• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বুমরার ফিটনেস পরীক্ষা নিয়ে বিতর্ক

দ্রাবিড়ের সঙ্গে আলোচনা করে মেটাতে চান সৌরভ

Bumrah
চর্চায়: বুমরার সিদ্ধান্তে খুশি নন এনসিএ আধিকারিকরা। ফাইল চিত্র

Advertisement

যশপ্রীত বুমরার ফিটনেস পরীক্ষা নিয়ে তৈরি হওয়া বিতর্কে মুখ খুললেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বলে দিলেন, এ ব্যাপারে তিনি কথা বলবেন প্রাক্তন সতীর্থ রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে। 

দ্রাবিড় এখন জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রধান। সংবাদমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে, বুমরার ফিটনেস পরীক্ষা জাতীয় অ্যাকাডেমিতে করতে চাননি রাহুল এবং অ্যাকাডেমির পরিচালকেরা। তার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, বুমরা চোট পাওয়ার পরে রিহ্যাব করার জন্য জাতীয় অ্যাকাডেমিতে না গিয়ে ব্যক্তিগত ভাবে অন্য ফিজিয়োর কাছে গিয়েছিলেন। তাতে মোটেও প্রসন্ন নন রাহুল এবং এনসিএ কর্তারা। 

খবর হচ্ছে, এর জেরেই বুমরাকে বলে দেওয়া হয়েছে, যে-হেতু তিনি জাতীয় অ্যাকাডেমিতে না এসে নিজের উদ্যোগে অন্য ফিজিয়োদের কাছে গিয়েছিলেন, তাঁর ফিটনেস পরীক্ষাও তাই অ্যাকাডেমিতে করা যাবে না। পরীক্ষার ব্যবস্থাও ব্যক্তিগত ফিজিয়োরা করুক। এ নিয়ে সৌরভকে এ দিন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘আমি রাহুলের সঙ্গে কথা বলব। তবে এনসিএ (জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমি) প্রত্যেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারের এক এবং একমাত্র জায়গা হিসেবেই বিবেচিত হবে।’’ যোগ করেন, ‘‘প্রত্যেক ক্রিকেটারকেই এনসিএ-র মাধ্যমে যেতে হবে।’’ 

জাতীয় অ্যাকাডেমি নিয়ে সম্প্রতি নানা কথা উঠলেও বোর্ড প্রেসিডেন্ট হয়ে বেঙ্গালুরুতে গিয়েছিলেন সৌরভ। দ্রাবিড়ের সঙ্গেও কথা বলেছিলেন। নতুন ভাবে অ্যাকাডেমিকে সাজিয়ে তোলারও চেষ্টা করছেন দুই প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। তবে ক্রিকেটারদের মধ্যে যে জাতীয় অ্যাকাডেমিতে কাজ করা পেশাদারদের যোগ্যতা নিয়ে ভাল রকম সংশয় রয়েছে, তা গোপন তথ্য নয়। সৌরভ যদিও বলছেন, ‘‘ঠিক জানি না কী ঘটেছে। রাহুলের সঙ্গে কথা বলব। সমস্যা কী, তা বুঝে নিয়ে নিশ্চয়ই সমাধান করতে পারব।’’ 

আরও পড়ুন: হাবিবের শহরে জয়ে ফেরার লড়াই এটিকের

বুমরার চোট নিয়ে সৌরভ বলেন, ‘‘আমি বাইরে থেকে যতটুকু জেনেছি, বুমরা বেশ কিছু সময় ধরেই চোট পেয়ে বাইরে আছে। আমি দু’মাস হল এসেছি। তার আগে সিস্টেমের অংশ ছিলাম না। কিন্তু আমাকে জিজ্ঞেস করলে বলব, এনসিএ ভারতীয় ক্রিকেটারদের জায়গা। সব কিছুই তার মাধ্যমে যাওয়া উচিত। আমি কথা বলে দেখব কী ঘটেছে।’’ 

বুমরা চোট পেয়ে মাঠের বাইরে চলে গিয়েছিলেন। সম্প্রতি তিনি ভারতীয় দলের নেটে বোলিং করেছেন এবং উপস্থিত সকলের মনে হয়েছে, প্রায় সম্পূর্ণ ফিটই হয়ে গিয়েছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, জাতীয় অ্যাকাডেমিতে রিহ্যাব করার ব্যাপারে খুব একটা আত্মবিশ্বাসী ছিলেন না বুমরা। সেই কারণেই ব্যক্তিগত স্তরে যোগাযোগ করে অন্য ফিজিয়োর কাছে যান। যে ফিজিয়োর কাছে বুমরা গিয়েছিলেন, তিনি আবার আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালসের সঙ্গে যুক্ত। যে ফ্র্যাঞ্চাইজিতে গত বছর মেন্টর হিসেবে ছিলেন সৌরভ। আবার রাহুল দ্রাবিড় পরিচালিত এনসিএ কর্তারা ভিতরে ভিতরে ফুঁসে উঠে বলছেন, ‘‘আমরা তো জানিই না বুমরার চোট কী ধরনের। আমাদের কাছে আসেইনি ও। এখন ফিট সার্টিফিকেট কী করে দেব?’’ 

আরও পড়ুন: বুমরার চোটের দিকে নজর রাখছেন মাহেলারা

সৌরভ পরিস্থিতি ঠান্ডা করার চেষ্টা করার মধ্যেও স্পষ্ট করে দেন, জাতীয় অ্যাকাডেমিকে উপেক্ষা করা চলবে না। বলেছেন, ‘‘সকলকে এনসিএ-র মাধ্যমে যেতে হবে। ওরা সারা বছর ধরে ক্রিকেট খেলে। আমরা দেখব, জাতীয় অ্যাকাডেমির ফিজিয়ো মুম্বই গিয়ে বুমরাকে দেখতে পারে কি না।’’ যোগ করছেন, ‘‘জাতীয় অ্যাকাডেমিতে যাতে সেরা পেশাদাররা থাকে, তা নিশ্চিত করব আমরা।’’ দ্রাবিড়কে নিয়ে তাঁর মন্তব্য, ‘‘অসাধারণ এক ক্রিকেটার ছিল। নিজেও আশাবাদী যে, অ্যাকাডেমিতে দারুণ কিছু হবে।’’  

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন