Advertisement
২৮ নভেম্বর ২০২২
Ravindra Jadeja

Ravindra Jadeja: এজবাস্টনের শতরানে তৃপ্ত জাডেজা মুখ খুললেন আইপিএল বিতর্ক নিয়ে

আইপিএলের বিতর্ক মাথায় নেই জাডেজার। ভারতীয় দলের হয়ে নিজের সেরাটা দেওয়াই লক্ষ্য তাঁর। বিদেশের মাটিতে প্রথম টেস্ট শতরানে তৃপ্ত তিনি।

শতরান করে তৃপ্ত জাডেজা।

শতরান করে তৃপ্ত জাডেজা। ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৩ জুলাই ২০২২ ১২:৩৬
Share: Save:

আইপিএলের বিতর্ক থেকে ভারতীয় দলের রক্ষাকর্তা। মাত্র এক মাসেই বদলে গিয়েছে রবীন্দ্র জাডেজার দুনিয়া। ক্রিকেটীয় আলোচনায় উঠে এসেছে বিদেশের মাটিতে তাঁর প্রথম টেস্ট শতরান। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময়ে জবাব দিয়েছে জাডেজার ব্যাট।

Advertisement

এই মুহূর্তে ভারতের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার আইপিএল বিতর্ক মন থেকে মুছে ফেলে পাড়ি দিয়েছিলেন ইংল্যান্ড। আইপিএলে ছন্দে না থাকা, নেতৃত্ব নিয়ে সমালোচনা, দলের ব্যর্থতা, চেন্নাই সুপার কিংসের নেতৃত্বে ইস্তফা এবং শেষে চোটের জন্য প্রতিযোগিতা থেকেই ছিটকে যাওয়া। চুম্বকে গত আইপিএল এমনই কেটেছে জাডেজার।

রাজপুতসুলভ আগ্রাসন দেখা যায়নি আইপিএলে। এজবাস্টনের ২২ গজেও তেমন আগ্রাসী মেজাজে ধরা দেননি জাডেজা। কিন্তু তাঁর চোখে দেখা গিয়েছে সংকল্প। তাঁর ব্যাটের ঝংকার ইংরেজদের কপালে চিন্তার ভাঁজ স্পষ্ট করেছে ক্রমশ। পরিবর্তনশীল জীবনের মতোই চঞ্চলা ক্রিকেটের ছন্দ! যা কখনও ইতিবাচক, কখনও হতাশার।

জাডেজা অতীত (আইপিএল) ভুলে নতুন করে সাজিয়ে তুলছেন নিজের ক্রিকেট। ভারতীয় দলকে খাদের কিনারা থেকে উদ্ধার করেও তাই তিনি সংযমী। জেমস অ্যান্ডারসন, স্টুয়ার্ট ব্রডদের বোলিং সামলে ঝকঝকে শতরান করার পর জাডেজা বলেছেন, ‘‘যা হয়ে গিয়েছে, তা হয়ে গিয়েছে। আইপিএল আমার মাথায় নেই। যখন ভারতীয় দলের হয়ে খেলি, তখন আমার ভাবনায় শুধু ভারতীয় দলই থাকে। সব সময়ই আমার কাছে বিষয়টা একই রকম। দেশের হয়ে ভাল পারফর্ম করার থেকে তৃপ্তির আর কিছু নেই।’’

Advertisement

জাডেজা উচ্ছ্বসিত নন, তৃপ্ত। বিতর্কে মুছে আন্তর্জাতিক মঞ্চে দেশের হয়ে ভাল পারফরম্যান্স সৌরাষ্ট্রের অলরাউন্ডারকে মানসিক শান্তিও হয়তো দিয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘‘দেশের বাইরে, বিশেষ করে ইংল্যান্ডের মাটিতে এমন খেলতে পারলে ভাল তো লাগবেই। শতরান এক জন ক্রিকেটারের কাছে সব সময় বড় ব্যাপার। এই ইনিংস আমাকে আরও আত্মবিশ্বাসী করবে। বল ভাল সুইং করছিল। আবহাওয়া ছিল বোলারদের পক্ষে। তাই এই শতরানের অনুভূতি একদমই অন্য রকম।’’

জাডেজা খুশি যশপ্রীত বুমরা, মহম্মদ শামিদের ব্যাটিং নিয়েও। বলেছেন, ‘‘আমাদের ৯, ১০, ১১ নম্বর ব্যাটাররা নেটে প্রচুর ব্যাটিং অনুশীলন করেছে। প্রস্তুতির সময় দলের পরিকল্পনা এই রকমই ছিল। শেষ তিন জন ব্যাটার কিছু রান করতে পারলে সেটা দলের জন্য বাড়তি পাওনা হয়। বুমরা নেটে ব্যাটিং অনুশীলন করে খুব গুরুত্ব দিয়ে। ও নিজের উইকেটের একটা মূল্য ঠিক করেছে। বুমরাই তো দলের শেষ ৪০-৫০ রান যোগ করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিল।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.