ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ককে টপকে গেলেন বর্তমান অধিনায়ক। ওয়ান ডে-তে রান সংগ্রাহকদের তালিকায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে পিছনে ফেলে বিরাট কোহালি উঠে এলেন অষ্টম স্থানে। 

ওয়ান ডে-র ৩০০ ইনিংসে সৌরভের রানসংখ্যা ১১,৩৬৩। যে রান সংখ্যা ২২৯তম ইনিংসেই টপকে গেলেন কোহালি। রবিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে পোর্ট অব স্পেনে ১২৫ বলে ১২০ রান করেন ভারত অধিনায়ক। ইনিংস শেষ করার পরে তাঁর মোট রান ১১, ৪০৬। ওয়ান ডে-তে ভারতীয় রান সংগ্রাহকদের তালিকায় সচিন তেন্ডুলকরের ঠিক নীচেই এখন জায়গা করে নিলেন কোহালি। ওয়ান ডে-র সর্বোচ্চ রানের শিখরে পৌঁছতে কোহালিকে এখন টপকাতে হবে সচিনের ১৮, ৪২৬ রানের গণ্ডি।

কোহালির এই কৃতিত্বের পরে রাতে সৌরভ নিজেই টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘‘ওয়ান ডে-তে আরও একটি অসাধারণ ইনিংস উপহার দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ বিরাট। সত্যি অপূর্ব।’’

এগারো ইনিংস পরে ওয়ান ডে-তে সেঞ্চুরি এল কোহালির ব্যাটে। চলতি বছরের মার্চ মাসে রাঁচীতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে শেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন কোহালি। তার পর এল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। ভারতের ইনিংস চলাকালীন শুরু হয় বৃষ্টি। প্রথম ওয়ান ডে-তে আবহাওয়াই কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ভারতের সামনে। এ ম্যাচেও সেই আতঙ্ক ফিরে আসে। সেই বিরতিতে কোহালির ইনিংসের প্রশংসা করে গেলেন সুনীল গাওস্কর। ‘লিটল মাস্টার’ বললেন, ‘‘ওয়ান ডে-র আদর্শ ব্যাটিং দেখলাম আজ। উইকেটের সব দিকে রান করেছে বিরাট। প্রায় ওপেনারের ভূমিকাই পালন করতে হয়েছে ওকে। শুরু থেকে উইকেটের সোজাসুজি খেলার প্রবণতা কত বড় আশীর্বাদ হয়ে উঠতে পারে তা বিরাটের ইনিংস দেখলেই বোঝা যায়।’’

গাওস্কর আরও বলেন, ‘‘ওশেন থমাসকে একেবারে জায়গায় বল করার সুযোগ দেয়নি বিরাট। সামান্য শর্ট বল হলেই পুল করেছে। ওর বিরুদ্ধে স্ট্রেট ড্রাইভ মেরেছে। মনে রাখতে হবে, এক জন পেসার সব চেয়ে অসম্মানিত হয় যদি তাকে কেউ স্ট্রেট ড্রাইভ করে।’’

কোহালি কীর্তি

• ওয়ান ডে-তে ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের অধিকারী (১১,৪০৬)। পিছনে ফেললেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে (১১,৩৬৩)। শীর্ষে সচিন তেন্ডুলকর (১৮,৪২৬)

• ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে তে সব চেয়ে বেশি রানের মালিক (২০৩২)। ২৬ বছর অক্ষত থাকা জাভেদ মিঁয়াদাদের (১৯৩০) রেকর্ড ভাঙলেন

• ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সব চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি (৮) তাঁর দখলে। দুই নম্বরে রয়েছেন হাশিম আমলা (৫)

• ওয়ান ডে সেঞ্চুরির তালিকায় তিনি দুই নম্বরে (৪২)। তাঁর সামনে এখন একমাত্র প্রতিপক্ষ সচিন তেন্ডুলকর (৪৯)

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন ফাস্ট বোলার ইয়ান বিশপও মুগ্ধ কোহালির এই ইনিংসে। তিনি টুইট করেন, ‘‘পাঁচটার বেশি হাফ সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছে, অথচ সেঞ্চুরি হয়নি, এ রকম পরিস্থিতি কোহালির জীবনে আগে আসেনি। এই ম্যাচে সে রকম একটা হওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। যদি সেঞ্চুরির আগে ফিরে যেত বিরাট। কিন্তু ওর ইনিংস দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, ৪২তম সেঞ্চুরিটা অবশ্যম্ভাবী। আধুনিক ওয়ান ডে ক্রিকেটের মাস্টারকে ব্যাট করতে দেখাটাও একটা সৌভাগ্যের ব্যাপার।’’

বিশ্বকাপে পরপর হাফসেঞ্চুরি করে গেলেও সেঞ্চুরি অধরা ছিল কোহালির। সেই সেঞ্চুরি এল পোর্ট অব স্পেনে। যা দেখে মুগ্ধ ক্রিকেট বিশ্বও। ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অফস্পিনার গ্রেম সোয়ান বলছিলেন, ‘‘অসাধারণ একটা ইনিংসের সাক্ষী থাকলাম। এই সেঞ্চুরিটা করার অপেক্ষাতেই যেন ছিল বিরাট।’’