলতে বিপক্ষের পেনাল্টি বক্সের সামনে পৌঁছে যান তিনি। তার পরে ঠান্ডা মাথায় বল জালে জড়িয়ে দেন মেসি। 

মরিয়া ম্যান সিটি:  গত মরসুমে ৯৮ পয়েন্ট অর্জন করে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জিতে ফুটবল বিশ্বকে চমকে দিয়েছিল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। কিন্তু এই মরসুমে ছবিটা সম্পূর্ণ উল্টো। আগের ম্যাচে নিউ ক্যাসল ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে ড্র করে খেতাবি দৌড়ে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছেন সের্খিয়ো আগুয়েরোরা। এই মুহূর্তে ১৪ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ স্থানে লিভারপুল। সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে দ্বিতীয় স্থানে থাকা লেস্টার সিটির পয়েন্ট ৩২। তিন নম্বরে নেমে যাওয়া ম্যান সিটির পয়েন্ট ১৪ ম্যাচে ২৯। বার্নলির বিরুদ্ধে ম্যাচে তাই জিততে মরিয়া পেপ গুয়ার্দিওলার দল।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন