কলকাতা কার? তার নির্ধারণ হল না রবিবার। নাটকীয় রবিবারেও যবনিকা পড়ল না কলকাতা লিগের। ঝুলে রইল লিগের ভাগ্যও।

এ দিন ইস্টবেঙ্গল, পিয়ারলেস ও মোহনবাগান— এই তিন দলেরই ম্যাচ ছিল। রবিবার সকাল থেকেই শহরে বৃষ্টি। মাঠে জল জমে যাওয়ার জন্য ইস্টবেঙ্গল মাঠে বল গড়াল না। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পরে বাতিল হয়ে গেল ইস্টবেঙ্গল-কলকাতা কাস্টমস ম্যাচ। অন্য দিকে, বারাসতে আনসুমানা ক্রোমার জোড়া গোলে পিয়ারলেস ২-০ হারায় জর্জ টেলিগ্রাফকে। নিজেদের মাঠে মোহনবাগান আবার ৩-০ মাটি ধরায় কালীঘাট এমএস-কে।

পিয়ারলেস এ দিন জেতায় লিগ জয়ের দৌড়ে আরও জোরালো জায়গায় পৌঁছে গেল। অন্য দিকে ম্যাচ বাতিল হওয়ায় ইস্টবেঙ্গলও পেয়ে গেল বাড়তি সুবিধা। কাস্টমসকে ৭-০ গোলে হারালেই ৪০ বার কলকাতা লিগ জিতবে লাল-হলুদ ব্রিগেড।  লাল-হলুদ ব্রিগেড আগাম জেনে নিল তাদের লিগ জেতার সমীকরণ।

আরও পড়ুন: অবিশ্বাস্য! এই তারকা বোলাররা কখনও ইনিংসে পাঁচ উইকেট পাননি

ঘরের মাঠে প্রিয় দলের জয় দেখার জন্য এ দিন ভিড় জমিয়েছিলেন লাল-হলুদ ভক্তরা। তাঁদের শরীর ইস্টবেঙ্গল মাঠে। কিন্তু, মন পড়েছিল  বারাসতে। কারণ পিয়ারলেস যদি পয়েন্ট নষ্ট করতো এবং ইস্টবেঙ্গল জিতত, তা হলে এ দিনই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেত লাল-হলুদ ক্লাব। শেষ মেশ ইস্টবেঙ্গল মাঠে খেলাই হল না। মাঠের দু’ প্রান্তের কর্নার ফ্ল্যাগের কাছে জমেছিল জল। দফায় দফায় রেফারি-ম্যাচ কমিশনার মাঠ পর্যবেক্ষণ করেন।

আরও পড়ুন: নেপালের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে প্রথম সেঞ্চুরি কে করলেন জানেন?

কর্নার ফ্ল্যাগের সামনে জমে থাকা জলের ছবিও তোলা হল। প্রায় ঘন্টা দেড়েক পরে রেফারি জানিয়ে দেন ইস্টবেঙ্গল-কাস্টমস ম্যাচ বাতিল। দর্শকরাও হতাশ হয়ে গ্যালারি ছাড়েন।  উৎসাহের অভাব ছিল না তাঁদের মনে। প্রিয় দলের উপরে ছিল অগাধ আস্থা। লিগ জেতার সমীকরণ পাহাড় ডিঙনোর মতো হলেও লাল-হলুদ ভক্তদের বিশ্বাস ছিল মেনেন্দেজের ছেলেরা লিগ ছিনিয়ে নেবেন। কিন্তু, তাঁদের সেই আস্থা-উৎসাহে জল ঢেলে দিল প্রকৃতি।